‘ড’-এর জন্য পিএইচডি করেন অনেক

ঢাকা, রবিবার, ২০ অক্টোবর ২০১৯ | ৫ কার্তিক ১৪২৬

‘ড’-এর জন্য পিএইচডি করেন অনেক

খোলা কাগজ ডেস্ক ১০:০৮ অপরাহ্ণ, সেপ্টেম্বর ২৯, ২০১৯

print
‘ড’-এর জন্য পিএইচডি করেন অনেক

আমাদের দেশের বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষকদের কেউ কেউ আছেন যারা কেবল নামের আগে ‘ড’ লাগানোর জন্য পিএইচডি করেন। অন্য পেশার প্রায় সবাই পিএইচডি করে নামের আগে ‘ড’ লাগানোর জন্য। অনেক শিক্ষক আছেন যারা কেবল নামের আগে ‘ড’ লাগানোর জন্য পিএইচডি করেন না। এখানেই শিক্ষকদের পিএইচডি করা আর অন্যদের পিএইচডি করার মধ্যে পার্থক্য।

বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষকদের পিএইচডিতেই শেষ না বরং শুরু। পিএইচডির মাধ্যমে কারও তত্ত্বাবধানে গবেষণা করা শেখা হয়। স্বাধীনভাবে গবেষণা করতে পারে কি-না সেটা প্রমাণ দেওয়ার জন্যই পোস্ট-ডক করার দরকার। এটা হলো গবেষক হওয়ার আসল লিটমাস টেস্ট। এজন্যই বর্তমানে সেরা বিশ্ববিদ্যালয়ের এন্ট্রি লেভেলের পজিশনেই পোস্ট-ডককে ন্যূনতম যোগ্যতা ধরা হয়। সেই পোস্ট-ডক দিয়েও স্থায়ী চাকরি হয় না। তাকে আরও যাচাইয়ের জন্য নন-টেনুর পদ দেওয়া হয়। এই সময়ে তার গবেষণা, শিক্ষকতা ও ছাত্র কর্তৃক মূল্যায়ন ইত্যাদির ভিত্তিতে চাকরি স্থায়ী হয়। একাডেমিয়া এত সহজ না! আর এইজন্যই একাডেমিয়া এত সম্মানের এবং একই সঙ্গে আনন্দের। সহজ জিনিসে কোনো আনন্দ নেই।

আমাদের এখন এন্ট্রি লেভেলকে সহকারী অধ্যাপক ধরে ন্যূনতম যোগ্যতা হিসেবে পিএইচডি রাখা উচিত। অর্থাৎ প্রভাষক পদটি হবে নন-টেনুর পদ, যার ন্যূনতম শিক্ষাগত যোগ্যতা হবে মাস্টার্স। বেশি করে প্রভাষক নিয়োগ দিয়ে যাদের যখনই পিএইচডি হবে এবং সঙ্গে তিনটি প্রকাশনা থাকবে তাকেই সহকারী অধ্যাপক হিসেবে নিয়োগ দেওয়া।

এ ছাড়া আমাদের একটি নিয়ম করে দেওয়া উচিত ওয়ার্ল্ড র‌্যাংকিং-এ ৮০০-র মধ্যে আছে এইরকম বিশ্ববিদ্যালয় থেকে পিএইচডি করে এলে সোজা সহকারী অধ্যাপক। তার সক্রিয় শিক্ষকতার অভিজ্ঞতা আছে কি-না এসব দেখার কোনো প্রয়োজন নেই। এটা করলে আমরা অনেক শিক্ষক পাব, যাদের পিএইচডির জন্য আর ছুটি দিতে হবে না।

যারা প্রভাষক হিসেবে যোগ দেবেন তারা যদি কোথাও স্কলারশিপ বা ফেলোশিপ পান সঙ্গে সঙ্গে তাকে বিনা বেতনে শিক্ষা ছুটি দিতে হবে। পিএইচডি শেষে ফিরে এলে সরাসরি সহকারী অধ্যাপক হিসেবে নিয়োগ দিতে হবে। এখানে কাউকে ধরাধরির প্রয়োজন হবে না। পদ আছে কি নেই এগুলোও দেখার সুযোগ নেই। কর্তৃপক্ষের হাতে এসব সুযোগ তুলে দিলেই তারা খেলবে। কাউকে ফেভার দেবে আর কাউকে আটকাবে।

পিএইচডি করে এলে তিনি যদি কোথাও পোস্ট-ডকের সুযোগ পান তাকে সঙ্গে সঙ্গে ছুটি দিতে হবে। এই ক্ষেত্রে পিএইচডিকালীন ছুটি পর্যন্ত সার্ভিস দেওয়ার পর ছুটি নামক টাল্টুবাল্টু বলা চলবে না। মনে রাখতে হবে মাস্টার্স পাস করার পর দিনই পিএইচডি করতে যাওয়ার শ্রেষ্ঠ সময় আর পিএইচডি ডিগ্রি হওয়ার পর দিনই পোস্ট-ডক করতে যাওয়ার শ্রেষ্ঠ সময়। শিক্ষকরা যত বেশি পিএইচডি পোস্ট-ডক করবেন বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার মান তত ভালো হবে।

কামরুল হাসান
অধ্যাপক, ঢাবি