রোহিঙ্গা বিদ্বেষের প্রমিত ব্যাপার

ঢাকা, বুধবার, ১৮ সেপ্টেম্বর ২০১৯ | ২ আশ্বিন ১৪২৬

রোহিঙ্গা বিদ্বেষের প্রমিত ব্যাপার

খোলা কাগজ ডেস্ক ৯:৫৯ অপরাহ্ণ, সেপ্টেম্বর ০৪, ২০১৯

print
রোহিঙ্গা বিদ্বেষের প্রমিত ব্যাপার

রোহিঙ্গা বিদ্বেষের একটা প্রমিত রবীন্দ্র ব্যাপার আছে, এইটা আপনারা ধরতে পারেন? ভাষা ও সংস্কৃতিগতভাবে রোহিঙ্গারা প্রায় চাটগাঁইয়া, খেয়াল করলে দেখবেন। শহুরে প্রমিত ভাষা না, চট্টগ্রামের দক্ষিণাঞ্চলের একেবারে গ্রাম্য যে ভাষা, তাই রোহিঙ্গাদের নিজেদের মিডিয়ায় কইতে দেখি। কোন প্রমিত অপ্রমিত ভাগ না, যেন ওদের পুরোটাই চট্টগ্রামের কোনো গ্রাম। এ ঘটনা স্রেফ কাকতালীয় না, নানান ঐতিহাসিক লেনাদেনার ফল বইলা প্রাচীনরা বলেন।

ফলত, মিডিয়ায় অপ্রমিত বা গ্রাম্য চাটগাঁইয়াদের এই ভাষা যখন রোহিঙ্গাদের মুখে ক্ষমতার বোল আকারে আসে, রবীন্দ্র ভাবাদর্শের মিডিয়া তারে নিতে পারে না। কারণ, রোহিঙ্গারা চাটগাঁইয়া ভাষারে যে স্বাধীনতা, স্বাধিকার, নাগরিক ইত্যাদি শব্দে হেজিমনি আকারে হাজির করে, তা আর কেউ করে না, এমন কি চট্টগ্রামের লোকেরাও না। চট্টগ্রামের লোকেদের তো আলাদাভাবে কোনো অধিকার ও আত্মপরিচয়ের প্রশ্ন নিয়া হাজির হইতে হয় নাই বাংলাদেশে। ফলত মিডিয়ায় চট্টগ্রামের লোকেরাও প্রমিত, রাবীন্দ্রিক।

কিন্তু এই রোহিঙ্গাদের প্রায় খাঁটি চাটগাঁইয়া বোল, প্রয়াত সালাউদ্দিন কাদের চৌধুরী যুদ্ধাপরাধ ট্রাইব্যুনালে নিজের পরিচয় দেওয়ার সময়ে যেটিরে এমন কি বাংলা ভাষা বইলা স্বীকার করতে রাজি হন নাই। বলেছিলেন, আমার মাতৃভাষা বাংলা না, চাটগাঁইয়া। তো, তখনো বাংলাদেশের রাষ্ট্রীয় মিডিয়া এই ভদ্রলোকের ভাষারে ইশারা কইরা নানান ডেমন হাজির করত। বলত, অশ্লীল।

 

রিফাত হাসান

লেখক