ডেঙ্গু প্রতিরোধে ১৩ প্রস্তাব

ঢাকা, বুধবার, ২১ আগস্ট ২০১৯ | ৫ ভাদ্র ১৪২৬

ডেঙ্গু প্রতিরোধে ১৩ প্রস্তাব

খোলা কাগজ ডেস্ক ৯:৫৭ অপরাহ্ণ, আগস্ট ০২, ২০১৯

print
ডেঙ্গু প্রতিরোধে ১৩ প্রস্তাব

১. সব স্কুল কলেজ বন্ধ ঘোষণা করা হোক। কারণ এডিস মশা দিনের বেলায় কামড়ায়। স্কুল কলেজ থেকে আক্রান্ত হওয়ার আশঙ্কা তাই বেড়ে যাচ্ছে।
২. যে কোনো একটা দিনকে ‘ক্লিন ঢাকা দিবস’ ঘোষণা করা হোক। এই দিন সব স্থান পরিষ্কার করবে সিটি করপোরেশন, বাড়িওয়ালা-ভাড়াটিয়া, স্বেচ্ছাসেবকরা।

৩. ঢাকাকে পরিচ্ছন্ন করতে ৭২ ঘণ্টার জন্য সেনাবাহিনীকে মাঠে নামানো হোক।
৪. পূর্বের ন্যায় বিমান থেকে পুরো ঢাকাতে মশানাশক কার্যকর ওষুধ ছিটানো হোক।
৫. ঢাকার হাসপাতালগুলোতে ডেঙ্গু কর্নার চালু করে সেখানে চিকিৎসা জনবল বৃদ্ধি করা হোক।
৬. অতিরিক্ত রোগীর জন্য চিকিৎসক স্বল্পতা কমাতে দ্রুত ও অস্থায়ী ভিত্তিতে বেকার ডাক্তারদের নিয়োগ দেওয়া হোক।
৭. ভ্রাম্যমাণ আদালতের মাধ্যমে বাড়ি বাড়ি অভিযান চালানো হোক। কোনো বাড়িতে এডিস মশার প্রজনন উপযোগী পরিবেশ পাওয়া গেলে জরিমানা করা হোক।
৮. ডেঙ্গু মানেই হাসপাতাল নয়। রোগী সেটেলড থাকলে চিকিৎসকের পরামর্শে ঘরে বসেও চিকিৎসা নেওয়া যায়। প্রচারণার সময় এ বিষয়টাকে গুরুত্ব দেওয়া হোক।
৯. ডেঙ্গু সম্পর্কিত সংবাদ সংগ্রহ ও প্রচারে সর্বোচ্চ সতর্কতা অবলম্বনের ওপর গুরুত্ব আরোপ করা হোক।
১০. বৃষ্টির আধিক্য জুলাই মাসে বেশি থাকায় প্রতিবছর জুলাই মাসকে ‘ডেঙ্গু সচেতনতা মাস’ ঘোষণা করা হোক।
১১. ডেঙ্গু রোগীর চিকিৎসা প্রদানকারী চিকিৎসক, স্বাস্থ্যকর্মীদের ঝুঁকিভাতার আওতায় আনা হোক।
১২. বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকদের সমন্বয়ে একটি ডেঙ্গু অ্যাডভাইজারি বোর্ড করা হোক।
১৩. ডেঙ্গু নাই... নাই... নাই বলে যারা গুজব রটিয়েছেন.. তাদের এডিস বন্ধু ঘোষণা করা হোক এবং তাদের বিরুদ্ধে প্রশাসনিক ব্যবস্থা নেওয়া হোক।
মনে রাখতে হবে, ডেঙ্গুর কোনো কার্যকর টীকা নেই। সরাসরি কোনো চিকিৎসা নেই। কিন্তু... এটাকে শতভাগ প্রতিরোধ করা যায় শহরটাকে পরিচ্ছন্ন করে। স্লোগান হোক... চল যাই যুদ্ধে... এডিস মশার বিরুদ্ধে।

ডা. সাকলায়েন রাসেল
ভাসকুলার সার্জন