আত্মহত্যা ও নৈতিকতা

ঢাকা, বুধবার, ২৬ জুন ২০১৯ | ১২ আষাঢ় ১৪২৬

আত্মহত্যা ও নৈতিকতা

খোলা কাগজ ডেস্ক ৯:৩৪ অপরাহ্ণ, ডিসেম্বর ১১, ২০১৮

print
আত্মহত্যা ও নৈতিকতা

)হতাশা, হয়রানি
)না পাওয়ার বেদনা,
)নেশা, পেরেশানি
)কারো সাথে মিশতে না পারা
)বদমেজাজ, বদঅভ্যাস
)অযত্ন, অবহেলা, অতৃপ্তি সহ নানা কারন জড়িত থাকে এ কঠিন সিদ্ধান্তের পশ্চাতে।

যাই হোকনা কেন,

অাত্মহত্যায় অাত্ম-চিৎকারের ধ্বনি সাময়িক কাউকে ব্যথিত করলেও সে ব্যাথার স্থায়িত্ব সীমিত ।নানান মতে বিভাজিত হয় শুভাকাঙ্ক্ষীরা।স্বর্গ নরকের প্রশ্ন স্পস্ট হলেও খোলাসা করে উচ্চারিত করেনা কেউ।করবেও কিভাবে,কেউই মেনে নিতে পারেনা এমন বিদায়।কর্তব্যরত পুলিশ দায়িত্বের খাতিরে নিয়ে যায় লাশ। লাশের শরীরের একটা অংশ পরপোকারে অাসে,হয়তো এ উপকার অপ্রত্যাশিত, নিজের অঙ্গ বিলিয়ে দিয়ে শেষবারের মত মানুষের উপকারের বাহ! বাহ! কখনোই সে পায় না।

যে এমন কঠিন সিদ্ধান্ত নেয় সে হয়তো জানেনা তার শুভাকাঙ্ক্ষীদের মনের অবস্থা। কেউ কাঁদছে, কেউ অাপসোস করছে।কেউ নানান কূ-কথাও বলছে।

ঝুলন্ত লাশের পাশে স্বজনদের অাহাজারি
কতোজন ভয়ে অাতংকিত নিজের সন্তানকে নিয়ে।তৎক্ষণাৎ ভেবে অস্থির নিজ সন্তানের এমন করুন পরিনিতি যেন না হয়--- কেউ মনে মনে সৃষ্টিকর্তার নাম জপে।
হায় অাপসোস! কান্নাকাটি! যাই করি শেষটা অপূর্ন। এপার ওপার দুকূলের গানিতিক ফলাফল শূন্য।

এমন ভয়াবহ সিদ্ধান্তের এন্টি ম্যাডিসন হলো "নৈতিক শিক্ষা"
অাসুন অাত্মহত্যা থেকে বাঁচার জন্য পরিবার সমাজ দেশ ও জাতীকে নৈতিকতা চর্চায় উদ্বুদ্ধ করি।নিরুৎসাহিত করি এমন বিদায় পদ্ধতিকে।।।।
(অাত্মহত্যা) এক বাক্যে না।
অাল্লাহ অামাকে সহ সবাইকে হেফাজত করুক।।।

নাসির পারভেজ’র ফেসবুক ওয়াল থেকে নেয়া।