যশ-নুসরাতকে নিয়ে মুখ খুললেন সাবেক স্ত্রী

ঢাকা, রবিবার, ১৯ সেপ্টেম্বর ২০২১ | ৪ আশ্বিন ১৪২৮

Khola Kagoj BD
Khule Dey Apnar chokh

যশ-নুসরাতকে নিয়ে মুখ খুললেন সাবেক স্ত্রী

বিনোদন ডেস্ক
🕐 ১২:০৭ অপরাহ্ণ, সেপ্টেম্বর ১৫, ২০২১

যশ-নুসরাতকে নিয়ে মুখ খুললেন সাবেক স্ত্রী

যশ দাশগুপ্ত ও নুসরাত জাহান সংবাদমাধ্যম এবং সোশ্যাল মিডিয়ায় নিত্য দিনের খবর। সদ্যোজাতকে নিয়ে মেতে আছেন সবাই। পত্রিকার পাতা খুললেই তাদের রসায়ন। এর মাঝে এবার সামনে এলো যশের সাবেক স্ত্রী শ্বেতা। জানালেন যশের ১০ বছরের ছেলের খবর। শ্বেতা পেশায় একজন সাংবাদিক। নিয়মিতই তিনি ফেসবুকিং করেন।

তার ফেসবুক প্রোফাইল খুললেই চোখে পড়ে- ‘আমার হৃদয় যেন নরম হয়। মন ভয়হীন। মেজাজ সাহসী।’

যশ এবং নুসরাত জাহানকে নিয়ে গত কয়েক মাসের ঘটনা প্রবাহে শ্বেতাকে কোথাও দেখা যায়নি। এই প্রথম কোনও সংবাদমাধ্যমের সঙ্গে তিনি কথা বললেন। সম্প্রতি কথা বলেছেন আনন্দবাজারের সঙ্গে। মুম্বাই থেকে ফোনে তার সাবেক স্বামী এবং স্বামীর বর্তমান বান্ধবী নুসরাতকে নিয়ে সোজা-সহজ-সরল জবাব দিলেন শ্বেতা।

তিনি জানান, নুসরতকে আমি দেখেছি কিন্তু চিনিনা। তাই তার ব্যপারে কোনো মন্তব্য করতে চাইনা। যশের সঙ্গে তার ডিভোর্স হয়ে গিয়েছে এবং তাদের ১০ বছরের একটি ছেলে রয়েছে বলেও জানান শ্বেতা। তিনি বলেন যশকে ছাড়া তিনি ভালোই আছেন।

এতদিন তিনি কেনো সামনে আসেননি এমন প্রশ্নে তিনি বলেন, আমি সামনে আসতে চাইনি, তাই আলোচনায়ও আসিনি। অতীতের সকল স্মৃতি ভুলে শ্বেতা নিজের জীবন নিয়ে স্বপ্ন দেখেন বলে জানান।

শ্বেতা বলেন, যশ আমার ছেলের বাবা। ওর সঙ্গে সেই সূত্র ধরে যেটুকু যোগাযোগ রাখতে হয় রাখি। আমাদের সন্তান পারস্পরিক হেফাজতের অধীনে। ডিভোর্সের সময় আমরা এই সিদ্ধান্ত নিয়েছিলাম। আর ভালোবাসা? যশ যে দিন আমাদের পরিবার ছেড়ে চলে গিয়েছিল, সে দিন থেকেই ওর জন্য আমার ভালোবাসা উধাও হয়ে গিয়েছে।

শ্বেতা জানান, সব মিটিয়ে দিয়েছি। আমার অতীত নিয়ে অনেক দিন থেকেই ভাবনাচিন্তা বন্ধ করে দিয়েছি। অনেক হয়েছে! তবে সমস্যা কখনো শেষ হয় না। নিজের মতো করে, নিজের ইচ্ছায় জীবন কাটাতে পারছি না। তবে এ সবের মধ্যেও আমার একার জীবন নিয়ে স্বপ্ন দেখি। মনে হয় স্বপ্নে বাঁচি।

টলিপাড়া সম্পর্কে শ্বেতা বলেন, বছর তিনেক ইন্ডাস্ট্রির সঙ্গে যুক্ত ছিলাম। এটা সেই সময়, যখন যশের সঙ্গে ডিভোর্স নিয়ে লড়ছি। ব্যস! ওইটুকুই। তারপর মুম্বইয়ে ফিরে আসি। তার পর টলিপাড়ার সঙ্গে আর কেনই বা যোগাযোগ থাকবে!

 
Electronic Paper