শিল্পীর জন্য পুরো পৃথিবী: শাকিব খান

ঢাকা, শুক্রবার, ১৪ ডিসেম্বর ২০১৮ | ২৯ অগ্রহায়ণ ১৪২৫

শিল্পীর জন্য পুরো পৃথিবী: শাকিব খান

বিনোদন ডেস্ক ১:২৮ অপরাহ্ণ, অক্টোবর ০৯, ২০১৮

print
শিল্পীর জন্য পুরো পৃথিবী: শাকিব খান

দুই দশকের অভিনয়জীবন শাকিব খানের। এই সময়টাতে কাজ করেছেন শতাধিক সিনেমায়। দেশের মানুষের কাছে তাঁর জনপ্রিয়তা আকাশছোঁয়া। দর্শকের ভালোবাসা একটা সময় তাঁকে টেনে নিয়ে যায় সীমানার ওপারে। প্রথম সিনেমা ‘শিকারি’ দিয়ে বাংলাদেশ ও ভারতের দর্শকদের ভেলকি দেখান সুদর্শন এই নায়ক। এই ছবিতে নতুন লুকের শাকিব রীতিমতো সবাইকে চমকে দেন। দুই বছর আগের এই ছবি তাঁর মধ্যে এনে দেয় নতুন এক উপলব্ধিও। ছবিটি মুক্তির পর শাকিব টের পেলেন-শিল্পীর কোনো দেশ নেই, গণ্ডি নেই। শিল্পীর জন্য পুরো পৃথিবীই খোলা। রাজধানীর স্টার সিনেপ্লেক্সের বর্ষপূর্তির অনুষ্ঠানে এসে এই উপলব্ধির কথা শোনালেন শাকিব খান।

সোমবার সন্ধ্যায় স্টার সিনেপ্লেক্স কর্তৃপক্ষ ১৪তম বর্ষপূর্তিতে আয়োজন করে একটি অনুষ্ঠান। অনুষ্ঠানে চলচ্চিত্র–সংশ্লিষ্টদের সম্মাননা জানানো হয়। ছিল সাংস্কৃতিক আয়োজনও। অনুষ্ঠানে হাজির ছিলেন আকবর পাঠান ফারুক, শাকিব খান, ফেরদৌস, রিয়াজ, ওমর সানী, পপি, শহিদুজ্জামান সেলিম, জয়া আহসান, পূর্ণিমা, চঞ্চল চৌধুরী, আরিফিন শুভ, কনা, রৌশান, গিয়াস উদ্দিন সেলিম, অনিমেষ আইচ, মুহাম্মদ মোস্তফা কামাল রাজ, রেদওয়ান রনি, ভাবনা প্রমুখ।

এদিকে ওমর সানী, রিয়াজ, ফেরদৌস ও শাকিব খানকে একসঙ্গে দেখে উপস্থাপক শাহরিয়ার নাজিম জয় তাঁদের মঞ্চে ডেকে নেন। তাঁর আমন্ত্রণে মঞ্চে যান বাংলা সিনেমার জনপ্রিয় এই চার নায়ক। তাঁরা মঞ্চে কথা বলেন সিনেপ্লেক্সের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী আর দেশের সিনেমা নিয়ে।

শাকিব খান বলেন, ‘যৌথ প্রযোজনায় আমার অভিনীত প্রথম সিনেমা “শিকারি”। এটি আন্তর্জাতিক মানের সিনেমা। এই সিনেমায় অভিনয় করে আমি উপলব্ধি করেছি, শিল্পীর আসলে কোনো দেশ নেই, কোনো সীমানা নেই। একজন শিল্পীর জন্য পুরো পৃথিবীই খোলা। শিল্পী তাঁর মনের মতো অভিনয় দিয়ে পুরো পৃথিবীতে খেলে যাবেন। “শিকারি” ছবির শুটিংয়ের সময় একটা বিষয় মাথায় কাজ করত, দেশের সম্মান। দেশের বাইরে আমি যখন কাজ করছি, আমার মাধ্যমে আমার দেশ সম্পর্কে ধারণা পাবেন তাঁরা। শুধু এই ছবি নয়, এরপর যখনই আমাকে ছবির জন্য দেশের বাইরে থেকে ডেকেছে, সব সময় আমার দেশ ও চলচ্চিত্রশিল্পের সম্মানের বিষয়টা মাথায় রেখে কাজ করেছি।’

বাংলাদেশের জাজ মাল্টিমিডিয়া আর ভারতের এসকে মুভিজের যৌথ প্রযোজনায় ২০১৬ সালে মুক্তি পায় ‘শিকারি’। ছবিটিকে স্টার সিনেপ্লেক্স কর্তৃপক্ষ তাদের ১৪তম বর্ষপূর্তিতে পুরস্কার প্রদান করেছে। সিনেপ্লেক্স কর্তৃপক্ষের মতে, তাদের প্রতিষ্ঠানের যাত্রা শুরুর পর থেকে যেসব সিনেমা সিনেপ্লেক্স প্রদর্শন করে ব্যবসায়িকভাবে সাফল্য পেয়েছে, ‘শিকারি’ তার মধ্যে একটি। পুরস্কার গ্রহণ করেছেন শাকিব খান, ছবির একাংশের প্রযোজক আবদুল আজিজ, চিত্রনায়ক ওমর সানী, অমিত হাসান প্রমুখ।

‘শিকারি’ ছবির জন্য পুরস্কার গ্রহণ শেষে শাকিব খান শোনালেন শুটিংয়ের অভিজ্ঞতা। বললেন, ‘আমি যখন ঢাকা থেকে কলকাতায় গিয়েছিলাম, তারা জানত, আমি বাংলাদেশের সুপারস্টার। টেকনিশিয়ান থেকে শুরু করে সবাই আমার দিকে তাকিয়ে ছিল। আমি কী করি! তখন মনের মধ্যে কাজ করত, আমাকে ভালো করতেই হবে। আমি যদি ভালো না করতে পারি, তাহলে আমার চলচ্চিত্রের বদনাম হবে। আমি চাইতাম, আমার ইন্ডাস্ট্রির মুখ যেন উজ্জ্বল হয়। চেষ্টা করেছি নিজের সর্বোচ্চ চেষ্টা করার, এত দিন যা কিছু শিখেছি সব প্রয়োগের। একটা সময় তারাও আমার ওপর দারুণ খুশি হয়।’

২০০৪ সালের ৮ অক্টোবর যাত্রা শুরু করে ‘স্টার সিনেপ্লেক্স’। দীর্ঘ ১৪ বছরে এই প্রেক্ষাগৃহে হলিউডের ছবির পাশাপাশি দেশের ছবিও প্রদর্শন করা হয়। এসব ছবির মধ্যে ব্যবসায়িকভাবে সাফল্য পাওয়া ও দর্শকপ্রিয় ছবিগুলো হচ্ছে ‘মোল্লাবাড়ির বউ’, ‘দারুচিনি দ্বীপ’, ‘মনপুরা’, ‘থার্ড পারসন সিঙ্গুলার নাম্বার’, ‘গেরিলা’, ‘চোরাবালি’, ‘প্রজাপতি’, ‘জিরো ডিগ্রি’, ‘ঢাকা অ্যাটাক’, ‘হৃদয়ের কথা’, ‘চন্দ্রগ্রহণ’, ‘শিকারি’, ‘আয়নাবাজি’ ও ‘ভুবন মাঝি’। ছবির অভিনয়শিল্পী, নির্মাতা কিংবা প্রযোজক উপস্থিত থেকে পুরস্কার গ্রহণ করেন। পুরস্কার প্রদান করেন স্টার সিনেপ্লেক্সের চেয়ারম্যান মাহবুব রহমান। অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন তথ্যমন্ত্রী হাসানুল হক ইনু।