প্রভু দেবা বিয়ে করেছেন ঠিকই তবে ভাইঝিকে নয়

ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ২৮ জানুয়ারি ২০২১ | ১৫ মাঘ ১৪২৭

প্রভু দেবা বিয়ে করেছেন ঠিকই তবে ভাইঝিকে নয়

খোলা কাগজ ডেস্ক ২:৫০ অপরাহ্ণ, নভেম্বর ২১, ২০২০

print
প্রভু দেবা বিয়ে করেছেন ঠিকই তবে ভাইঝিকে নয়

ভাইঝিকে বিয়ে করার গুঞ্জন মিথ্যা বলে জানিয়েছে ভারতীয় অভিনেতা ও নৃত্য পরিচালক প্রভু দেবার ঘনিষ্ঠজন। জানা যায়, মাস দুয়েক আগেই নাকি তার বিয়ে হয়ে গেছে। খবর আনন্দবাজারের।

খবরে বলা হয়, মাস দুয়েক আগে এক ফিজিওথেরাপিস্টকে বিয়ে করেন প্রভু দেবা। তবে পুরো ব্যাপারটা এতটাই গোপনে সেরে ফেলেন যে, সংবাদমাধ্যম তো দূরের কথা, ইন্ডাস্ট্রির অনেকেও তা টের পাননি।

দীর্ঘদিন ধরে পিঠের ব্যথায় ভুগছিলেন প্রভুদেবা। চিকিৎসকদের পরামর্শে বেশ কয়েক মাস আগে এক ফিজিওথেরাপিস্টের কাছে যেতে শুরু করেন তিনি। অল্পদিনের মধ্যেই তাদের মধ্যে ঘনিষ্ঠতা বাড়ে। তাই দেরি না করে সেপ্টেম্বরে বিয়ে সেরে ফেলেন তারা। মুম্বাইয়ে প্রভুদেবার বাড়ি ‘গ্রিন একর্স’-এই বিয়ের অনুষ্ঠান হয় বলে জানা গেছে। তবে ইন্ডাস্ট্রি থেকে বিশেষ কেউ আমন্ত্রিত ছিলেন না। বরং পরিবারের লোকজন ও হাতেগোনা কয়েকজন বন্ধুবান্ধবের উপস্থিতিতে বিয়ে সম্পন্ন হয়। নবদম্পতি এই মুহূর্তে চেন্নাইয়ে রয়েছেন বলে জানা গেছে।

ভাইঝিকে বিয়ের খোঁজখবর শুরু হলে অভিনেতার ঘনিষ্ঠ মহল থেকে বলা হয়, ‘সব ভুয়া খবর। এক ফিজিওথেরাপিস্টকে বিয়ে করেছেন প্রভুদেবা। তবে তিনি সম্পর্কে আত্মীয় নন।’

ব্যক্তিগত জীবনে ওঠাপড়া নিয়ে বরাবরই খবরের শিরোনামে থেকেছেন প্রভুদেবা। জনপ্রিয়তার শিখরে থাকাকালীন ১৯৯৫ সালে রামলতা ওরফে লতার সঙ্গে বিয়ে হয় তার। তাদের তিন সন্তানও হয়। ২০০৮ সালে প্রভুদেবার বড় ছেলে ক্যানসারে আক্রান্ত হয়ে মারা যায়। ছেলের মৃত্যুর পরই স্বামী-স্ত্রীর সম্পর্কে চিড় ধরে বলে শোনা যায়।

২০১০ সালে দক্ষিণী অভিনেত্রী নয়নতারার সঙ্গে সম্পর্কে জড়ান প্রভুদেবা। তা জানতে পেরে অনশনে বসার হুমকি দেন লতা। শেষমেশ ২০১১ সালে তাদের বিবাহবিচ্ছেদ হয়ে যায়। পরে নয়নতারার সঙ্গেও সম্পর্ক ভেঙে যায়। তারপর প্রভুদেবা এবং নয়নতারা, দু’জনেই অভিনয় থেকে সাময়িক বিরতি নেন। নয়নতারার সঙ্গে সম্পর্ক ভাঙার পর বলিউডে মনোনিবেশ করেন প্রভুদেবা।