‘আমি তোমাকেই বলে দেবো’

ঢাকা, সোমবার, ১৮ জানুয়ারি ২০২১ | ৫ মাঘ ১৪২৭

‘আমি তোমাকেই বলে দেবো’

বিনোদন ডেস্ক ২:৪৭ অপরাহ্ণ, নভেম্বর ১৯, ২০২০

print
‘আমি তোমাকেই বলে দেবো’

সঞ্জীব চৌধুরীকে হারানোর ১৩ বছর। তিনি ছিলেন একাধারে সাংবাদিক, গীতিকার, সঙ্গীতশিল্পী বহু গুণের অধিকারী। আজ ১৯ নভেম্বর এই গুণী মানুষের ১৩তম মৃত্যুবার্ষিকী। তিনি দেশীয় ব্যান্ডদল দলছুটের প্রতিষ্ঠাতা এবং অন্যতম প্রধান সদস্য ছিলেন।

‘আমি তোমাকেই বলে দেবো’ থেকে শুরু করে এমন অসংখ্য জনপ্রিয় গানের শিল্পী তিনি। এর মধ্যে ‘গাড়ি চলে না’, ‘আমাকে অন্ধ করে’, ‘হাতের উপর’, ‘আমার বয়স হল সাতাশ’, ‘বায়োস্কোপ’, ‘সমুদ্র সন্তান’, ‘তোমার ভাঁজ খোল আনন্দ দেখাও’, ‘চোখটা এত’, ‘রিকশা’ এসব গানগুলিও ব্যাপক জনপ্রিয়।

১৯৬৪ সালের ২৫ ডিসেম্বর হবিগঞ্জ জেলার বানিয়াচং উপজেলার মাকালকান্দি গ্রামে জন্মগ্রহণ করেন সঞ্জীব চৌধুরী। তার পিতা গোপাল চৌধুরী এবং মাতা প্রভাষিনী চৌধুরী। নয় ভাই বোনের মধ্যে তিনি ছিলেন সপ্তম।

হবিগঞ্জ সরকারি উচ্চ বিদ্যালয়ে অষ্টম শ্রেণি পর্যন্ত পড়াশোনা করেন সঞ্জীব চৌধুরী। এরপর ঢাকার বকশী বাজার নবকুমার ইন্সটিটিউটে নবম শ্রেণিতে এসে ভর্তি হন। সেখান থেকে ১৯৭৮ সালে মাধ্যমিক পরীক্ষায় মেধা তালিকায় ১২তম স্থান অর্জন করেন।

১৯৮০ সালে তিনি ঢাকা কলেজ থেকে উচ্চ মাধ্যমিক পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করেও মেধা তালিকায় স্থান করে নেন। এরপর তিনি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে গণিত বিভাগে ভর্তি হন। কিন্তু বিভিন্ন কারণে তার গণিতে পড়া হয়ে ওঠেনি। অতঃপর শ্রেষ্ঠ এই বিদ্যাপীট থেকে গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিষয়ে স্নাতক ও স্নাতকোত্তর সম্পন্ন করেন তিনি।