ঐশীর কণ্ঠে এবার নজরুল সংগীত

ঢাকা, শনিবার, ৮ আগস্ট ২০২০ | ২৩ শ্রাবণ ১৪২৭

ঐশীর কণ্ঠে এবার নজরুল সংগীত

বিনোদন প্রতিবেদক ১১:৫১ পূর্বাহ্ণ, জুলাই ০৩, ২০২০

print
ঐশীর কণ্ঠে এবার নজরুল সংগীত

এ প্রজন্মের শ্রোতাপ্রিয় কণ্ঠশিল্পী। খুউব ছোটবেলায় যখন নোয়াখালীতে ওস্তাদ হাফিজ উদ্দিন বাহারের কাছে উচ্চাঙ্গ সঙ্গীত, নজরুল সংগীত এবং মো. শরীফের কাছে অন্যান্য গানে তালিম নিতেন তখন থেকেই ঐশীর সুরেলা কণ্ঠ সম্পর্কে আশপাশের সবাই বেশ অবগত ছিলেন।

সুরেলা কণ্ঠের ঐশী তার নিজের ইউটিউব চ্যানেল ‘ঐশী এক্সপ্রেস’ এ জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মদিনে ক্লাস টেনে থাকতে নিজের লেখা ও সুর করা গান ‘জন্মদিন বঙ্গবন্ধুর জন্মদিন’ নতুন করে শাহরিয়ার আলম মার্সেলের সংগীতায়োজনে গেয়ে প্রকাশ করেছেন।

ঐশীর ভাষ্য, এমন যে জাতির জনক বঙ্গবন্ধুকে নিয়ে জন্মদিনের যতগুলো গান আছে সবগুলোর মধ্যে তার গানটিও একটি অন্যতম গান যা শ্রোতা দর্শকের ভালোবাসায় পরিণত হয়েছে। যদিও বা শ্রোতা দর্শক ঐশীকে ফোক গানে বেশি পেয়েছেন। কিন্তু এবারই প্রথম ঐশীকে শ্রোতাদর্শক একেবারেই ঘরোয়া আয়োজনের মধ্যদিয়ে তার কণ্ঠে নজরুল সংগীত শুনেছেন।

কাজী নজরুল ইসলামের লেখা এবং নিজের সুর করা ‘কথা কও কও কথা’ গানটি গেয়ে গেল ১ জুলাই রাতে তার নিজের ফেসবুক পেজ ‘ঐশী’তে তা প্রকাশ করেছেন। গানটি প্রকাশের পর থেকেই ঐশী গানটির জন্য বেশ সাড়া পাচ্ছেন। মূলত এই গানটি গেয়েছিলেন সন্তোষ সেনগুপ্ত।

১৯৪০ সালে এটি বেতারে ‘গীতিচিত্র অতনুর দেশে’ অনুষ্ঠানে প্রচার হয়েছিল। গানটি প্রসঙ্গে ঐশী বলেন, ‘লকডাউনের এই দিনগুলোয় আমি ইন্ধিরাগান্ধী কালচারাল সেন্টার আয়োজিত নজরুল সংগীতের একটি কোর্সে অংশগ্রহণ করি অনলাইনে। শ্রদ্ধেয় সুজিত মুস্তফা স্যারের কাছেই আমি কথা কও, কও কথা গানটি শিখেছি। তার কাছ থেকেই অনুপ্রাণিত হয়েই গানটি গেয়েছি আমি। গানটি আধুনিক অঙ্গের একটি গান।

গানটি প্রকাশের পর থেকেই বেশ সাড়া পাচ্ছি। সত্যি বলতে কী সাধারণত লাইভে আমাকে ফোক গান গাইতেই বেশি অনুরোধ করা হয়ে থাকে। কিন্তু আমি চেষ্টা করি সকালের লাইভ অনুষ্ঠানগুলোয় রবীন্দ্রসংগীত, নজরুলসংগীত পরিবেশন করতে। কারণ ছোটবেলা থেকেই আমি সব ধরনের গানেই নিজেকে যথাযথভাবে গড়ে তোলার চেষ্টা করেছি। নজরুল সংগীতটির জন্যও যে এত সাড়া পাব সেটাও আসলে আমার এতটা আশা ছিল না।

আমি মুগ্ধ।’ এদিকে সিএমভি থেকে ঐশীর ‘ঐশী এক্সপ্রেস-টু’র তিনটি গান প্রকাশিত হয়েছে। গান তিনটি হচ্ছেÑ ‘মনের খবর’, ‘দম দাও’, ও ‘হৃদয়ের প্রসাধন’। এর মধ্যে ‘হৃদয়ের প্রসাধন’ গানটি ঐশীর নিজেরই অনেক ভালোলাগার একটি গান। গানটি লিখেছেনÑ মিনার মাহমুদ ও সুর সংগীত করেছেন শাহরিয়ার আলম মার্সেল।