প্রেমের দাবিতে রাবিতে বঞ্চিতদের বিক্ষোভ!

ঢাকা, শুক্রবার, ৩ এপ্রিল ২০২০ | ২০ চৈত্র ১৪২৬

প্রেমের দাবিতে রাবিতে বঞ্চিতদের বিক্ষোভ!

রাবি প্রতিনিধি ১২:৩১ অপরাহ্ণ, ফেব্রুয়ারি ১৪, ২০২০

print
প্রেমের দাবিতে রাবিতে বঞ্চিতদের বিক্ষোভ!

শুক্রবার বেলা ১১টা। রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের (রাবি) কেন্দ্রীয় গ্রন্থাগারের পেছরের আমতলা থেকে ৫০-৬০ জন তরুণ একটি মিছিল নিয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর ভবনের দিকে এগিয়ে আসছে। মিছিলে তাদের ব্যানারে লেখা ‘প্রেম বঞ্চিত সংঘ’! ‘তুমি কে? আমি কে? বঞ্চিত, বঞ্চিত,’ ‘প্রেমের নামে প্রহসন চলবে না চলবে না’ সবার কন্ঠে একই স্লোগান।

মিছিলের দিকে তাকিয়ে আশপাশের সবাই হাসছেন! কেউ আবার দৌঁড়ে এসে মিছিলে যোগ দিচ্ছেন। বিশ্ববিদ্যালয়ের পশ্চিম পাড়াসহ বিভিন্নসড়ক ঘুরে মিছিলটি প্যারিস রোডে পৌঁছাতেই শিক্ষার্থীদের অংশগ্রহণে মিছিলে লোকসংখ্যা প্রায় চারশতে পৌঁছায়।

বিশ্ব ভালোবাসা দিবসে এভাবেই বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রেমবঞ্চিত শিক্ষার্থীদের একটি দল ক্যাম্পাসে বিক্ষোভ মিছিল ও সমাবেশ করেছে। ‘রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় প্রেম বঞ্চিত সংঘ’ ব্যানারে মিছিলটি বিশ^বিদ্যালয়ের আমতলা চত্বর থেকে শিক্ষার্থীরা মিছিলটি বের করেন। এরপর ক্যাম্পাসের প্রধান প্রধান সড়ক প্রদক্ষিণ করে একই স্থানে এসে সংক্ষিপ্ত সমাবেশ করে।

মিছিলে অংশগ্রহণকারীরা ‘কেউ পাবে, কেউ পাবে না, তা হবে না, তা হবে না’, ‘প্রেমের নামে প্রহসন বন্ধ কর’ এ রকম নানা হাস্যরসাত্মক স্লোগানে পুরো ক্যাম্পাস মাতিয়ে তুলেন।

প্রেমবঞ্চিত সংঘের সভাপতি নুরুল ইসলাম জিম বলেন, ‘বেশির ভাগ মানুষ জীবনের একতরফাভাবে ভালোবাসে। ফলে মানুষের বড় একটা অংশ প্রেমবঞ্চিত হচ্ছে। আমরা চাই সবাই যেন প্রেম করতে পরে। আর এ চাই প্রেমের সুষম বন্টন।

প্রেমবঞ্চিত সংঘের সাধারণ সম্পাদক তন্ময় রশিদ বলেন, ‘যারা প্রেম করে না আজকে তারাই কর্মসূচি করছে। প্রেম করা মানুষের অধিকার। একজন একসঙ্গে ৫/৬টি প্রেম করবে আর কেউ একটিও করতে পারবে না। এটা যেন না হয় সেজন্য আমরা সমান অধিকার চাই। আমরা চাই প্রেম ছাড়া যেন কেউ না থাকে। আমরা প্রেমের জন্য লড়ছি। অধিকার নিশ্চিত করার জন্য লড়ছি।

এর আগে বুধবার (১৩ ফ্রেব্রুয়ারি) সন্ধ্যায় প্রেম বঞ্চিত সংঘের নতুন কমিটি গঠন করা হয়। কমিটিতে নুরুল ইসলাম জিমকে সভাপতি ও তন্ময় রশিদকে সাধারণ সম্পাদক করা হয়।