ছবিটি দর্শককে ভালো কিছু দিতে পারবে

ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ২১ নভেম্বর ২০১৯ | ৭ অগ্রহায়ণ ১৪২৬

ছবিটি দর্শককে ভালো কিছু দিতে পারবে

তৌফিকুল ইসলাম ২:১১ অপরাহ্ণ, নভেম্বর ০৬, ২০১৯

print
ছবিটি দর্শককে ভালো কিছু দিতে পারবে

জ্বীন ছবি এখন মুক্তির প্রতীক্ষায় রয়েছে। এ ছবিতে অভিনয় ও অন্যান্য প্রসঙ্গ নিয়ে জান্নাতুন নূর মুন কথা বলেছেন তৌফিকুল ইসলামের সঙ্গে।

জ্বীন ছবির শুটিং শেষ হয়ে গেছে, তাই না?
হ্যাঁ, শুটিং শেষ হয়ে গেছে।

ছবিটি কি ডিসেম্বরে মুক্তি পেতে যাচ্ছে?
এটা এখনো কনফার্ম না, কিন্তু ডিসেম্বরে মুক্তি দেওয়ার চেষ্টা করা হচ্ছে।

এরকম ভৌতিক ছবিতে অভিনয় করে কেমন লেগেছে?
ডিফরেন্ট একটা স্টোরি, এ ধরনের সিনেমা বোধহয় বাংলাদেশে এর আগে হয়নি যতদূর আমি জানি। অন্যরকম একটা অভিজ্ঞতা, ম্যানেজমেন্ট থেকে শুরু করে সবকিছুই আলাদা ছিল।

আপনার প্রত্যাশার জায়গা থেকে ছবিটিতে অভিনয় প্রসঙ্গে...
ছবিটিতে কাজ করে আমার ভালো লেগেছে। আমার প্রত্যাশা যেটা এখন কিন্তু ভালো গল্পের সিনেমা নির্মিত হলে মানুষ ঠিকই হলে গিয়ে সিনেমা দেখে, সে জায়গা থেকে আমার মনে হয় মানুষ সিনেমাটি পছন্দ করবে ইনশাআল্লাহ।

দর্শকদের ওপর ছবিটা কতটা প্রভাব ফেলতে পারে?
কুরআনে যেহেতু জ্বীনের ব্যাপারে বলা আছে, মুসলিম হিসেবে ব্যাপারটাতো আমরা বিশ্বাস করি। সে হিসেবে আমাদের দেশের অনেক মানুষই প্যারানরমাল বিষয় ফেস করেছে। হয়তো কেউ কোনো কিছুতে রিলেট করতে পারবে। এমন বিষয়ই গল্পের মধ্যে থাকবে, তাই আমরা বিশ^াসের জায়গা থেকে যা দেখি সেটাই হয়তো সিনেমাতে দেখানো হবে।

হরর মুভিতো বিদেশে নিয়মিত হচ্ছে, বাংলাদেশে এ ছবিটা কি ব্যবসাসফল হবে বলে মনে করছেন?
আমি ব্যক্তিগতভাবে হরর ছবি অনেক পছন্দ করি। আমি একজন দর্শক হিসেবে যদি হরর মুভি দেখতে পছন্দ করে থাকি, তাই আমার মনে হয় আমাদের দেশের দর্শকদের মধ্যে একটা প্রত্যাশা থাকবে যে দেশে প্রথমবার হরর সিনেমা হচ্ছে; সিনেমাটা দেখি কেমন হয়েছে। ছবিটি দর্শককে ভালো কিছু দিতে পারবে এটা আমি আশা করছি।

আমাদের দেশে দেখা গেছে হরর কোনো কিছুর ক্ষেত্রে বই খুব প্রভাব ফেলত, তারপর এফএম রেডিওতে, এখন ভিজ্যুয়ালাইজের ক্ষেত্রে সিনেমায় মানুষকে ভৌতিক কিছু দেখানো হলে মানুষ কি ভয়ের সেই ফিলটা পাবে?
অবশ্যই পাবে, এখানে সিনগুলো শুট করতে গিয়ে আমি নিজেই ভয় পেয়েছি (হাসি)। আমার মনে হয় মানুষ অবশ্যই ভয় পাবে, তাদের মধ্যে ভয়টা কাজ করবে।

শুটিংয়ের পরিবেশ কেমন ছিল? আপনাদের বোধহয় রাতে শুটিং করতে হয়েছে...
আমাদের ম্যাক্সিমাম শুটিং রাতে হয়েছে, তবে দিনের বেলাও শুটিং হয়েছে তবে কম হয়েছে।

পরিচালক নাদের চৌধুরী একজন জনপ্রিয় অভিনেতা, তার সম্পর্কে কিছু বলবেন?
নাদের ভাইয়া যেহেতু একজন অ্যাক্টর, সেহেতু তিনি জানেন কীভাবে অ্যাকটিংটা করতে হবে বা কে কীভাবে করলে ভালো লাগবে। সো, ঐ জায়গাটায় সব সময় উনি হেল্প করেছেন। উনি অনেক হেল্পফুল একজন মানুষ।