যেতে চাই বহুদূর...

ঢাকা, রবিবার, ৮ ডিসেম্বর ২০১৯ | ২৪ অগ্রহায়ণ ১৪২৬

যেতে চাই বহুদূর...

তৌফিকুল ইসলাম ৯:১০ পূর্বাহ্ণ, আগস্ট ১১, ২০১৯

print
যেতে চাই বহুদূর...

ঈদের প্রোগ্রাম নিয়ে ব্যস্ততা, উপস্থাপনা ও অন্যান্য প্রসঙ্গে উপস্থাপিকা মৌসুমী মৌ কথা বলেছেন তৌফিকুল ইসলামের সঙ্গে।

ঈদের জন্য কী কী কাজ করলেন?
এবার ঈদে এখন পর্যন্ত আমার উপস্থাপনায় চারটি অনুষ্ঠানের প্রচার সময় চূড়ান্ত হয়েছে। বাংলাদেশ টেলিভিশনে আজ ঈদের আগের দিন রাত ১০টার ইংরেজি সংবাদের পর লোকসংগীতের অনুষ্ঠান ‘সোনার ময়না পাখি’ শিরোনামের অনুষ্ঠানটি প্রচার হবে। এতে অংশ নিয়েছেন তরুণ প্রজন্মের কণ্ঠশিল্পী অঙ্কন, লায়লা, পুলক ও পলাশ। অনুষ্ঠানটি ঈদের পরের কয়েকদিনও পুনঃপ্রচার হবে। ঈদের দ্বিতীয় দিন এনটিভির বিশেষ অনুষ্ঠান ‘নৃত্যে ছন্দে আনন্দে’ প্রচারিত হবে বিকাল ৫টা ১০ মিনিটে। ঈদের পঞ্চম দিন ও সপ্তম দিন এশিয়ান টিভির বিশেষ আয়োজন ‘ওয়ালটন এশিয়ান মিউজিক’ লাইভ অনুষ্ঠান রাত ১১টা থেকে রাত ২টা পর্যন্ত প্রচার হবে। পঞ্চম দিনের অতিথি লুইপা ও অপু এবং সপ্তম দিনের অতিথি রিংকু। এছাড়া আরও কয়েকটি লাইভ অনুষ্ঠান করার কথা রয়েছে।

মডেলিংও করছেন, এটা কী হঠাৎ করেই করা না ভালো লাগা থেকেই শুরু...
আসলে হঠাৎ করেই ভালোলাগা থেকে শুরু করা। আর ‘বিশ্বরঙ’এর ফটোশুট একটু বেশিই নান্দনিক। বিপ্লব সাহা দাদাও খুব ভালো মনের মানুষ। ‘বিশ^রঙ’এ কাজ করে খুবই আনন্দ পেয়েছি। এর বাইরে পত্রিকার ফিচার পাতায় সময় সুযোগ মিলে গেলে মাঝে মাঝে কাজ করি।

এত কিছু কীভাবে সামলান? উপস্থাপনা, মডেলিং, সামাজিক সংগঠনের কাজ...
আসলে সংগঠনই আমাকে তৈরি করেছে। যত ব্যস্তই থাকি না কেন, সংগঠন ছাড়া আমি চলতে পারি না। এর সঙ্গে আমার আত্মিক সম্পর্ক। বন্ধুসভা এবং ঢাকা ইউনিভার্সিটি মাইম অ্যাকশন আমার প্রাণের জায়গা। উপস্থাপনা প্যাশন থেকে এখন আমার পেশায় পরিণত হয়েছে। সুতরাং এটার পেছনেই এখন মূল সময়টা ব্যয় হয়। আর মডেলিং শখের বশে করি।

উপস্থাপনা করতে গিয়ে কখনো এমন অভিজ্ঞতা হয়েছে, প্রচণ্ড বিমর্ষ কিন্তু হাসিমুখে উপস্থাপনা চালিয়ে যেতে হচ্ছে...
এ রকম বহুবার হয়েছে। গত বছরের একটা ঘটনা বলি, আমার মা হাসপাতালে ভর্তি। তার ৪ ব্যাগ রক্তের প্রয়োজন। আমি রক্ত ম্যানেজের জন্য ফোন দিচ্ছি। ফেসবুকে স্ট্যাটাস দিচ্ছি আবার শুটিং করছি। একদিনে ৪ এপিসোড।
এক একটা এপিসোড দেড় ঘণ্টা করে। তখন এস এ টিভির রবির আবির অনুষ্ঠানটি করতাম। মানসিক অবস্থা খুব খারাপ তবুও হেসে হেসে শুটিং করতে হচ্ছে। দুই সপ্তাহ পর আম্মু সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছে। আমিও দেখে এসেছি। ওই সপ্তাহেই আবার রবির আবির অনুষ্ঠানে আমার যিনি অতিথি তিনি অনুষ্ঠানে ‘ও তোতা পাখিরে, শিকল খুলে উড়িয়ে দিব মাকে যদি এনে দাও, আমার মাকে যদি এনে দাও।’ এই গানটি গাওয়া শুরু করলেন। আমি নিজেকে সামলাতে পারিনি, কান্না শুরু করে দিয়েছি। পরে গান থামিয়ে কিছুক্ষণ অপেক্ষা করে আবার টেক নিতে হয়েছে।

জ্যামের নগরীতে সময়মতো সেটে পৌঁছানোর ঝক্কি-ঝামেলা কীভাবে ম্যানেজ করেন?
এক্ষেত্রে উবার এবং পাঠাও বাইক আমাদের জন্য আশীর্বাদস্বরূপ। আমরা যারা একাধিক টেলিভিশনে ফ্রিল্যান্স উপস্থাপক হিসেবে কাজ করি, তাদের জন্য উবার এবং পাঠাও বাইক সার্ভিস চালু হয়ে অনেক উপকার হয়েছে। একদিনে ৩টি টিভিতেও এখন অনুষ্ঠান করা যায়। তবে অবশ্যই হাতে সময় নিয়ে বের হই।

উপস্থাপক হিসেবে কাদের আদর্শ মানেন?
অনেককেই। রুবানা হকের বক্তব্য এবং কথা বলার ধরন আমার খুব ভালো লাগে। সামিয়া রহমান, নবনীতা চৌধুরী, অপি করিম, মুনমুন বাংলাদেশে এরা আমার প্রিয় উপস্থাপক। তবে আমি সবাইকে অনুসরণ করি। কাউকে অনুকরণ করার চেষ্টা করি না।

উপস্থাপনা নিয়ে আপনার স্বপ্ন...
আব্দুল্লাহ আবু সায়ীদ স্যারের কথা বলতে হয়, মানুষ তার স্বপ্নের সমান বড়। আমার স্বপ্ন অনেক বড়। এখন নিজেকে স্বপ্নের জায়গায় নিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করছি মাত্র। উপস্থাপনায় নিজের একটি ভালো অবস্থান তৈরি করতে চাই। আর তাই আমি এখন শুধু উপস্থাপনা নিয়েই থাকতে চাই, যেতে চাই বহুদূর।

যারা উপস্থাপনা করতে চান, তাদের উদ্দেশ্যে...
আমি নিজেই এখনো নতুন। তাই নতুনদের উপদেশ দেওয়ার মতো বয়স এবং যোগ্যতা কোনোটাই হয়নি আমার। তবুও যেটুকু অভিজ্ঞতা হয়েছে, তা থেকে বলতে পারি, প্রচুর বই পড়তে হবে। নিয়মিত পত্রিকা পড়া এবং অনুষ্ঠান দেখতে হবে। সবচেয়ে বেশি প্রয়োজন সুন্দর ও সাবলীল বাচনভঙ্গি ও শুদ্ধ উচ্চারণ।
এখন ছেলেমেয়েরা অনেক অ্যাডভান্স। তারা চাইলে সবই সম্ভব। শুদ্ধ উচ্চারণের ওপর একটা কোর্সও করে ফেলতে পারে। সেই সঙ্গে যোগাযোগ দক্ষতা বাড়াতে হবে। এক্ষেত্রে আমি সংগঠনে যুক্ত হওয়ার পরামর্শ দেব।