নো ওয়ে আউট

ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ১২ ডিসেম্বর ২০১৯ | ২৮ অগ্রহায়ণ ১৪২৬

নো ওয়ে আউট

বিনোদন প্রতিবেদক ৬:৩৩ অপরাহ্ণ, আগস্ট ০৯, ২০১৯

print
নো ওয়ে আউট

সকালে ঘুম থেকে উঠে সাফা কবির দেখেন তিনি অপরিচিত এক জায়গায় রয়েছেন। এই স্থানটি যেমন অপরিচিত, তেমনি সামনে দাঁড়িয়ে থাকা জোভান নামে ছেলেটিও তার অপরিচিত। কিন্তু জোভান খুব স্বাভাবিকভাবে সাফার সঙ্গে কথা বলতে থাকে।

এমনভাবে কথা বলে যেন সাফা কবির তার স্ত্রী। এজন্য সাফা জোভানকে হুমকি দিয়ে বলেন যদি তাকে বাসায় যেতে না দেওয়া হয় তবে চিল্লাচিল্লি শুরু করবে। জোভান অনেক বোঝানোর চেষ্টা করে। কিন্তু সাফা কোনো কথাই শুনতে চায় না। আর শুনবেই বা কেন সে তো জোভানকে চেনে না। পরে জোভানের বাবা-মা এসে বুঝিয়ে বলে কিন্তু সাফা জোভানের বাবা-মাকেও চেনে না।

এক পর্যায়ে জোভান অজ্ঞান হয়ে যায়। জ্ঞান ফেরার পর জোভান দেখতে পায় সে একটা রুমে পড়ে আছে। তার পায়ের সঙ্গে শিকল দিয়ে বাঁধা সুটকেস, তার ভেতর এক মেয়ের লাশ। এ দৃশ্য দেখে জোভান ভয়ে কাঁপতে থাকে আর দ্রুত পা থেকে শিকল আলাদা করার চেষ্টা করে। এমন গল্পে নির্মিত হয়েছে নাটক ‘নো ওয়ে আউট’।

নাটকটি রচনা ও পরিচালনা করেছেন ইফতেখার আহমেদ ফাহমি। অভিনয় করেছেন সাফা কবির ও ফারহান আহমেদ জোভান। ঈদের দিন রাত ১১টায় দীপ্ত টিভিতে প্রচার হবে।