অভিনেতা বাবরের পা কেটে ফেলতে হয়েছে

ঢাকা, বুধবার, ২৬ জুন ২০১৯ | ১২ আষাঢ় ১৪২৬

অভিনেতা বাবরের পা কেটে ফেলতে হয়েছে

বিনোদন ডেস্ক ৭:০৭ অপরাহ্ণ, জুন ১০, ২০১৯

print
অভিনেতা বাবরের পা কেটে ফেলতে হয়েছে

গ্যাংরিন (পায়ে পচন) সমস্যার কারণে গত ৩ এপ্রিল অপারেশনের মাধ্যমে বা পায়ের তিনটি আঙুল কেটে ফেলানো হয় অভিনেতা খলিলুর রহমান বাবরের।এই অপারেশনের পর ধারনা করা হয়েছিলো গ্যাংরিন সমস্যা আর থাকবে না। কিন্তু অপারেশনের কিছুদিন যেতেই বা পায়ে ধীরে ধীরে পচন ছড়াতে থাকে।

এরপর শনিবার (৮ জুন) যথারীতি রাজধানী গ্রীন রোডের কমফোর্ট হাসপাতালে ভর্তি হন বাবর। ঐদিনই ডাক্তার হাটু থেকে তার বা পা কেটে ফেলতে হবে বলে জানান। এরপর শনিবার দুপুর ২টায় অপারেশনের সিদ্ধান্ত হয়।

কিন্তু শারীরিকভাবে দুর্বল হয়ে যাওয়ায় ঐদিন আর অপারেশন হয়নি। পচন সমস্যা প্রকট হওয়ায় বিলম্ব করা হয়নি খুব একটা। হ্যাঁ, রোববার (৯ জুন) রাত সাড়ে ৮টায় বাবরের অপারেশন হয়। এতে তার বা পা হাটুর নিচ থেকে কেটে ফেলা হয়েছে। ডা. খালেকুজ্জামানের অধীনে এখন চিকিৎসাধীন রয়েছেন ঢাকাই সিনেমার দর্শকপ্রিয় এই অভিনেতা। তার অপারেশনের বিষয়টি জানিয়েছেন বাবর নিজেই।

অপারেশন প্রসঙ্গে বাবর আরও বলেন, ইচ্ছে থাকা সত্ত্বেও হাসপাতালে থাকতে চাই না। এক দিন থাকলেই ৫ থেকে ৭ হাজার টাকা খরচ হয়। এর আগের অপারেশনের পর বাসায় চলে গিয়েছিলাম। কিন্তু এবার বড় ধরনের অপারেশন হওয়ায় এক সপ্তাহের বেশি সময় থাকতে হচ্ছে। যাই হোক, আমার জন্য দোয়া করবেন।

বার্ধক্যজনিত নানা সমস্যার পাশাপাশি গ্যাংরিন সমস্যা প্রকট আকার ধারন করায় গত ৩০ এপ্রিল হাসপাতালে ভর্তি হন জনপ্রিয় এই অভিনেতা। দীর্ঘদিন ধরেই উচ্চ রক্তচাপ, ডায়াবেটিস, হার্ট ও ফুসফুসের সমস্যায় ভুগছেন শক্তিমান এ খল অভিনেতা।

এর আগে ২০১৭ সালের সেপ্টেম্বরে ফুসফুসের সমস্যায় আক্রান্ত হয়ে রাজধানীর ইস্কাটনের হলি ফ্যামিলি রেডক্রিসেন্ট মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসা নিয়েছিলেন ৬৮ বছর বয়সী এ অভিনেতা।

আমজাদ হোসেন পরিচালিত ‘বাংলার মুখ’ সিনেমার মাধ্যমে নায়ক হিসেবে চলচ্চিত্রে আত্মপ্রকাশ করেছিলেন বাবর। এরপর ধীরে ধীরে নিজেকে প্রতিষ্ঠিত করেন খলনায়ক হিসেবে।

এক যুগ আগে মনোয়োর হোসেন ডিপজল’র ‘তের গুণ্ডা এক পাণ্ডা’ সিনেমায় সবশেষ অভিনয় করেছিলেন বাবর। খলনায়ক হিসেবে বাবরের যাত্রা শুরু হয় নায়করাজ রাজ্জাক প্রযোজিত ও জহিরুল হক পরিচালিত ‘রংবাজ’ চলচ্চিত্রের মধ্য ‍দিয়ে। এরপর তিন শতাধিক চলচ্চিত্রে অভিনয় করেছেন তিনি।

বাবর ‘দাগী’ নামের একটি সিনেমা প্রযোজনা করেছিলেন। পরিচালনা করেছিলেন একমাত্র সিনেমা ‘দয়াবান’।