জনপ্রিয় মানেই মানসম্মত নয়

ঢাকা, শুক্রবার, ১৯ এপ্রিল ২০১৯ | ৬ বৈশাখ ১৪২৬

জনপ্রিয় মানেই মানসম্মত নয়

সাজ্জাদ হোসেন ৩:০০ অপরাহ্ণ, এপ্রিল ১৩, ২০১৯

print
জনপ্রিয় মানেই মানসম্মত নয়

বর্তমান সময়ের জনপ্রিয় মডেল ও অভিনেত্রী নাজিয়া হক অর্ষা নিজের কাজ এবং সমসাময়িক বিষয় নিয়ে কথা বলেছেন সাজ্জাদ হোসেনের সঙ্গে। এর চুম্বক অংশ খোলা কাগজের পাঠকদের উদ্দেশে তুলে ধরা হলো

মিডিয়ায় আসার আগে কেমন ছিল আপনার শৈশব-কৈশোর?
আমার জন্ম মিরপুরে। মিডিয়ায় আসার আগে খুবই সাদামাটা একটা লাইফ লিড করেছি। আমার বাবা অত্যন্ত রক্ষণশীল মানুষ ছিলেন। ফলে খুব একটা বাড়ির বাইরের অনুষ্ঠান দেখা কিংবা অংশ নেওয়া এক প্রকার অসম্ভব ছিল। স্কুল জীবনে তেমন একটা স্বাধীনতা পাইনি বললেই চলে। তবে যখন একটু বড় হলাম, কলেজে উঠলাম তখন বন্ধু-বান্ধবের সঙ্গে প্রচুর হৈ-হুল্লোড় করেছি। পরিবার থেকেও পরে স্বাধীনতা পেয়েছি। তিন বোনের মধ্যে আমি সবার বড়। বাকি দুই বোনের সঙ্গে আমার সম্পর্ক চমৎকার। পরে অবশ্য পরিবারের সেই বাঁধাধরা নিয়ম আর থাকেনি।

মিডিয়ায় শুরুটা কীভাবে?
সবাই যেটা জানে সেটাই ঠিক, লাক্স-চ্যানেল আই সুপার স্টার প্রতিযোগিতার মাধ্যমে আমার মিডিয়ায় পদার্পণ। কিন্তু সত্যি বলতে প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণের তেমন কোনো প্রস্তুতিই ছিল না আমার। এক দিন হঠাৎ পত্রিকায় বিজ্ঞাপন দেখে চুপিসারে নাম রেজিস্ট্রেশন করি। এরপরই লাক্সে আমি চতুর্থ হই। সেখান থেকে মিডিয়ায় আমার এই পথচলা। মিডিয়ায় নিয়মিত হওয়ার আগে স্টিল ফটোগ্রাফিতে মডেল হিসেবে কাজ করেছি, তারপর নাটকে কাজ শুরু করলাম। প্রথম দিকের কাজগুলোর মধ্যে ছিল আরিফ খানের ‘ক্রস অ্যাকশন’ ও ‘চাঁদ-ফুল-অমাবস্যা’, মাসুদ সেজানের ‘স্বপ্ন সহচারী’, কাফি বীরের ‘দ্বন্দ্ব’ আফজাল হোসেনের ‘আমার কথাটি ফুরাল না, ‘ফিরে ফিরে আসা’।

আপনি তো সিনেমায়ও কাজ করেছেন?
জি, গত বছরের শেষের দিকে আমার অভিনীত প্রথম সিনেমা শাহরিয়ার নাজিম জয়ের ‘অর্পিতা’ মুক্তি পেয়েছে। এর আগে আবীর শ্রেষ্ঠর ‘ফেরারি ফানুস’-এ অভিনয় করেছিলাম।

বর্তমানে কী কী কাজ করছেন?
বেশ কয়েকটি একক নাটকে কাজ করা হয়েছে, তার মধ্যে শহীদুন্নবীর নির্দেশনায় কবিতার কর্মশালা নামের এই নাটকে কাজ করেছি, এখানে আমার বিপরীতে নায়ক শ্যামল মাওলা। এরপর আবু হায়াত মাহমুদের নির্দেশনায় ২-৩টি নাটক করা হয়েছে। ‘রোমিও জুলিয়েট স্টুডিও’ নামের একটি নাটক করেছি এখানে মিশু সাব্বির আমার বিপরীতে অভিনয় করেছেন। অঞ্জন আইচের ‘আজব কর্মশালা’, ‘তুমি এবং অতঃপর’ নামের দুটি নাটক করা হয়েছে। এতে তার সহকর্মী যথাক্রমে নাঈম, আ খ ম হাসান ও সজল।

ধারাবাহিকে কাজ করছেন?
জি, বর্তমানে বেশ কয়েকটি ধারাবাহিকেও কাজ করছি। ‘আম্মা’ নামের একটি ধারাবাহিকে কাজ করেছি। তারপর এনটিভিতে সাগর জাহানের একটি ধারাবাহিক ‘বেড়ে ওঠা পাড়ার গল্পে’ কাজ করেছি।

আমাদের দেশের ধারাবাহিকের মান ভারতের চেয়ে একটু পিছিয়ে কি?
মোটেও না। আমাদের দেশের ধারাবাহিকের মান ভারতীয় সিরিয়ালের চেয়ে অনেকগুণ ভালো। আমি নিজে খুব চেষ্টা করেছি ভারতীয় সিরিয়াল দেখার কিন্তু আমি পাঁচ মিনিটও টিকতে পারিনি।

কিন্তু তাদের নাটক তো আমাদের দেশে অত্যন্ত জনপ্রিয়?
জনপ্রিয়তা এক জিনিস আর মান আরেক জিনিস। আপনি যদি জনপ্রিয়তার কথা বলেন, তাহলে বলব তারা সস্তা জনপ্রিয়তার কারণে একটি পরিবারের নেতিবাচক জিনিস দেখাচ্ছে। সেখানে নেই কোনো ভালো কাহিনী, নেই কোনো শিল্প। আমি মনে করি না আমাদের সময়কার ছেলেমেয়েরা এসব দেখে। তবে এটা সত্যি তাদের একটি শ্রেণি আছে আমাদের আগের প্রজন্মে কিন্তু আমাদের ধারাবাহিক যেভাবে ভালো করছে তাতে অল্প দিনেই আমাদের নাটক মান এবং জনপ্রিয়তা দুটাই বেটার করবে আশা করি।