চায়ের আড্ডা

ঢাকা, রবিবার, ২৬ জানুয়ারি ২০২০ | ১৩ মাঘ ১৪২৬

চায়ের আড্ডা

আসমান আলী ২:৪০ অপরাহ্ণ, ডিসেম্বর ১২, ২০১৯

print
চায়ের আড্ডা

যেমনই হোক না কেন, বাঙালিদের ওই একটা কথাতেই সব কিছুর সমাধান, ‘দাঁড়ান এক কাপ চা নিয়ে আসি’। আমাদের মতে, একে বাংলার জাতীয় সম্ভাষণ বললে মোটেই অত্যুক্তি হয় না। বাঙালি গেরস্থালিতে আতিথ্য গ্রহণ করলে, সাধারণভাবে প্রথমেই যেটা সামনে হাজির হয়, তা হাল্কা খাবারের সঙ্গে এক কাপ চা। সরকারি বৈঠক থেকে বাণিজ্যিক অধিবেশন, চা ছাড়া সব কেমন যেন ফিকে।

আর ঘণ্টার পর ঘণ্টা চলতে থাকা আড্ডায় মাটির কাপে চা একটি ব্যতিক্রমধর্মী আয়োজন! তেমনি একটি ব্যতিক্রমধর্মী আয়োজন গত শুক্রবার সন্ধ্যায় কুষ্টিয়ার ভেড়ামারা উত্তর রেলগেটের রাজুর চা স্টলে মাটির কাপে চায়ের আড্ডা অনুষ্ঠিত হয়।

দৈনিক খোলা কাগজ পাঠক ফোরাম এগারজন’র ভেড়ামারা উপজেলা কমিটি ও ভেড়ামারার স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন সূর্যোদয়ের প্রধান সমন্বয়কারী শ্রী বিধান কুমার কুণ্ডুর যৌথ আয়োজনে উক্ত আড্ডায় যোগ দেন, ভেড়ামারার বিশিষ্ট শিল্পপতি মনি গ্রুপের চেয়ারম্যান মনিরুল ইসলাম মনি, ভেড়ামারা প্রেস ক্লাবের যুগ্ম আহ্বায়ক খোলা কাগজের ভেড়ামারা প্রতিনিধি এসএম আবু ওবাইদা-আল-মাহাদী, এগারজন’র উপদেষ্টা উপজেলা মহিলা সংস্থার সমন্বয়কারী আসমান আলী, সভাপতি তাহের মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক রফিকুল ইসলাম, সহসভাপতি ধুবইল মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক শামসুল হক, সদস্য দেলবার হোসেন, সাইফুল ইসলাম, শহিদুল ইসলাম, রাজন, তাপস, নাহিদ, সোহাগ প্রমুখ।

শ্রী বিধান কুমার কুণ্ডু জানান, ‘কাগজ, প্লাস্টিক, কাচে সবসময় মানুষ চা খেতে পছন্দ করে না। তাই চিন্তা করলাম মাটির ভাঁড়ের চা খাওয়ার একটি আড্ডা করলে মন্দ হয় না। কারণ এই মাটির ভাঁড়ের চায়ে পোড়া মাটির একটি গন্ধ আছে।’

এগারজন’র উপজেলার প্রধান সমন্বয়কারী সাংবাদিক আল-মাহাদী বলেন, মাটির সঙ্গে বাংলা ও বাঙালির আদিম সম্পর্ক তো আছে। আর তার সঙ্গে মাটির ভাঁড়ে চা, আহ কী বলব! মাটির ভাঁড়ের চায়ের গুণগান শোনা গেল স্থানীয়দের মুখেও।

উপদেষ্টা, এগারজন
ভেড়ামারা, কুষ্টিয়া।