পথশিশুর আত্মকথন

ঢাকা, সোমবার, ১৯ আগস্ট ২০১৯ | ৪ ভাদ্র ১৪২৬

পথশিশুর আত্মকথন

জোবাইদা আক্তার রিয়া ৭:০৬ অপরাহ্ণ, আগস্ট ০১, ২০১৯

print
পথশিশুর আত্মকথন

আমার আর্তনাদের অশ্রু শুকিয়ে যায় গ-দেশেই, মহাসড়কের ধুলিকণার সঙ্গে। আমার ছোট্ট কোমল হাত রুক্ষ হয় কর্কশ পাথরে। আমি অভুক্ত বসে বসে দেখি হাই হিলের ছুটোছুটি, কিংবা ওই ধুলো উড়িয়ে ছুটে চলা লাল নীল কার। আমি জানি না লজ্জা কি। অভুক্ত দেহ মানে না এইসব বিশেষণ।

হাত বাড়িয়ে দেই তোমাদের ওই জমকালো পার্সের দিকে, কিংবা দুর্বল স্বরেই বলতে যাই অসহায়ত্ব। বিনিময়ে এক রাশ ঘৃণা আর অবজ্ঞা আমায় ছুড়ে ফেলে আবারো সেই ইট পাথরে। আমি আবারো বসে থাকি একখানা ছেঁড়া চটে। আমার সঙ্গী হয় আরও কিছু অভুক্ত কুকুর। আমার অশ্রু আর ধুলো শুকানো মুখে হয়তো বা কিছু মাধুর্য খুঁজে পেয়ে, বন্দি করো তোমার কৃত্রিম ক্যামেরায়। ক্যাপশনে ফুটিয়ে তোলো মহত্ত্বের দৃষ্টান্ত। চরিতার্থ হয় তোমার কামনা। তুমি হও মানব দরদি।

আর আমি তখনো কংক্রিটের সড়কে বসে। ধিক্কার দেই তোমার এই মানবতার। শুকনো মুখে এক দলা থুথু জমিয়ে নিক্ষেপ করি তোমার নোংরা মানবতায়।

সদস্য
এগারজন, চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়।