বাকৃবিতে ফিরতে চান সেই ভিসি, শিক্ষার্থীদের ‘না’

ঢাকা, শনিবার, ১৯ অক্টোবর ২০১৯ | ৩ কার্তিক ১৪২৬

বাকৃবিতে ফিরতে চান সেই ভিসি, শিক্ষার্থীদের ‘না’

ছাইফুল ইসলাম মাছুম ১০:২২ অপরাহ্ণ, অক্টোবর ০১, ২০১৯

print
বাকৃবিতে ফিরতে চান সেই ভিসি, শিক্ষার্থীদের ‘না’

গোপালগঞ্জের বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের সদ্য পদত্যাগী উপাচার্য অধ্যাপক খোন্দকার নাসিরউদ্দিন তার আগের কর্মস্থল বাংলাদেশ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের (বাকৃবি) ফিরতে চান।

বায়োটেকনোলজি বিভাগে যোগদানের জন্য আবেদনও করেছেন তিনি, এমন তথ্য জানিয়েছেন বিভাগীয় প্রধান অধ্যাপক ড. শহিদুল ইসলাম। এতে কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা মিশ্র প্রতিক্রিয়া জানিয়েছে। বিশ্ববিদ্যালয়ের একাধিক শিক্ষার্থী খোলা কাগজকে বলেছেন, তারা চান না, দুর্নীতির অভিযোগে অভিযুক্ত নাসিরউদ্দিন শিক্ষক হিসেবে তাদের ক্যাম্পাসে ফিরুক।

বঙ্গবন্ধু প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের আইন বিভাগের শিক্ষার্থী ফাতেমা-তুজ-জিনিয়ার বহিষ্কারাদেশ প্রত্যাহার ও ভিসি খোন্দকার নাসিরউদ্দিনের শাস্তির দাবিতে মানববন্ধন, সমাবেশসহ একাধিক কর্মসূচি পালন করেন বাংলাদেশ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয় (বাকৃবি) সাংবাদিক সমিতি।

নাম প্রকাশ না করা শর্তে বাকৃবির এক ক্যাম্পাস সাংবাদিক বলেন, তার (অধ্যাপক নাসির) বিরুদ্ধে দুর্নীতি, শিক্ষার্থীদের সঙ্গে স্বৈরাচারী আচরণ, এমনকি নারী কেলেঙ্কারির ঘটনাও আছে। আমরা কখনই চাই না এ ধরনের একজন শিক্ষক এই বিশ্ববিদ্যালয়ে আসুক।

এ বিষয়ে বাংলাদেশ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয় সাংবাদিক সমিতির সাংগঠনিক সম্পাদক আবুল বাশার মিরাজ খোলা কাগজকে বলেন, খোন্দকার নাসিরউদ্দিন যোগদানের আবেদন করেছেন, এখনো ক্যাম্পাসে ফিরেননি। এতেই শিক্ষার্থীদের মাঝে বিরূপ প্রতিক্রিয়া সৃষ্টি হয়েছে। একজন সাধারণ শিক্ষার্থী হিসেবে আমি নিজেও চাই না, তিনি আমাদের ক্যাম্পাসে আসুক। তিনি বলেন, বঙ্গবন্ধু প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় থেকে যে ঘটনার জন্য তিনি পদত্যাগে বাধ্য হয়েছেন, এটা বাংলাদেশের সবাই জানে। তার দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি আমরা চাই।

এ দিকে এই ইস্যুতে সোশ্যাল মিডিয়ায়ও সোচ্চার হয়েছেন বাকৃবির শিক্ষার্থীরা। আল-আমিন নামের একজন তার ফেসবুকে লিখেছেন, উনি (খোন্দকার নাসিরউদ্দিন) উনার মান-সম্মান সম্পূর্ণটাই বিসর্জন দিয়ে এসেছেন। এখন বাকৃবিতে এসে এখনকার সুনাম, মান সম্মান নষ্ট করার পাঁয়তারা করছেন। বাকৃবির মান সম্মানের স্বার্থে তাকে দ্রুত বিশ্ববিদ্যালয় থেকে অব্যাহতি দেওয়া হোক।

এদিকে সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে, যোগদান করতে এসেই ছুটির আবেদন করেছেন সদ্য সাবেক ভিসি খোন্দকার নাসিরউদ্দিন। বাকৃবির বায়োটেকনোলজি বিভাগের বিভাগীয় প্রধান অধ্যাপক ড. শহিদুল ইসলাম এ বিষয়ে গণমাধ্যমকে বলেন, আগামী ২ ও ৩ অক্টোবর ছুটির জন্য আবেদন করেছেন তিনি। ছুটির এ চিঠিটি কৃষি অনুষদের ডিন বরাবর পাঠিয়েছি।

উল্লেখ্য, শিক্ষার্থীদের দীর্ঘ ১২ দিনের আন্দোলনের পর পদত্যাগ করেন বঙ্গবন্ধু প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য প্রফেসর ড. খোন্দকার নাসিরউদ্দিন। এর পরদিনই তিনি তার পূর্বের কর্মস্থলে যোগদানের জন্য আবেদন করেন।