বাসস্ট্যান্ড উচ্ছেদ চান জবির শিক্ষার্থীরা

ঢাকা, রবিবার, ২৫ সেপ্টেম্বর ২০২২ | ১০ আশ্বিন ১৪২৯

Khola Kagoj BD
Khule Dey Apnar chokh

উপাচার্যকে বরাবর স্মারকলিপি

বাসস্ট্যান্ড উচ্ছেদ চান জবির শিক্ষার্থীরা

জবি প্রতিনিধি
🕐 ৬:০৫ অপরাহ্ণ, সেপ্টেম্বর ২২, ২০২২

বাসস্ট্যান্ড উচ্ছেদ চান জবির শিক্ষার্থীরা

জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের (জবি) সামনের অবৈধ বাস, লেগুনা স্ট্যান্ড উচ্ছেদে ও প্রধান ফটকের সামনে গতিরোধক বসানোর দাবিতে উপাচার্যকে স্মারকলিপি দিয়েছে বিশ্ববিদ্যালয়টির শিক্ষার্থীরা।

বৃহস্পতিবার (২২ সেপ্টেম্বর) দুপুরে সাধারণ শিক্ষার্থীদের পক্ষ থেকে মিঠুন বাড়ৈ এই স্মারকলিপি প্রদান করেন। এসময় সাধারণ শিক্ষার্থীরা উপস্থিত ছিলেন।

স্মারকলিপিতে বলা হয়েছে, জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রধান ফটকসহ ২ নং ও ৩নং গেইটের সামনে অবৈধ বাস ও লেগুনা স্ট্যান্ড রয়েছে। আমরা সবাই অবগত যে, গত ১৮ই সেপ্টেম্বর প্রধান ফটকের সামনে ঘাতক সাভার পরিবহন কর্তৃক বাস চাপায় একজন নিহত ও দুইজন ২জন মারাত্বকভাবে আহত হয়। বিগত দিনে বাস ও লেগুনা স্ট্যান্ডে অগণিতবার বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা দূর্ঘটনা, ছিনতাই, শারীরিকভাবে হেনস্থা ও ইভটিজিং এর শিকার হয়েছে। এসব ঘটনা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক,শিক্ষার্থী,কর্মকর্তা ও কর্মচারীদের নিরাপত্তার সর্বোচ্চ হুমকি।

বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রধান ফটকের সামনে রাস্তার প্রত্যেক পার্শ্বে চারটি করে মোট আটটি গতিরোধক তৈরি করা অতিব জরুরী।

এছাড়াও শিক্ষার্থীদের নিরাপত্তা, স্বার্থ অধিকার ও সমস্যার কথা বিবেচনা করে দাবিগুলো বাস্তবায়ন করতে অনতিবিলম্বে যথাযথ পদক্ষেপ গ্রহণ করার কথা বলা হয়েছে।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে মিঠুন বাড়ৈ বলেন, 'আপনারা জানেন যে ১৮ তারিখে বিশ্ববিদ্যালয়ের একদম মেইন গেটের সামনে সাভার পরিবহন কর্তৃক বাস চাপায় একজন নিহত ও দুইজন মারাত্মকভাবে আহত হয়েছে যেটা জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের সকল শিক্ষার্থী, শিক্ষক কর্মকর্তা-কর্মচারীদের জন্য মারাত্মক হুমকি স্বরূপ। বর্তমানে যে অবস্থা মেইন গেট ও ৩নং নাম্বার গেটের তাতে নিশ্চিত ভাবে বলা যায় যে কোন মুহূর্তে শিক্ষার্থীদের প্রাণহানি ঘটবে। অতএব শিক্ষার্থীদের নিরাপত্তা, অধিকার রক্ষায় অনতি বিলম্বে অবৈধ স্ট্যান্ড উচ্ছেদ ও রাস্তায় গতিরোধক নির্মাণ করতে হবে।এটা জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের সকল শিক্ষার্থীদের অধিকারও প্রাণের দাবি।এর কোন বিকল্প নেই।'

এবিষয়ে জানতে চাইলে বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. মো. ইমদাদুল হক বলেন, বিষয়টি নিয়ে মিটিংয়ে আমরা কথা বলব। পুলিশ প্রশাসন সহ সংশ্লিষ্ট সবার সাথে কথা বলব।

 
Electronic Paper