মাভাবিপ্রবির ধ্রুবতারায় নতুন নের্তৃত্বে ইসতিয়াক-তানভীর

ঢাকা, রবিবার, ২৫ সেপ্টেম্বর ২০২২ | ১০ আশ্বিন ১৪২৯

Khola Kagoj BD
Khule Dey Apnar chokh

মাভাবিপ্রবির ধ্রুবতারায় নতুন নের্তৃত্বে ইসতিয়াক-তানভীর

নিজস্ব প্রতিবেদক
🕐 ৫:০৭ অপরাহ্ণ, সেপ্টেম্বর ২১, ২০২২

মাভাবিপ্রবির ধ্রুবতারায় নতুন নের্তৃত্বে ইসতিয়াক-তানভীর

মাওলানা ভাসানী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের সাংস্কৃতিক চর্চার সবচেয়ে পুরোনো এবং বিশ্ববিদ্যালয়ের ক্যাম্পাসে সবচেয়ে সুপরিচিত সাংস্কৃতিক সংগঠন "ধ্রুবতারা"র ১১তম কার্য নির্বাহী কমিটি প্রকাশ করা হয়েছে।

১১তম কমিটিতে সভাপতি হিসেবে টেক্সটাইল ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের জাহিদ আল ইসতিয়াক এবং সাধারণ সম্পাদক তানভীর আহমেদ নির্বাচিত হন।

গত ২০ সেপ্টেম্বর সন্ধ্যায় সংগঠনটি নবীনবরণ ও বিদায় অনুষ্ঠান এবং সাংস্কৃতিক সন্ধ্যার আয়োজন করে। অনুষ্ঠান শেষে আগামী ২ সেমিস্টারের জন্য কমিটি ঘোষনা করেন সংগঠনটির পূর্বের (১০ম কার্যনির্বাহী) কমিটির সভাপতি রবিউল ইসলাম ও সাধারণ সম্পাদক বিজয় সাহা। এ সময় টেক্সটাইল ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক মাহবুবুর রহমান মিঠু উপস্থিত ছিলেন।

সংগঠনটির নব নির্বাচিত সভাপতি খোলা কাগজকে জানান, বিশ্ববিদ্যালয়ের সবচেয়ে প্রাচীন সংগঠনের সভাপতির মত গুরু দায়িত্ব পাওয়ায় মানেই চাপটা একটু বেড়ে গেল। বিশ্ববিদ্যালয়ের নানান কর্মসূচিতে সরাসরি যুক্ত থাকার চেষ্টা করে ধ্রুবতারা এবং সারা বছর আমরা সাংস্কৃতিক চর্চা ও সামাজ কল্যান কাজে যুক্ত থাকি। সদস্যদের লক্ষ্য হলো ‘ধ্রুবতারা’ সংগঠনকে ক্যাম্পাসে সবার মধ্যে ছড়িয়ে দেয়া এবং সেই সাথে বিশ্ববিদ্যালয়ে স্বদেশী সংস্কৃতি চর্চা অব্যাহত রাখা। আমি আশা করব সাংস্কৃতিক আন্দোলনকে বেগবান করার লক্ষ্যে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন আমাদের সহযোগীতা করবে।

নব নির্বাচিত সাধারণ সম্পাদক খোলা কাগজকে বলেন, করোনা মহামারির পর আমাদের অপসংস্কৃতি রুখে দিতে ও বিশ্ববিদ্যালয়ে সাংস্কৃতিক চর্চা অব্যাহত রাখতে ধ্রুবতারা পূর্বের ন্যায় অগ্রনী ভূমিকা পালন করবে।ধ্রুবতারার মতো সংগঠনগুলো যে কোন বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রাণ। এই সংগঠনগুলোর অন্যতম দায়িত্ব হলো দেশীয় সংস্কৃতি চর্চা নিশ্চিত করা।

করোনা পরবর্তী সময়ে আমরা নানা ধরনের সমস্যার সম্মুখীন হয়েছি। দীর্ঘদিন বিশ্ববিদ্যালয় বন্ধ থাকায় আমাদের সংগঠনের ঘর এবং বিভিন্ন যন্ত্রাংশ ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে এসময়ে। আমরা চেষ্টা করবো সবাই মিলে আমাদের সংগঠনকে পুনরায় নতুন করে গুছিয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের অপরিহার্য অংশ হিসেবে নিজেদের পরিচয় বহাল রাখতে।

স্থায়ী কমিটির সদস্য এবং বিশ্ববিদ্যালয়ের উপদেষ্টাদের সর্বসম্মতি ক্রমে ২৯ জন সম্পাদক ও ২২ সদস্য নিয়ে মোট ৫১ জনের কমিটি ঘোষনা করা হয়। কমিটির অন্যারা হলেন, সহ সভাপতি- জাহিদ হাসান (টিই) (২০১৭-১৮), সহ সভাপতি- সাদিয়া তাবাস্সুম তিথী (সিপিএস) (১৭-১৮), সহ সভাপতি- সৈয়দা সাদিয়া আক্তার আঁখি (বিজিই) (১৭-১৮), সহ সভাপতি- ছোয়া দাস (রসায়ন) (১৭-১৮), যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক- আশিকুর রহমান লিপু (টিই) (১৭-১৮), যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক- মোঃ নাজমুল ইসলাম ফকির (সিপিএস) (১৭-১৮), সাংগঠনিক সম্পাদক- প্রত্যয় চৌধুরী (বিজিই) (১৮-১৯), সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক- অনুরাধা রায় প্রিয় (পদার্থ) (১৮-১৯), সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক-আল রায়হান (টিই) (১৮-১৯), প্রচার ও প্রচারণা বিষয়ক সম্পাদক- আবু হানিফ (টিই) (১৮-১৯), যুগ্ম-প্রচার ও প্রচারণা বিষয়ক সম্পাদক- সাদিয়া হক পূর্বা (পদার্থ) (১৮-১৯), অর্থ বিষয়ক সম্পাদক- মিথিলা রায় স্বর্ণা (পদার্থ বিজ্ঞান) (১৮-১৯), দপ্তর সম্পাদক নাহিদুল কবির পূর্ন (বিবিএ) (১৮-১৯), নারী বিষয়ক সম্পাদক- আফরিনা সামিনী (বিবিএ) (১৮-১৯) প্রমুখ।

উল্লেখ্য, সংগঠনটি ২০১০ সালে প্রতিষ্ঠান পর থেকে বিশ্ববিদ্যালয়টিতে সাংস্কৃতিক কর্মকান্ড এবং সামাজিক সমস্যা নিয়ে কাজ করছে। ইতোমধ্যে বেশ সুনামও কুড়িয়েছে। দেয়াল পত্রিকা, নাচ, গান, আবৃতি, চিত্রাঙ্কন, সাজসজ্জা ইত্যাদির প্রশিক্ষণ ও চর্চা নিয়ে কাজ করছে সংগঠনটি। বিশ্ববিদ্যালয়ে বিভিন্ন দিবস, বিভিন্ন কবি সাহিত্যক এর জন্ম মৃত্যু সহ বিভিন্ন দিবসে এই সংগঠনটির কর্মকান্ড লক্ষ্যনীয়।

 

 
Electronic Paper