এসএসসি পরীক্ষার প্রস্তুতি

ঢাকা, শুক্রবার, ২২ নভেম্বর ২০১৯ | ৮ অগ্রহায়ণ ১৪২৬

বিজ্ঞান

এসএসসি পরীক্ষার প্রস্তুতি

সরোয়ার হোসেন ৩:০৪ অপরাহ্ণ, অক্টোবর ১৩, ২০১৯

print
এসএসসি পরীক্ষার প্রস্তুতি

প্রশ্ন : জিন কী?
উত্তর : জীবের বৈশিষ্ট্য নিয়ন্ত্রণকারী একককে জিন বলে। জিন হলো ক্রোমোজমে অবস্থিত DNA।
প্রশ্ন : মিয়োসিসকে হ্রাসমূলক বিভাজন বলা হয় কেন? বুঝিয়ে লেখো।
উত্তর : মিয়োসিস কোষ বিভাজনে মাতৃকোষের নিউক্লিয়াসটি দুইবার ও ক্রোমোজম একবার বিভক্ত হয়। ফলে অপত্য কোষে ক্রোমোজমের সংখ্যা অর্ধেক হয়ে যায়। এ বিভাজনে ক্রোমোজমের সংখ্যা অর্ধেক হ্রাস পায় বলে মিয়োসিসকে হ্রাসমূলক বিভাজন বলা হয়।

প্রশ্ন : ক্যারিওকাইনেসিস কী?
উত্তর : নিউক্লিয়াসের বিভাজনকে ক্যারিওকাইনেসিস বলে।
প্রশ্ন : মিয়োসিস কেন হয়?
উত্তর : যৌনজননে পুং ও স্ত্রীজনন কোষের মিলনের প্রয়োজন পড়ে। যদি জননকোষগুলোর ক্রোমোজম সংখ্যা দেহকোষের সমান থেকে যায় তাহলে জাইগোট কোষে জীবটির ক্রোমোজম দেহকোষের ক্রোমোজম সংখ্যার দ্বিগুণ হয়ে যাবে। মিয়োসিস কোষ বিভাজনে জননকোষে ক্রোমোজম সংখ্যা মাতৃকোষের ক্রোমোজম সংখ্যার অর্ধেক হয়ে যায়। ফলে দুটি জননকোষ একত্র হয়ে যে জাইগোট গঠন করে তার ক্রোমোজম প্রজাতির ক্রোমোজম সংখ্যার অনুরূপ থাকে। এতে নির্দিষ্ট প্রজাতির ক্রোমোজম সংখ্যার ধ্রুবতা বজায় থাকে। এ জন্য মিয়োসিস হয়।
প্রশ্ন : জিনতত্ত্বের জনক কে?
উত্তর : জিনতত্ত্বের জনক হলেন গ্রেগর জোহান মেন্ডেল।
প্রশ্ন : বংশগতি বলতে কী বোঝো? ব্যাখ্যা করো।
উত্তর : মাতা-পিতার বৈশিষ্ট্য যে প্রক্রিয়ায় সন্তান-সন্ততিতে সঞ্চারিত হয়, তাকে বংশগতি বলে। সন্তানরা মাতা-পিতার যেসব বৈশিষ্ট্য পায়, সেগুলোকে বংশগত বৈশিষ্ট্য বলে। যেমন- চোখের রং, চুলের প্রকৃতি, চামড়ার রং ইত্যাদি তার মাতা-পিতা থেকে পেয়ে থাকে।
প্রশ্ন : মিয়োসিস কী?
উত্তর : ক. কোষ বিভাজনে মাতৃকোষের নিউক্লিয়াস দুবার ও ক্রোমোজম একবার বিভক্ত হয়। ফলে অপত্য কোষে ক্রোমোজমের সংখ্যা অর্ধেক হয়ে যায়, তাকে মিয়োসিস বলে।
প্রশ্ন : ইন্টারফেজ বলতে কী বোঝায়?
উত্তর : ক্যারিওকাইনেসিস ও সাইটোকাইনেসিস শুরু হওয়ার আগে কোষটির নিউক্লিয়াসকে কিছু প্রস্তুতিমূলক কাজ করতে হয়। কোষটির এ অবস্থাকে ইন্টারফেজ বলে।

সরোয়ার হোসেন
সিনিয়র শিক্ষক, একেএম রহমত উল্লাহ কলেজ ঢাকা।