পঞ্চম শ্রেণির শিক্ষার্থীদের প্রস্তুতি

ঢাকা, রবিবার, ২২ সেপ্টেম্বর ২০১৯ | ৬ আশ্বিন ১৪২৬

পঞ্চম শ্রেণির শিক্ষার্থীদের প্রস্তুতি

বিজ্ঞান

ফাতেমা বেগম ২:৩৬ অপরাহ্ণ, জুলাই ০৮, ২০১৯

print
পঞ্চম শ্রেণির শিক্ষার্থীদের প্রস্তুতি

‘শখের মৃৎশিল্প’
মাটির তৈরি শিল্পকর্মকে আমরা বলি মাটির শিল্প বা মৃৎশিল্প। এ শিল্পের প্রধান উপকরণ হল মাটি। তবে সব মাটি দিয়ে এ কাজ হয় না। দরকার পরিষ্কার এঁটেল মাটি। এ ধরনের মাটি বেশ আঠাল। দোঁআশ মাটি তেমন আঠাল নয়।

আর বেলে মাটি তো ঝরঝরে- তাই এগুলো দিয়ে মাটির শিল্প হয় না। এঁটেল মাটি হলেই যে তা দিয়ে শিল্পের কাজ করা যাবে তাও নয়। এজন্য অনেক যত্ন আর শ্রম দরকার। দরকার হাতের নৈপুণ্য ও কারিগরি জ্ঞান। কুমারদের কাছে এসব খুব সহজ। কারণ তারা বংশ পরম্পরায় এ কাজ করে আসছে।

ক) মৃৎশিল্প বলতে কী বোঝ?
খ) মৃৎশিল্পের উপকরণ সম্পর্কে পাঁচটি বাক্য লিখ।
গ) মৃৎশিল্পের জন্য হাতের নৈপুণ্য ও কারিগরি জ্ঞান প্রয়োজন হয় কেন?
উত্তর : ক) মাটি দিয়ে তৈরি বিভিন্ন শিল্পকর্মকে মাটির শিল্প বা মৃৎশিল্প বলে।
মৃৎশিল্প বাংলার প্রাচীন শিল্পকর্ম। এর প্রধান উপকরণ হল মাটি। পরিষ্কার এঁটেল মাটি দিয়ে দক্ষ হাতের নিপুণ ব্যবহারে যে শিল্পকর্ম তৈরি হয় তাকেই মৃৎশিল্প বলে। মাটির তৈরি শখের হাঁড়ি, টেরাকোটা, পুতুল, মাছ, পেয়ালা, সুরাই, ফুলদানি- এ সবই মৃৎশিল্পের নিদর্শন।

উত্তর : খ) মৃৎশিল্প তৈরিতে নানা ধরনের উপকরণ ব্যবহৃত হয়।
মৃৎশিল্পের প্রধান উপকরণ মাটি, তবে সব ধরনের মাটি দিয়ে এ কাজ হয় না। এর জন্য দরকার পরিষ্কার এঁটেল মাটি।
এ ছাড়া কাঠের চাকা, চুলা, ছোটখাটো কিছু যন্ত্রপাতি ও সরঞ্জাম এ কাজে ব্যবহৃত হয়। এসবের পাশাপাশি কুমারদের হাতের নৈপুণ্য ও কারিগরি দক্ষতাও সমান গুরুত্বপূর্ণ। মৃৎশিল্প তৈরিতে এর কারিগরদের অনেক যত্ন ও শ্রমের দরকার হয়।

উত্তর : গ) মৃৎশিল্পের জন্য হাতের নৈপুণ্য ও কারিগরি জ্ঞান প্রয়োজন হয় কারণ এর জন্য সৌন্দর্য ও কারুকার্য উভয়ই সমান গুরুত্বপূর্ণ।
বাংলার অতি প্রাচীন শিল্প হল মৃৎশিল্প।
এর প্রধান উপকরণ পরিষ্কার এঁটেল মাটি। কুমার সম্প্রদায় যুগ যুগ ধরে এ ধরনের মাটি দিয়ে বিভিন্ন তৈজসপত্র ও ঘর সাজানোর উপকরণ তৈরি করেন। এ কাজের মধ্যে শৈল্পিক ছোঁয়া থাকে। মানুষের প্রয়োজন মেটানোর পাশাপাশি এগুলো সৌন্দর্য বৃদ্ধি করে।
তাই এর কাজের জন্য নিপুণ হাতের দক্ষতার দরকার হয়। হঠাৎ করে যে কোনো কেউ-ই এ মৃৎশিল্পের কাজ করতে পারে না। কারণ মৃৎশিল্পের প্রধান বৈশিষ্ট্যই হল এর শৈল্পিক সৌন্দর্য।

ফাতেমা বেগম
সিনিয়র শিক্ষক
বর্ণমালা আদর্শ স্কুল অ্যান্ড কলেজ, ঢাকা।