বিনিয়োগ খাতে উন্নতি

ঢাকা, শুক্রবার, ১৪ ডিসেম্বর ২০১৮ | ২৯ অগ্রহায়ণ ১৪২৫

বিনিয়োগ খাতে উন্নতি

দৃশ্যমান ভূমিকা কাম্য

সম্পাদকীয়-২ ৯:৪৯ অপরাহ্ণ, অক্টোবর ১০, ২০১৮

print
বিনিয়োগ খাতে উন্নতি

বিনিয়োগ একটি দেশের অর্থনীতির জন্য খুব গুরুত্বপূর্ণ একটি অনুষঙ্গ হলেও বাংলাদেশে বিনিয়োগ করাকে মোটেও গুরুত্বের সঙ্গে দেখা হয় না। ভাবখানা এ ক্ষেত্রে এমন, কেউ বিনিয়োগ করলে করুক সেটি দেখা হবে কিন্তু সহযোগিতা করা হবে কিনা তার কোনো নিশ্চয়তা নেই।

এমনই অবহেলায় চলছে বিনিয়োগ খাতের কার্যক্রম। এ ক্ষেত্রে যে অবহেলা করা হচ্ছে, তা কেউ যেন দেখার নেই। সরকার একদিকে বিনিয়োগকে উৎসাহিত করছে, কিন্তু অন্যদিকে নিয়ন্ত্রক সংস্থাগুলো তাদের অবস্থান থেকে যথাযথভাবে মনিটরিংয়ের কাজও করছে না। এমনকি শুরুর দিকে বিনিয়োগ করা কোম্পানিগুলোর নিবন্ধনের ক্ষেত্রেও অবহেলা করা হচ্ছে। সরকারের কাছে বিনিয়োগ খাতে প্রকৃত নিবন্ধনের হিসাবও নেই।

খোলা কাগজে প্রকাশিত প্রতিবেদন থেকে জানা যায়, বিনিয়োগ বোর্ড থেকে আলাদা করে ২০১৬ সালে গঠন করা হয় বাংলাদেশ বিনিয়োগ উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ (বিডা)। বেসরকারি খাতকে বেগবান করতে এবং দেশি-বিদেশি বিনিয়োগকে আকৃষ্ট করতে যাত্রা শুরু হয় সংস্থাটির। কিন্তু দেশে কি পরিমাণ বিনিয়োগ হচ্ছে সেটার কোনো সঠিক তথ্য নেই বিডার কাছে। প্রাথমিক নিবন্ধন ও প্রকৃত বিনিয়োগের আন্দাজনির্ভর তথ্য দিয়ে চলছে সংস্থাটি।

স্থানীয় ক্ষেত্রে প্রকৃত বিনিয়োগের কোনো তথ্য নেই বিনিয়োগ কর্তৃপক্ষের কাছে। তাদের কাছে প্রকৃত বিনিয়োগের তথ্য চাওয়া হলে বিনিয়োগ উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ (বিআইডিএ) গত এক মাসেও কোনো তথ্য দিতে পারেনি। গত ৩০ আগস্ট লিখিত আবেদন করার পর গত মঙ্গলবার বিডা জানায়, স্থানীয় বিনিয়োগের ক্ষেত্রে তাদের কাছে প্রকৃত তথ্য নেই।

বিনিয়োগ খাতকে এভাবে অবহেলা করা মোটেও ঠিক হচ্ছে না। অন্ততপক্ষে বিনিয়োগের তথ্যটুকুও হালনাগাদ করা উচিত। কেননা এর ফলে দেশে বিনিয়োগের সর্বশেষ অবস্থান জেনে যথোপযুক্ত ভূমিকা গ্রহণ করা সম্ভব হবে। বেকারত্ব নির্মূলসহ দেশের সামগ্রিক অর্থনীতির চাকা সচল রাখার জন্য সরকারকে অবশ্যই বিনিয়োগ খাতকে গুরুত্ব দিয়ে এ খাতের উন্নতির জন্য ভূমিকা রাখা উচিত। বাংলাদেশে বিনিয়োগ খাতে উন্নতি হবে এবং সরকার এ ক্ষেত্রে প্রয়োজনীয় ভূমিকা রাখবে, আমরা সে প্রত্যাশাই করি।