কঠোর লকডাউন ‘শিথিলতা’ কাম্য নয়

ঢাকা, সোমবার, ২৭ সেপ্টেম্বর ২০২১ | ১২ আশ্বিন ১৪২৮

Khola Kagoj BD
Khule Dey Apnar chokh

কঠোর লকডাউন ‘শিথিলতা’ কাম্য নয়

সম্পাদকীয়
🕐 ৩:১৫ অপরাহ্ণ, জুলাই ২৭, ২০২১

কঠোর লকডাউন ‘শিথিলতা’ কাম্য নয়

যে উদ্দেশ্যে নতুন করে ঈদের পর থেকে লকডাউন দিয়েছে সরকার সেটা ভেঙে পড়ছে অনেকটাই। সাধারণ মানুষের স্বেচ্ছাচারিতা ও বেপরোয়া আচরণে ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে কাক্সিক্ষত পরিস্থিতির চিত্র। গতকাল খোলা কাগজে প্রকাশিত প্রতিবেদনে বলা হয়, ঈদ পরবর্তী কঠোর লকডাউনের তৃতীয় দিনেই রাজধানীর সড়কে মানুষ ও যানবাহনের চাপ বেড়েছে। গত রোববার সকাল থেকে এ কারণে বিভিন্ন চেকপোস্টে তল্লাশিও বেড়ে যায়। অন্যদিনের তুলনায় এদিন ব্যক্তিগত মাইক্রোবাস, প্রাইভেটকার, মোটরসাইকেল ও রিকশার চলাচল বেড়েছে। অনেকেই প্রয়োজনীয় কাজ করতে গাড়ি নিয়ে বের হয়েছেন। যানবাহনগুলো কী কারণে বের হয়েছে তার জবাব চাচ্ছিলেন আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী। বিভিন্ন এলাকার প্রধান সড়ক এবং গুরুত্বপূর্ণ মোড়ে পুলিশ, র‌্যাব, বিজিবি ও সেনাবাহিনীর সদস্যরা চেকপোস্ট বসিয়ে প্রতিটি গাড়ির ড্রাইভার কিংবা ভিতরে থাকা যাত্রীকে বাইরে বের হওয়ার কারণ জিজ্ঞাসা করেন।

লকডাউনের অন্যদিনগুলোয় সকাল থেকে বৃষ্টি এবং শুক্রবার, শনিবার সাপ্তাহিক ছুটি, পাশাপাশি ঈদের ছুটিতে মানুষ বাড়ি যাওয়া রাস্তায় যানবাহন কিংবা মানুষের চলাচল কম ছিল। তবে তৃতীয়দিন বৃষ্টি না থাকা এবং ব্যাংক খোলা থাকায় যানবাহন চলাচলের চাপ বেড়ে গেছে। তবে উপযুক্ত কারণ ছাড়া কাউকে ছাড় দেওয়া হচ্ছে না বলে মতিঝিল থানার এসআই শফিকুল ইসলাম জানান। তিনি বলেন, সকাল থেকেই আমরা দায়িত্ব পালন করে যাচ্ছি মানুষকে ঘরে রাখার জন্য। চেকপোস্টে কোনো গাড়ি বা ব্যক্তিকে দেখা গেলে তার কাছে উপযুক্ত জবাব চাওয়া হচ্ছে। বেলা বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে বাইরে লোকজনের সংখ্যা বাড়ে। প্রধান সড়ক থেকে অলিগলিতে লোকজন বেশি বের হচ্ছে। তারা অকারণে ঘোরাঘুরি করছেন। এসব স্থানে পুলিশ এলে সবাই সরে যান আবার পুলিশ চলে গেলে তারা বের হয়ে ঘোরাঘুরি শুরু করেন।

অকারণে বের হওয়ায় গতকাল রাজধানীর বিভিন্ন এলাকা থেকে ৫৮৭ জনকে গ্রেফতার করেছে ঢাকা মহানগর পুলিশ (ডিএমপি)। এছাড়া ২৩৩ জনকে এক লাখ ৯৫০ টাকা জরিমানা করেছেন ভ্রাম্যমাণ আদালত। এছাড়া ট্রাফিক বিভাগ ৫২১টি গাড়ির বিরুদ্ধে জরিমানা করেছে ১২ লাখ ৭২ হাজার টাকা। গতকাল রোববার ডিএমপির (মিডিয়া অ্যান্ড পাবলিক রিলেশনস) অতিরিক্ত উপ-পুলিশ কমিশনার (এডিসি) ইফতেখায়রুল ইসলাম এ তথ্য জানিয়েছেন। পুলিশের এই কর্মকর্তা বলেন, প্রথম ধাপের লকডাউন শিথিল হওবয়র পর তৃতীয় দিনে সকাল থেকে সন্ধ্যা পর্যন্ত ডিএমপির ৮টি বিভাগের রমনা, লালবাগ, মতিঝিল, ওয়ারী, তেজগাঁও, মিরপুর, গুলশান ও উত্তরা এলাকা থেকে ৫৮৭ জনকে গ্রেফতার করা হয়েছে।

এদিকে সারা দেশে কঠোর বিধিনিষেধের তৃতীয় দিনেও শিবচরের বাংলাবাজার-শিমুলিয়া নৌরুটে থেমে নেই ফেরিতে যাত্রী পারাপার। যাত্রীবাহী পরিবহন পারাপার বন্ধ থাকলেও দক্ষিণাঞ্চলের বিভিন্ন জেলা থেকে ভেঙে ভেঙে ছোট যানবাহনে ঘাটে আসা যাত্রীরা অনেকটা গাদাগাদি করেই ফেরি পার হচ্ছেন। মানছেন না কোনো স্বাস্থ্যবিধি। সরেজমিন গত রোববার ঘাটে গিয়ে এমন দৃশ্যই চোখে পড়ে। ফেরিতে যাত্রীবাহী বাস, মাইক্রোবাস পার হতে দেওয়া না হলেও প্রাইভেটকার, অ্যাম্বুলেন্সসহ পণ্যবাহী ট্রাক ও কাভার্ডভ্যান পার হচ্ছে। কঠোর লকডাউনে শিথিলতার সুযোগ নেই। এটা জনসাধারণ হৃদয়ঙ্গম করতে সমর্থ হলে নিজেদেরই লাভ!

 
Electronic Paper