হ্যাকারদের অপতৎপরতা রোধ জরুরি

ঢাকা, শুক্রবার, ২৬ ফেব্রুয়ারি ২০২১ | ১৪ ফাল্গুন ১৪২৭

হ্যাকারদের অপতৎপরতা রোধ জরুরি

সম্পাদকীয় ১২:০৯ অপরাহ্ণ, জানুয়ারি ১৪, ২০২১

print
হ্যাকারদের অপতৎপরতা রোধ জরুরি

প্রযুক্তি হয়ে দাঁড়িয়েছে নিত্যদিনের সঙ্গী। এর সুফল পাচ্ছে সাধারণ মানুষ। বিশেষ করে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুক যোগাযোগের ক্ষেত্রে সৃষ্টি করেছে নতুন দিগন্ত। তবে এর বিপরীত চিত্রও রয়েছে। হয়রানির ঘটনাও ঘটছে মাঝে-মধ্যে। এ বিষয়ে গতকাল খোলা কাগজে প্রকাশিত প্রতিবেদনে বলা হয়, ফেসবুককে কেন্দ্র করে প্রতারক চক্রকে অভিনব প্রতারণার ফাঁদ পাততে দেখা গেছে। নিত্যনতুন পন্থা অবলম্বন করে ব্যবহারকারীদের ফাঁদে ফেলে মোটা অঙ্কের টাকা হাতিয়ে নেয় ওই চক্র। সেজন্য ফেসবুক ব্যবহারকারীদের নিরাপত্তা বিষয়ে সতর্ক হওয়ার পরামর্শ দিয়েছে পুলিশ। সম্প্রতি নারী ফেসবুক ব্যবহারকারীদের টার্গেট করে অভিনব কায়দায় প্রতারণা করছিল একটি চক্র। বিভিন্ন লোভনীয় অফার সংবলিত ফিশিং লিংক তৈরি করে নারীদের ইনবক্সে পাঠাত। লোভনীয় ওই অফারে আকৃষ্ট হয়ে যখন ব্যবহারকারীরা লিংকে ক্লিক করত, তখনই তার ফেসবুক আইডিতে প্রতারক চক্রের নিয়ন্ত্রণে চলে যেত।

জাল ফাঁদার পর প্রতারক চক্ররা হ্যাক করা ফেসবুক আইডির তালিকায় থাকা বন্ধুদের মেসেঞ্জারে নক করে বিভিন্ন অজুহাতে টাকা ধার চাইত এবং টাকা পাঠানোর জন্য নিজের বিকাশ নম্বর দিত। এভাবেই ভুক্তভোগীদের কাছ থেকে মোটা অঙ্কের টাকা হাতিয়ে নিত। ভুক্তভোগীদের অভিযোগের ভিত্তিতে প্রতারক চক্রের সন্ধানে মাঠে নামে ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের (ডিএমপি) গোয়েন্দা সাইবার অ্যান্ড স্পেশাল ক্রাইম বিভাগ। এরই ধারাবাহিকতায় গত রোববার অভিযান চালিয়ে চক্রটির এক সদস্যকে গ্রেফতার করা হয়। ঠাকুরগাঁও জেলার রানীশংকৈল থানা এলাকা থেকে চক্রটির এক সদস্যকে গ্রেফতার করা হয়। তার কাছ থেকে ফেসবুক হ্যাকিংয়ের কাজে ব্যবহৃত একটি কম্পিউটার, বিকাশে টাকা সংগ্রহ ও দুটি স্মার্টফোন এবং বিভিন্ন অপারেটরের সাতটি সিম উদ্ধার করা হয়। এ ঘটনায় মামলা করা হয়েছে।

ডিএমপির অতিরিক্ত পুলিশ কমিশনার (ডিবি) এ কে এম হাফিজ আক্তার বলেন, একটি চক্র প্রথমে বিভিন্ন লোভনীয় অফার সংবলিত ফিশিং লিংক তৈরি করে টার্গেট করা ফেসবুক আইডির মেসেঞ্জারে (বিশেষ করে নারীদের) পাঠাত। পাঠানো লিংকে ক্লিক করে পাঠানো নির্দেশনা অনুযায়ী তথ্য প্রদান করা মাত্রই ভিকটিমের ফেসবুক আইডিটি এ চক্রের নিয়ন্ত্রণে চলে যেত। এরপর চক্রটির সদস্যরা ভিকটিমের ফেসবুক আইডির বন্ধুদের মেসেঞ্জারে নক করে তাদের কাছে বিভিন্ন অজুহাতে টাকা ধার চাইত এবং টাকা পাঠানোর জন্য নিজের বিকাশ নম্বর দিত। এভাবে চক্রটি ফেসবুক আইডি হ্যাক করে ভিকটিমদের কাছ থেকে মোটা অঙ্কের টাকা হাতিয়ে নিত। সংশ্লিষ্টরা বলেন, বাংলাদেশের জনগণের মধ্যে ফেসবুক ব্যবহারের প্রবণতা অনেক বেশি। ফেসবুক আইডি নিরাপদ রাখতে সুরক্ষিত পাসওয়ার্ড ব্যবহার ও পরিচিত ব্যক্তি ব্যতীত অপরিচিতদের পাঠানো ফ্রেন্ড রিকোয়েস্ট অ্যাকসেপ্ট না করাই হতে পারে সমাধান।

এদিকে ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের মেয়র শেখ ফজলে নূর তাপসের নামে ভুয়া ফেসবুক আইডি খুলে প্রতারণা করার অভিযোগে আরও দুজনকে গ্রেফতার করেছে গোয়েন্দা সাইবার অ্যান্ড স্পেশাল ক্রাইম বিভাগ। হ্যাকারদের নিরস্ত করতে শক্ত প্রতিরোধ জরুরি। সাধারণ মানুষ থেকে শুরু করে বিশিষ্টজনদের সুরক্ষা দিতে সংশ্লিষ্টরা আরও তৎপর হবেন বলেই প্রত্যাশা।