জমজমাট আয়কর মেলা

ঢাকা, শনিবার, ৭ ডিসেম্বর ২০১৯ | ২৩ অগ্রহায়ণ ১৪২৬

জমজমাট আয়কর মেলা

স্বনির্ভরতার পথে দেশ

সম্পাদকীয়-১ ৯:১৬ অপরাহ্ণ, নভেম্বর ১৬, ২০১৯

print
জমজমাট আয়কর মেলা

দেশ পরিচালনায় নাগরিকদের অংশগ্রহণের ক্ষেত্রে কর নিয়ামক ভূমিকা পালন করে থাকে। এক্ষেত্রে কর প্রদানের উপযুক্ত নাগরিকরা যেন সহজেই করের বিষয়ে সব ধরনের সেবা এক ছাদের নিচে পান সেজন্য নিয়মিত আয়কর মেলার আয়োজন করা হচ্ছে। এ মেলায় সব বয়সী আয়কর প্রদানকারীরা স্বাচ্ছন্দ্যে তাদের ভূমিকা সম্পর্কে জানার ও যথাযথভাবে নাগরিক দায়িত্ব পালনের সুযোগ পেয়ে থাকেন।

খোলা কাগজে প্রকাশ, রাজধানীর অফিসার্স ক্লাবে সপ্তাহব্যাপী আয়কর মেলার প্রথম সাপ্তাহিক ছুটির দিন শুক্রবার করদাতাদের ঢল নামে। এদিন সকাল থেকেই মেলা প্রাঙ্গণে ভিড় করতে থাকেন করদাতারা। তারকা ব্যক্তিত্বসহ বিভিন্ন শ্রেণি-পেশার মানুষের পদচারণায় মেলায় তিল ধারণের ঠাঁই ছিল না। আয়কর মেলায় এক ছাদের নিচে সব ধরনের কর সেবা পেয়ে সন্তুষ্টি প্রকাশ করেন অংশগ্রহণকারীরা।

মেলা ঘুরে দেখা যায়, ভিড় এড়াতে সকালে আসা করদাতারা খুব অল্প সময়ের মধ্যেই কাজ শেষ করে ফিরেছেন। বেলা বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে মেলায় করদাতাদের লাইন দীর্ঘ হয়। তবে ভিড় বাড়লেও আয়োজন ভালো থাকায় অনেকটা স্বাচ্ছন্দ্যে কর দিয়েছেন তারা।

করদাতাদের অনেকে পরিবারের সদস্য, বন্ধু বা পরিচিতজনদেরও মেলায় নিয়ে আসেন। এবার করদাতাদের সহজ ও দ্রুত সময়ের আয়কর পরিশোধের সুবিধার্থে মোবাইল ব্যাংকিং সেবা চালু করা হয়েছে। মেলায় বিকাশ, রকেট, ইউপে, শিওর ক্যাশ ও নগদ-এর মতো মোবাইল ফিন্যান্সিয়াল সার্ভিসেসের (এমএফএস) মাধ্যমে ই-পেমেন্ট সেবা দেওয়া হবে। এতে সহজে মোবাইল ফোন ব্যবহার করে কর দিতে পারবেন করদাতারা।

জাতীয় রাজস্ব বোর্ড (এনবিআর) জানায়, মেলার প্রথম দিনে তাদের আয়কর আদায় হয়েছে ৩২৩ কোটি ১৮ লাখ ৯৩ হাজার ৮৮৫ টাকা। মোট সেবা গ্রহণ করেছেন ১ লাখ ৩৫ হাজার ৭৫৮ জন, রিটার্ন দাখিল করেছেন ৬৩ হাজার ২৭২ জন এবং নতুন ই-টিআইএন নিবন্ধন হয়েছে ৪ হাজার ৩৬৬টি।

‘সবাই মিলে দেব কর, দেশ হবে স্বনির্ভর’-এ স্লোগানে ১৪ নভেম্বর থেকে দেশব্যাপী শুরু হয়েছে আয়কর মেলা। চলবে ২০ নভেম্বর পর্যন্ত। এর মধ্যে রাজধানীসহ সব বিভাগীয় শহরে সাত দিন, জেলা শহরে চার দিন, ৪৮ উপজেলায় দুই দিন এবং আট উপজেলায় দিনব্যাপী করমেলা আয়োজন করবে এনবিআর।

এদিকে এবারের মেলা উপলক্ষে কর সংক্রান্ত তথ্য সংবলিত একটি ওয়েবসাইট এবং কর পরিশোধে মোবাইল ব্যাংকিং সেবা চালু করায় ওয়েবসাইট থেকে আয়কর বিবরণী ফরম ও চালান ফরম ডাউনলোড করার পাশাপাশি সব ধরনের নির্দেশকা পাওয়া যাচ্ছে। তাই করমেলার ন্যায় অধিকাংশ সুবিধা ঘরে বসেই ভোগ করতে পারছেন করদাতারা।

আমরা প্রত্যাশা করি কর দানে সক্ষম নাগরিকরা আয়কর মেলার সুযোগ-সুবিধা গ্রহণ করে যথাযথ প্রক্রিয়ায় কর প্রদানের মাধ্যমে দেশকে স্বনির্ভর করার ক্ষেত্রে নিজ নিজ নাগরিক দায়িত্ব পালন করবেন।