যানজটে রপ্তানি বাণিজ্যেও ক্ষতি

ঢাকা, শনিবার, ৭ ডিসেম্বর ২০১৯ | ২২ অগ্রহায়ণ ১৪২৬

যানজটে রপ্তানি বাণিজ্যেও ক্ষতি

পদক্ষেপ নিতে হবে এখনই

সম্পাদকীয় ১০:১৩ অপরাহ্ণ, নভেম্বর ১৪, ২০১৯

print
যানজটে রপ্তানি বাণিজ্যেও ক্ষতি

যানজটের চিত্র কতটা ভয়াবহ হতে পারে তার দৃষ্টান্ত রাজধানী ঢাকা। প্রতিদিন বিপুল পরিমাণ কর্মঘণ্টা নষ্ট হচ্ছে শুধু যানজটের কারণে। এই হিসাবে প্রতিদিন কয়েক কোটি কোটি টাকা লোকসান গুনতে হচ্ছে সাধারণকে, যা অগোচরেই থেকে যাচ্ছে। শুধু ঢাকা নয় সব জেলাতেই যানজট রয়েছে। অন্যদিকে সড়কে যানজট এবং ভোগান্তির কারণে অভ্যন্তরীণ এবং রপ্তানি বাণিজ্যেও লোকসান গুনতে হচ্ছে দেশীয় ব্যবসায়ীদের। আর এতে করে পণ্যের দাম বেড়ে যাওয়াসহ তৈরি পোশাক রপ্তানিতেও পিছিয়ে পড়ছে দেশ।

খোলা কাগজের প্রতিবেদন থেকে জানা যায়, বাংলাদেশের সড়কে যানজটের কারণে পণ্যের রপ্তানি মূল্য বাড়ছে। রপ্তানি প্রতিযোগী দেশগুলোর তুলনায় মসৃণ পরিবহন অবকাঠামো তৈরিতেও পিছিয়ে রয়েছি আমরা। বিশ্বব্যাংকের এক প্রতিবেদন বলছে, বিশ্ববাজারের প্রায় সাত শতাংশ পোশাক রপ্তানি করে বাংলাদেশ। বর্তমান অবস্থায়ও যুক্তরাষ্ট্রের বাজারে ১০ শতাংশ রপ্তানি বাড়ানোর সুযোগ আছে। অথচ বাংলাদেশ এখনো মসৃণ সংযোগ অবকাঠামোতে পিছিয়ে আছে। বাংলাদেশের সড়ক যোগাযোগ খাতের যানজট রপ্তানি পণ্য গন্তব্যে পৌঁছানোর খরচ বাড়িয়ে দিচ্ছে। যে কারণে আন্তর্জাতিক বাণিজ্যে সমস্যা পড়তে হচ্ছে তৈরি পোশাক শিল্পকে।

বিশ্ববাজারে পোশাকসহ অন্য পণ্যের রপ্তানি বাড়ানোর ব্যাপক সুযোগ রয়েছে আমাদের। এক্ষেত্রে কম খরচের পণ্য পরিবহন ব্যবস্থার উন্নয়ন ঘটানোও একটি বড় চ্যালেঞ্জ। আর রপ্তানি বাণিজ্যে উন্নয়ন ঘটাতে চাইলেও যানজট নিরসনের বিকল্প নেই। বর্তমান সরকারও যাতায়াত ব্যবস্থার উন্নয়নে দেশব্যাপী ব্যাপক পরিকল্পনা এবং প্রকল্প চালু রেখেছে। এখন সময়মতো সেগুলো বাস্তবায়ন হলেই যোগাযোগ ব্যবস্থার উন্নয়ন ঘটবে। এতে করে কম খরচে এবং কম সময়ে রপ্তানি পণ্য পরিবহন ব্যবস্থা নিশ্চিত হলেই অর্থনৈতিকভাবে লাভবান হবে দেশ। যে কারণে সড়ক, রেল ও জলপথ এই তিন খাতেই পণ্য পরিবহনে মসৃণ অবকাঠামো তৈরি করতে হবে সরকার সংশ্লিষ্টদের।

আমরা সবাই জানি, উন্নয়নশীল দেশ থেকে মধ্যম এবং উন্নত দেশের কাতারে পৌঁছাতে হলে যোগাযোগ ব্যবস্থার উন্নয়ন ভীষণ জরুরি। কিন্তু বর্তমানে বাংলাদেশের সড়কে পণ্য পরিবহনের সময় ও ব্যয়-দুটোই বেশি। পণ্য পরিবহনে সবচেয়ে সাশ্রয়ী ব্যবস্থা জলপথ হলেও সেখানকার অবকাঠামোও দুর্বল। তাই সরকারকে দেশের নৌ অবকাঠামোও শক্তিশালী করে গড়ে তুলতে হবে। দেশের বাজারগুলো যথাসময়ে ঝামেলা ছাড়া পণ্য সরবরাহ করলেও লাভবান হবে সব পক্ষ। একই সঙ্গে আন্তর্জাতিক বাজার বিস্তৃতির জন্য যথাসময়ে পণ্য সরবরাহ অতি জরুরি। সবদিক বিবেচনা করে যোগাযোগ ব্যবস্থার আরও উন্নয়নে সরকার পদক্ষেপ নেবে বলেই আমাদের বিশ্বাস।