মলমূত্র খাওয়ালো যুবলীগ

ঢাকা, শুক্রবার, ১৮ অক্টোবর ২০১৯ | ৩ কার্তিক ১৪২৬

মলমূত্র খাওয়ালো যুবলীগ

ধরপাকড়েও শিক্ষা নেই

সম্পাদকীয় ১০:০৮ অপরাহ্ণ, অক্টোবর ০৯, ২০১৯

print
মলমূত্র খাওয়ালো যুবলীগ

সমাজে দুষ্কৃতকারীরা তাদের অপকর্মের জন্য ক্ষমতাকে আশ্রয় হিসেবে বেছে নেয়। ক্ষমতার ছায়াতলে নিরাপদ থাকার জন্য রাজনৈতিক পরিচয়ের চাইতে বড় কিছু এখন আর হয় না। এমনই দুর্বৃত্তায়নের মধ্যে এক যুবককে মলমূত্র খাওয়ানোর মতো ঘৃণ্য এক নজির স্থাপন করল যুবলীগ। প্রমাণ হলো, ছাত্রলীগ যুবলীগ নিয়ে যখন সারা দেশে সমালোচনার ঝড় বইছে তখনো থেমে নেই তাদের দুর্বৃত্তায়ন।

পত্রিকায় প্রকাশিত সংবাদ থেকে জানা যায়, যুবলীগ কর্মীর নেতৃত্বে এক যুবকের হাত বেঁধে নির্মম নির্যাতনের পর জোরপূর্বক তাকে মলমূত্র খাওয়ানোর একটি ভিডিও ক্লিপ ভাইরাল হয়েছে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে। বরিশালের হিজলা উপজেলার হরিনাথপুর ইউনিয়নের টুমচর গ্রামে গত সোমবার রাতে ভিডিও ক্লিপটি ফেসবুকে শেয়ার হওয়ার পর ছড়িয়ে পড়ে। ঘটনার পর নির্যাতিত যুবক ও নির্যাতনকারীরা সবাই আত্মগোপন করেছেন। এ ঘটনার সঙ্গে জড়িতদের বিরুদ্ধে যথাযথ আইনগত ব্যবস্থা নেওয়ার কথা জানিয়েছে পুলিশ।

ভিডিওতে দেখা যায়, আজম নামে ওই যুবকের হাত পিঠমোড়া দিয়ে বাঁধা অবস্থায় কয়েকজন ব্যক্তি তার ওপর নির্যাতন চালাচ্ছে। এর এক পর্যায়ে ওই যুবকের বুকে এক ব্যক্তি পা দিয়ে চেপে ধরে জোরপূর্বক বদনায় থাকা মলমূত্রযুক্ত পানি খাওয়াচ্ছে। এ সময় ওই যুবক নিজেকে রক্ষার জন্য ধস্তাধস্তি করলেও হাত বাঁধা থাকায় রক্ষা করতে পারেননি নিজেকে। ভিডিও ফুটেজে দেখা যায়, স্থানীয় ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ নেতার নেতৃত্বে কয়েকজন ওই যুবকের ওপর এই নির্যাতন চালায়। তিনি হরিনাথপুর ইউনিয়ন যুবলীগের সদস্য বলে জানিয়েছেন স্থানীয়রা। এ বিষয়ে বরিশালের পুলিশ সুপার জানান, ঘটনাটি সম্বন্ধে অবহিত হয়ে গত সোমবার সকালে ঘটনাস্থলে পুলিশ পাঠিয়েছেন তিনি। অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা নেওয়া হবে বলেও জানান এ পুলিশ কর্মকর্তা।

সভ্যসমাজে এমন চিত্র মোটেও প্রত্যাশিত নয়। আমরা এমন জঘন্য ঘটনার তীব্র নিন্দা জানাই। কতটা বেপরোয়া হলে মানুষ এরকম অসভ্য আচরণ করতে পারে তা ভাবতেও গা শিউরে ওঠে। অথচ এরকম অপরাধ ভাইরাল হওয়ার পর তারা ঠিকই গা-ঢাকা দিয়েছে। প্রকৃতপক্ষে অতীতে ক্ষমতাসীন রাজনৈতিক দলের পরিচয়ে বিভিন্ন অপকর্মের বিচার না হওয়ায় এ ধরনের ঘটনা ঘটেছে বলে আমরা মনে করি। তাই এক্ষেত্রে পুলিশের কঠোর ব্যবস্থা নেওয়ার আশ্বাস শুধু কথায় না থেকে বাস্তবেও পরিলক্ষিত হোক, সেটিই আমাদের প্রত্যাশা।