চামড়া শিল্পের উন্নয়নে টাস্কফোর্স

ঢাকা, রবিবার, ২০ অক্টোবর ২০১৯ | ৫ কার্তিক ১৪২৬

চামড়া শিল্পের উন্নয়নে টাস্কফোর্স

কেটে যাক অচলাবস্থা

সম্পাদকীয় ৯:০০ অপরাহ্ণ, অক্টোবর ০৬, ২০১৯

print
চামড়া শিল্পের উন্নয়নে টাস্কফোর্স

চামড়া শিল্পের সঙ্গে আমাদের দেশের অর্থনৈতিক উন্নতির সম্ভাবনা ওতপ্রোতভাবে জড়িয়ে রয়েছে। এ খাতে বিরাজমান নানা রকম বিশৃঙ্খলার ফলে যে ভারসাম্যহীনতা তৈরি হয়েছে তা নেতিবাচক একটি অধ্যায়। এ বছর কোরবানির ঈদের সময় চামড়ার মূল্য নিয়ে যে পরিস্থিতির উদ্ভব ঘটেছিল, তা চলমান থাকলে চামড়া শিল্পের পতন অনিবার্য হয়ে দাঁড়াবে। আর কোরবানির চামড়ার মূল্যের সঙ্গে শুধু ব্যবসায়ীদের স্বার্থই জড়িত নয়, দেশের এতিম ও গরিব মানুষের অধিকারের বিষয়টিও সম্পর্কিত।

পত্রিকায় প্রকাশিত সংবাদ থেকে জানা যায়, চামড়া শিল্পখাতের উন্নয়নে সুপারিশ ও কর্মপরিকল্পনা প্রণয়নে একটি টাস্কফোর্স গঠন করেছে সরকার। মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ থেকে সম্প্রতি ‘চামড়া শিল্পখাতের উন্নয়নে সুপারিশ প্রদান ও কর্মপরিকল্পনা প্রণয়ন টাস্কফোর্স’ গঠন করে আদেশ জারি করা হয়েছে। ২৯ সদস্যবিশিষ্ট এই কমিটির আহ্বায়ক শিল্পমন্ত্রী।

ক্ষুদ্র ও কুটির শিল্প করপোরেশনের অতিরিক্ত সচিব টাস্কফোর্সে সদস্য-সচিবের দায়িত্ব পালন করবেন। টাস্কফোর্স দেশের চামড়া শিল্পের সামগ্রিক অবস্থা পর্যালোচনা ও বিদ্যমান সমস্যাগুলো চিহ্নিত করে তা উত্তরণের উপায় নির্ধারণ করবে। চামড়া শিল্পের উন্নয়ন, বাজার সম্প্রসারণ ও রপ্তানি বৃদ্ধির জন্য সুপারিশ প্রণয়ন করবে।

দেশের পরিবেশ বিধিমালা অনুসরণ ও আন্তর্জাতিকভাবে স্বীকৃত কমপ্লায়েন্স অর্জনের জন্য কর্মপরিকল্পনা প্রণয়ন এবং নতুন বাজার অনুসন্ধান, বিদ্যমান বাজারকে শক্তিশালীকরণ, নতুন নতুন উদ্ভাবন, ব্যবসায়িক উদ্যোগ ও উত্তম অনুশীলন গ্রহণ করার লক্ষ্যে একটি কর্মপরিকল্পনা প্রণয়নের কাজও করবে টাস্কফোর্স। এক্ষেত্রে টাস্কফোর্স প্রয়োজনে এক বা একাধিক সদস্যকে অন্তর্ভুক্ত করতে পারবে ও সাব-কমিটি গঠন করে তাদের মতামত নিতে পারবে। টাস্কফোর্স বছরে কমপক্ষে চারটি সভা করবে। এ টাস্কফোর্সকে সাচিবিক সহায়তা দেবে শিল্প মন্ত্রণালয়।

চামড়া শিল্পের উন্নয়নে বিশেষভাবে ভাববার প্রয়োজন উপলব্ধ হয়েছে এ বছর কোরবানির ঈদে। চামড়ার ক্রয়মূল্য কম থাকলেও চামড়ার বিক্রয় ও প্রসেসিং পরবর্তী সময়ে চামড়াজাত পণ্যের যে দাম তাতে সহজেই অনুমেয় হয় এ দুর্দশা তৈরির পেছনে সিন্ডিকেটের কারসাজি রয়েছে।

চামড়া খাতে এ অচলাবস্থা যেন দীর্ঘমেয়াদি না হয়, সেদিকে সরকারের পদক্ষেপ গ্রহণ অবশ্যই সাধুবাদ জানানোর যোগ্য। তবে অতীতের অনেক ভালো সিদ্ধান্তের মতো এ উদ্যোগও যেন ভেস্তে না যায় সেদিকে সরকারকে বিশেষভাবে খেয়াল রাখতে হবে।