বিলে বকেয়া হাজার কোটি

ঢাকা, শুক্রবার, ৬ ডিসেম্বর ২০১৯ | ২১ অগ্রহায়ণ ১৪২৬

বিলে বকেয়া হাজার কোটি

টাকা তুলতে উদ্যোগ নিন

সম্পাদকীয় ৮:২৮ অপরাহ্ণ, আগস্ট ০৯, ২০১৯

print
বিলে বকেয়া হাজার কোটি

বলতে দ্বিধা নেই, সরকারি খাতগুলোতেই দুর্নীতি-অনিয়ম বেশি হয়। কিছুদিন পর পর নতুন প্রকল্প চালু হলেই সেখানে লুটপাট হয়। এ ছাড়া গ্যাস-পানি-বিদ্যুৎ খাত; কোথায় অনিয়ম-দুর্নীতি নেই? এ প্রশ্ন সাধারণের। সরকার সংশ্লিষ্টরা এবং প্রশাসন দেশ পরিচালনার দায়িত্বে থাকলেও তাদের মধ্য থেকেই অসাধু ব্যক্তি ও প্রতিষ্ঠান নেতিবাচক কর্মকাণ্ডে জড়ায়। এক সময় তাদের ভাবমূর্তি ক্ষু্ন্ন হলেও তাৎক্ষণিক লাভের কারণে তারা অনিয়ম থেকে বের হয় না। ধারাবাহিকভাবে যা চলতেই থাকে।

খোলা কাগজের বরাতে এবার মন্ত্রী পর্যায়ের একজন জানালেন, খোদ সরকারের বিভিন্ন বিভাগের কাছে গ্যাস ও বিদ্যুৎ বিলের প্রায় ৫ হাজার কোটি টাকা বকেয়া আছে। সাধারণের টাকা নিয়ে যে সরকার পরিচালিত হয় তারাই যদি রাষ্ট্রের তথা জনগণের টাকা আটকে রাখে তাহলে চলবে কীভাবে? প্রয়োজনে খরচ হওয়া কোনো নেতিবাচক বিষয় নয়। কিন্তু স্বয়ং সরকারি বিভিন্ন বিভাগই বিল বকেয়া রেখে টাকা আটকে রাখছে। দেশ অর্থনীতিতে শক্তিশালী হচ্ছে। কিন্তু কিছুদিন পরপর সরকারি লোক কিংবা সংস্থা অনিয়মের খবর প্রকাশ্যে আসায় নিজেরাই প্রশ্নবিদ্ধ হচ্ছে।

দুর্নীতি-অনিয়ম কিংবা লোক ঠকিয়ে কেউ পার পায় না। একদিন ধরা দিতেই হয়। কোটি কোটি টাকা বকেয়ার তথ্য নিয়ে দ্বিধা নেই। কিন্তু, যেসব সরকারি প্রতিষ্ঠান বিল বকেয়া রেখেছে তারা তো ঘটনা জানে। সরকারি ভাণ্ডারে ভর দিয়েই এক কাপ চা থেকে শুরু করে সবচেয়ে বড় প্রকল্প রূপপুর পারমাণবিক বিদ্যুৎকেন্দ্র হচ্ছে। অর্থাৎ, সরকারি কোষাগার থেকেই প্রত্যেকটি বিল পরিশোধ হয়। তারপরও এই বিপুল পরিমাণ টাকা কেন বকেয়া আছে- সে প্রশ্নের উত্তর নিয়ে ধোঁয়াশা রয়েছে।

রাষ্ট্রীয় সম্পদ জনগণের সম্পদ। তা দেখভাল এবং সঠিক কাজে বণ্টন করার দায়িত্ব ক্ষমতাসীন সরকারের। তারাই যদি জনগণের টাকা নয়-ছয় করে তবে বিষয়টি দুঃখজনক। যারা অনিয়মে জড়িত প্রকৃতপক্ষে তারাই দেশের ক্ষতি করছে। আমরা, কাউকে উদ্দেশ্য করে কিছু বলতে চাই না। তবে, বিপুল পরিমাণ টাকা বকেয়ার বিষয়টি যদি সত্য হয় তবে সরকারকেই এর সমাধান করতে হবে। নিজের ঘরে নিজের যেমন চুরি করার কিছু নেই। তেমনি, ক্ষমতা নিয়ে রাজকোষ ব্যবহার করা এক প্রকার দায়িত্ব। তাই বলে সেখানকার টাকা বকেয়া কিংবা লুটপাট কোনোভাবেই প্রত্যাশিত নয়। সংশ্লিষ্টরা বিষয়টির দিকে নজর দিলেই এর আশু সমাধান আসবে।