কলসিন্দুরের মেয়েদের সনদে আগুন

ঢাকা, মঙ্গলবার, ২১ মে ২০১৯ | ৬ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৬

কলসিন্দুরের মেয়েদের সনদে আগুন

দায়ীদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি কাম্য

সম্পাদকীয় ৮:৫৬ অপরাহ্ণ, মে ১৫, ২০১৯

print
কলসিন্দুরের মেয়েদের সনদে আগুন

ময়মনসিংহের নিভৃত পল্লী কলসিন্দুর ধীরে ধীরে পরিচিত হয়ে উঠেছে দেশের সীমানা ছাড়িয়ে বিদেশেও। এ অঞ্চল থেকেই ঘটেছে অসামান্য সব প্রতিভার বিস্ফোরণ। এখানকার মেয়েরা জাতীয় ও আন্তর্জাতিক পর্যায়ে ফুটবল খেলায় যে নৈপুণ্য দেখিয়েছেন- এক কথায় অবিশ্বাস্য! খেলায় পরপর চ্যাম্পিয়ন হয়ে প্রতিভার জানান দিয়েছেন, ক্রীড়ামোদিদের দিয়েছে গর্ব ও অহংকার করার সুযোগ। গৌরবদীপ্ত এ অর্জনে নেপথ্য সূতিকাগার যে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান সেখানে আগুন দিয়েছে দুর্বৃত্তরা। দায়ীদের শনাক্ত করা না গেলেও তারা যে প্রগতি ও অগ্রগতিবিমুখ তাতে সন্দেহের অবকাশ নেই।

 

ফুটবলার নারীদের বদৌলতে সুপরিচিত ময়মনসিংহের কলসিন্দুর উচ্চ মাধ্যমিক স্কুল অ্যান্ড কলেজের অফিসে আগুন দিয়েছে দুর্বৃত্তরা। উদ্দেশ্যপ্রণোদিত এ আগুনে পুড়ে গেছে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানটির গুরুত্বপূর্ণ কাগজ, সনদ ও মেডেল। অপ্রত্যাশিত এ ঘটনা হতচকিত করে দিয়েছে স্থানীয়সহ সংশ্লিষ্টদের। আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে তদন্ত শুরু করেছে। গত মঙ্গলবার সকালে ধোবাউড়া উপজেলার এ প্রতিষ্ঠানের পোড়া চিহ্ন ক্ষতবিক্ষত করেছে সংশ্লিষ্টদের। সেদিন সকালে অফিস কক্ষ খোলার পর দেখা গেছে, কাঠের টেবিলের ওপর ও মেঝেতে গুরুত্বপূর্ণ কাগজপত্র, নারী ফুটবলারদের সনদ ও মেডেল পোড়া অবস্থায় রয়েছে। পুড়েছে একটি কম্পিউটারও।

বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক জানান, পুড়ে যাওয়া জিনিসের মধ্যে আছে ২০১৬ ও ২০১৭ সালে উপজেলা পর্যায়ে এ প্রতিষ্ঠানের মেয়েদের অর্জন করা সনদ ও মেডেল। দুর্বৃত্তরা তালা ভেঙে আগুন দিয়েছে বলেও অভিযোগ করেন তিনি। কলসিন্দুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের খুদে শিক্ষার্থীরা তিনবার বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুন্নেছা গোল্ডকাপ ফুটবলে জাতীয় পর্যায়ের চ্যাম্পিয়ন হয়। বাংলাদেশ নারী দলের কৃতি ফুটবলার মারিয়া মান্দা, মার্জিয়া ও সানজিদাসহ বয়সভিত্তিক বিভিন্ন দলে কলসিন্দুর উচ্চ মাধ্যমিক স্কুল অ্যান্ড কলেজের অন্তত ১০ জন মেয়ে নিয়মিত খেলেন। এরা এবং অন্য খেলোয়াড়দের জন্য এটা যে নিদারুণ দুঃসংবাদ বলার অপেক্ষা রাখে না।

মৌলবাদী-প্রগতিবিমুখ ব্যক্তি ও গোষ্ঠী যখন নানাভাবে থামিয়ে-দমিয়ে রাখার চেষ্টা করছে বাংলাদেশের নারীদের, সব বাধা ডিঙিয়ে নারীরা এগিয়ে যেতে শুরু করেছেন অভীষ্ট লক্ষ্যে। প্রধানমন্ত্রীও কলসিন্দুরের মেয়েদের বিজয়ে আনন্দ প্রকাশ করেছেন। আখ্যা দিয়েছেন ছোট মানুষের বড় কাজ হিসাবে। সেখানে এমন তান্ডব অপ্রত্যাশিত। আমরা মনে করি, বিদ্যমান পরিস্থিতিতে বিশেষ টিম গঠন করে দায়ীদের শনাক্তের ব্যবস্থা নেওয়া উচিত। বড় কোনো দুর্ঘটনার আগেই শক্ত হাতে লাগাম টানতে হবে।