পবিত্র শবেবরাত আজ

ঢাকা, মঙ্গলবার, ২০ আগস্ট ২০১৯ | ৪ ভাদ্র ১৪২৬

পবিত্র শবেবরাত আজ

পাপকর্ম থেকে মুক্তি পাক মানবজাতি

সম্পাদকীয়-১ ৮:১৫ পূর্বাহ্ণ, এপ্রিল ২১, ২০১৯

print
পবিত্র শবেবরাত আজ

আজ মহিমান্বিত শবেবরাত। হিজরি সনের শাবান মাসের ১৪ তারিখ পালিত হয় পুণ্যময় শবেবরাতের রাত। বিশ্বের বিভিন্ন স্থানের মুসল্লিরা ইবাদতের মাধ্যমে এ রাত পালন করেন। বাংলাদেশেও পালিত হচ্ছে শবেবরাত। ফার্সি শব্দ ‘শব’ অর্থ রাত বা রজনী আর ‘বারাআত’ অর্থ মুক্তি, নিষ্কৃতি, অব্যাহতি, পবিত্রতা। সুতরাং শবেবরাতের শাব্দিক অর্থ- মুক্তি, নিষ্কৃতি ও অব্যাহতির রজনী। এ রাতে মহান আল্লাহ পাপী লোকদের ক্ষমা করেন, নিষ্কৃতি দেন ও জাহান্নাম থেকে মুক্তি দেন। তাই এ রাতকে লাইলাতুল বারাআত বা শবেবরাত বলা হয়। ধার্মিক মুসল্লিরা এই রাতকে অনেক গুরুত্ব দেন।

শবেবরাত মহান আল্লাহর পক্ষ থেকে মানুষের উদ্ধারের জন্য এক বিশেষ উপহার। এ রাতের গুরুত্ব এবং মাহাত্ম্যও অনেক। ইসলাম ধর্মাবলম্বীদের মূল গ্রন্থ পবিত্র কোরআনে শবেবরাত পালন নিয়ে সরাসরি কোনো কিছু উল্লেখ না থাকলেও (উইকিপিডিয়া) হাদিস গ্রন্থে এই রাতের বিশেষত্ব উল্লেখ আছে। তাই বেশির ভাগ মুসল্লিই ধর্মীয় ভাবধারায় নামাজ আদায়ের মাধ্যমে এই রাত পালন করেন। তবে শুধু শবেবরাতের রাতে নিজের পাপ-অপকর্ম থেকে মুক্তি পেতে দোয়ার আবেদন করলে সফল হবে, সে নিশ্চয়তা নেই। সারা বছর অপকর্ম, দুর্নীতি এবং মানুষের ক্ষতি করে এক দিনেই তা থেকে নিস্তার পাওয়া সম্ভব নয়। তাই শবেবরাতের রাতে মহান আল্লাহকে স্মরণ করে সারা বছর সেই ভাব অক্ষত রাখার জন্য দোয়া চাইতে হবে।

মহান এই রাতে মন থেকে দোয়াপ্রার্থী হয়ে সারা বছর এর পবিত্রতা রক্ষায় ভালো কাজ করতে হবে। পরিত্র শবেবরাতের এই রাতের দুই সপ্তাহ পর শুরু হবে রমজান মাস। আমরা দেখেছি, পবিত্র রমজান মাস এলেই কিছু অসাধু-দুর্নীতিগ্রস্ত ব্যক্তি অতিরিক্ত মুনাফার লোভে নিত্যপ্রয়োজনীয় দ্রব্যের দাম বাড়িয়ে সাধারণের ক্ষতি করে। এ জাতীয় কাজ না করতে পবিত্র শবেবরাতের রাতেই নামাজ আদায়ের মাধ্যমে শপথগ্রহণ করতে হবে। বাণীতে আছে, ‘মানুষ ভালো কাজ করবে, ফল দেবেন আল্লাহ।’ হিসাবের খাতায় ভালো কাজ থেকে যদি খারাপ কাজের পরিমাণ বেশি হয় তবে আখিরাতে তার ফল ভোগ করতে হবে।

মহিমান্বিত এই রাতের তাৎপর্য শুধু মুখে না রেখে মনে-প্রাণে আল্লাহর ইবাদত করতে হবে এবং সারা বছর সেই ধারা অব্যাহত রাখতে হবে। নিজের অপরাধবোধ উপলব্ধি করে আল্লাহর দরবারে ক্ষমা প্রার্থনা করে সার্বিক মঙ্গলের জন্য কাজ করতে হবে। দুর্নীতি-অনিয়ম বন্ধ করে সবার ভালোর জন্য এগিয়ে আসতে হবে। তবেই সার্থক হবে পবিত্র শবেবরাতের রাত।