এলডিসি থেকে উত্তরণের চ্যালেঞ্জ মোকাবেলায় বাণিজ্য সহজীকরণ জরুরি

ঢাকা, সোমবার, ২৭ সেপ্টেম্বর ২০২১ | ১২ আশ্বিন ১৪২৮

Khola Kagoj BD
Khule Dey Apnar chokh

এলডিসি থেকে উত্তরণের চ্যালেঞ্জ মোকাবেলায় বাণিজ্য সহজীকরণ জরুরি

নিজস্ব প্রতিবেদক
🕐 ৮:০৭ অপরাহ্ণ, জুলাই ২৬, ২০২১

এলডিসি থেকে উত্তরণের চ্যালেঞ্জ মোকাবেলায় বাণিজ্য সহজীকরণ জরুরি

স্বল্পোন্নত দেশের (এলডিসি) অবস্থান থেকে উত্তরণের চ্যালেঞ্জ মোকাবেলায় বাণিজ্য সহজীকরণ, লিংকেজ শিল্পের উন্নয়ন এবং অর্থনৈতিক অঞ্চলসমূহ ও ওষুধ শিল্প পার্ক (এপিআই) স্থাপনের কাজ দ্রুত শেষ করার পরামর্শ দিয়েছেন বিশেষজ্ঞ ও ব্যবসায়ীরা।

সোমবার দি ইন্সষ্টিটিউট অব চার্টার্ড এ্যাকাউন্ট্যান্টস অব বাংলাদেশ (আইসিএবি) আয়োজিত ‘এলডিসি গ্র্যাজুয়েশন: চ্যালেঞ্জ এবং সুযোগ’ বিষয়ক ওয়েবিনারে বিশেজ্ঞরা এই পরামর্শ তুলে ধরেন।

অনুষ্ঠানে পরিকল্পনামন্ত্রী এম এ মান্নান প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন। বিশেষ অতিথি ছিলেন পরিকল্পনা কমিশনের সদস্য (শিল্প ও জ্বালানি বিভাগ) শরীফা খান।

আইসিএবি প্রেসিডেন্ট মাহমুদুল হাসান খসরু এফসিএ ওয়েবিনারে স্বাগত বক্তব্য দেন। এতে প্যানেল আলোচক হিসেবে অ্যাপেক্স ফুটওয়্যার লিমিটেডের ব্যবস্থাপনা পরিচালক সৈয়দ নাসিম মনজুর, শিল্প গ্রুপ বিএসআরএফ চেয়ারম্যান আলী হোসেন আকবর আলী, বাংলাদেশ ট্যারিফ কমিশনের (বিটিসি) সাবেক সদস্য মোস্তফা আবিদ খান এবং বাংলাদেশ শিল্প ও বণিক সমিতি ফেডারেশনের (এফবিসিসিআই) উপদেষ্টা মনজুর আহমেদ অংশ নেন।

আইসিএবির সদস্য কাউন্সিল ও সাবেক প্রেসিডেন্ট মো. হুমায়ুন কবির এফসিএ অধিবেশন চেয়ারম্যান হিসাবে ওয়েবিনারে সভাপতিত্ব করেন। আইসিএবির সিইও শুভাশীষ বসু মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন ।

অনুষ্ঠানে বিশেষজ্ঞ ও ব্যবসায়ীরা বলেন, এলডিসি থেকে উত্তরণের প্রেক্ষিতে আমরা যে প্রতিযোগিতার মুখোমুখি হবো তা মোকাবেলায় ব্যবসাবান্ধব পরিবেশের উন্নয়ন ও বাণিজ্য সহজীকরণ অত্যন্ত জরুরি। এজন্য অর্থনৈতিক অঞ্চলসমূহ স্থাপনের কাজ দ্রুত শেষ করতে হবে। পোশাক রপ্তানি খাতে উৎপাদনশীলতা বাড়াতে ফ্যাশন-ডিজাইন ইন্সটিটিউট প্রতিষ্ঠার পরামর্শ দেন তারা।

তারা বলেন, এলডিসি থেকে উত্তরণ হলে দেশের উন্নয়ন এবং জনগণের জীবনযাত্রার মান বৃদ্ধির একটি স্বীকৃতি মিলবে। আমাদের বাণিজ্য দক্ষতা ও অভিযোজন যোগ্যতার ব্যাপক বিকাশ লাভ করেছে। এমনকি মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের জিএসপি প্রত্যাহারের পরও পোশাক শিল্পের সাফল্য প্রশংসনীয়।

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে পরিকল্পনামন্ত্রী এম এ মান্নান বলেন, এলডিসি থেকে উত্তরণ আমাদের সামনে নতুন বাস্তবতা নিয়ে আসবে। এতে বৈশ্বিক বাণিজ্যে কিছু সুবিধা হয়ত হারাতে হবে। বিশ^ বাণিজ্য সংস্থার (ডব্লিউটিও) অধীনে শুল্কমুক্ত সুবিধা আর কার্যকর না থাকায় আমাদের রপ্তানি নতুন চ্যালেঞ্জের মুখোমুখি হবে। তিনি এলডিসি থেকে উত্তরণের চ্যালেঞ্জ মোকাবেলায় ব্যবসায় পরিবেশের আরও উন্নয়নে যথাযথ পদক্ষেপ গ্রহণ এবং অগ্রাধিকারমূলক বাণিজ্য চুক্তি সই করার পরামর্শ দেন।

আইসিএবি প্রেসিডেন্ট মাহমুদুল হাসান খসরু এফসিএ তার স্বাগত বক্তব্যে বলেন, বেসরকারি ও সরকারি উভয় ক্ষেত্রেই এলডিসি থেকে উত্তরণের চ্যালেঞ্জ মোকাবেলার প্রস্তুতি নিতে হবে।

তিনি বলেন, বিনিয়োগকারিদের চাহিদা মেটাতে সরকার ১০০টি অর্থনৈতিক অঞ্চল এবং দুই ডজনেরও বেশি হাইটেক পার্ক উন্নয়নে কাজ করছে। বিনিয়োগকারিদের এক দরজায় সেবা দেয়া হচ্ছে। তিনি রপ্তানির গতি ধরে রাখতে দ্বিপক্ষীয় বাণিজ্য চুক্তি করার পক্ষে মত দেন।

মূল প্রবন্ধে শুভাশীষ বসু রপ্তানি প্রতিযোগিতা মোকাবেলায় পণ্য ও বাজার বহুমূখীকরণ এবং বাণিজ্য সহজীকরণের প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ গ্রহণের সুপারিশ করেন।

 
Electronic Paper