শীতের সবজিতে বাজারে স্বস্তি

ঢাকা, বুধবার, ২ ডিসেম্বর ২০২০ | ১৮ অগ্রহায়ণ ১৪২৭

শীতের সবজিতে বাজারে স্বস্তি

নিজস্ব প্রতিবেদক ১১:২২ পূর্বাহ্ণ, নভেম্বর ২১, ২০২০

print
শীতের সবজিতে বাজারে স্বস্তি

ঋতু পরিবর্তনের পরিক্রমায় এখন শীতের সবজিতে ভরপুর রাজধানীর কাঁচাবাজার। শীতের সবজির সরবরাহ বাড়তে শুরু করায় ‘লাগামহীন’ কাঁচাবাজারে কিছুটা স্বস্তি এসেছে। বাড়তি সরবরাহে কমছে দামও। এর মধ্যে সবচেয়ে বেশি দাম কমেছে শিম, বরবটি, শসা, পটোল ও কাঁচামরিচের। তবে এখনো চড়া দামে বিক্রি হচ্ছে গাজর, ফুলকপি, টমেটো ও শালগম। গতকাল শুক্রবার রাজধানীর কারওয়ান বাজার, মিরপুর-১ নম্বর শাহআলী পাইকারি বাজারে সবজির দাম কম দেখা গেলেও পাড়া-মহল্লার ছোট বাজারগুলোতে এর প্রভাব পড়েছে সামান্য।

আনসার ক্যাম্প, খিলগাঁও, টাউনহল বাজার ঘুরে দেখা গেছে, সপ্তাহের ব্যবধানে কেজিতে ৩০ টাকা কমে প্রতি কেজি শিম বিক্রি হচ্ছে ৫০ থেকে ৬০ টাকায়, বরবটি বিক্রি হচ্ছে ৭০ টাকায়, কাঁচামরিচ ১০০ থেকে ১২০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে। কেজিতে ২০ টাকা কমে প্রতি কেজি শসা বিক্রি হচ্ছে ৪০ থেকে ৫০ টাকায়, পটোল ৫০ থেকে ৬০ টাকা কেজি দরে। বাজারে ১০ থেকে ১৫ টাকা কমে প্রতি কেজি ঢেঁড়স বিক্রি হচ্ছে ৫০ থেকে ৬০ টাকায়, বেগুন ৫০ থেকে ৮০ টাকা, পেঁপে ৩০ থেকে ৪০ টাকা, মিষ্টি কুমড়া ৩০ টাকা, কচুর লতি ৫০ থেকে ৬০ টাকা, চিচিঙ্গা ৪০ থেকে ৫০ টাকা, করলা ৫০ থেকে ৬০ টাকা, বাঁধা কপি প্রতি পিস ৪০ টাকা দরে বিক্রি হচ্ছে। তবে এখনো চড়া দামে বিক্রি হচ্ছে গাজর, ফুলকপি, টমেটো ও শালগম। বাজারে বর্তমানে প্রতি কেজি গাজর বিক্রি হচ্ছে ৯০ থেকে ১০০ টাকায়, টমেটো ১০০ থেকে ১২০ টাকা, ফুলকপি প্রতি পিস ৪০ থেকে ৫০ টাকা, প্রতি পিস লাউ ৬০ থেকে ৭০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে। অপরিবর্তিত আছে শাকের দাম।

ব্যবসায়ীরা জানান, শীত যত বাড়বে মাছ ও সবজির স্বাদ তত বাড়বে। আর এই সময়ে সবজির সরবরাহ বাড়ায় কম দামে কেনাকাটার সুযোগ পাচ্ছেন ক্রেতারা। সামনের দিনগুলোতে আরও কমে আসবে সবজি ও নিত্যপণ্যের দাম।

তবে দাম কমার এ চিত্রে সন্তুষ্ট নন ক্রেতারা। কারওয়ান বাজারে কেনাকাটা করতে আসা ব্যাংক কর্মকর্তা সাইদুল আলম মনে করেন, দুয়েকটি সবজির দাম কমলেও অধিকাংশ সবজির দাম এখনো অনেক বেশি। জিনিসপত্রের দাম বেশি হলে মাসের খরচ পোষাতে হিমশিম খেতে হয়ে। অনেক কাটছাঁট করে চলতে হয়। শাক-সবজি ও নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্যের দাম বেড়ে যাওয়ার কারণে অনেকেরই সমস্যা হচ্ছে।

আনসার ক্যাম্প বাজারের সবজি বিক্রেতা আকবর হোসেন বলেন, শিম প্রতি কেজিতে ৩০ টাকা কমে বিক্রি হচ্ছে ৫০ থেকে ৬০ টাকায়। অন্যান্য সবজির দামও কমেছে। সামনে সবজির দাম আরও কমবে।
এছাড়া কিছুটা দাম বেড়েছে ভোজ্যতেলের। বর্তমানে বাজারে প্রতি কেজি খোলা ভোজ্য তেল বিক্রি হচ্ছে ১০৫ থেকে ১০৮ টাকায়, যা এক সপ্তাহ আগে বিক্রি হয়েছিল ১০২ টাকা থেকে ১০৫ টাকার মধ্যে। বাজারে প্রতি কেজি দেশি পেঁয়াজ বিক্রি হচ্ছে ৮০ থেকে ৮৫ টাকায়, আমদানিকৃত মিসর পেঁয়াজ বিক্রি হচ্ছে ৭০ টাকা, চায়না পেঁয়াজ ৬০ থেকে ৬৫ টাকায়। অপরিবর্তিত আছে মাছ, মাংস, মুরগি ও ডিমের দাম।