স্থায়ী আমানতে ভিন্ন সুদ

ঢাকা, রবিবার, ৬ ডিসেম্বর ২০২০ | ২১ অগ্রহায়ণ ১৪২৭

স্থায়ী আমানতে ভিন্ন সুদ

অর্থনৈতিক প্রতিবেদক ১০:১৪ পূর্বাহ্ণ, অক্টোবর ২৬, ২০২০

print
স্থায়ী আমানতে ভিন্ন সুদ

ব্যবসায়ীদের চাপের মুখে ঋণে সুদ কমানো হলে আমানতের সুদ হারে টান পড়ে। টান পড়ে ফিক্সড ডিপোজিট বা স্থায়ী আমানতের সুদ হারে। এর ফলে সমস্যায় পড়েন ব্যাংকে রাখা অর্থ থেকে আয়নির্ভর মানুষ। কষ্টার্জিত অর্থ কোন ব্যাংকে রাখলে একটু বেশি মুনাফা পাওয়া যাবে তার খোঁজে থাকেন আমানতকারীরা। কেন্দ্রীয় ব্যাংকের গত সেপ্টেম্বরে তথ্য বিশ্লেষণে দেখা যায়, ৫৯টি ব্যাংকের সুদহার এক রকম নয়। বিভিন্ন মেয়াদে সর্বনিম্ন দুই শতাংশ থেকে সর্বোচ্চ নয় শতাংশ পর্যন্ত এফডিআরে সুদ দিচ্ছে ব্যাংকগুলো।

রাষ্ট্রায়ত্ত ব্যাংক : কেন্দ্রীয় ব্যাংকের তথ্য বলছে, দেশের তিনটি বিশেষায়িতসহ মোট ৯টি রাষ্ট্রমালিকানাধীন ব্যাংক রয়েছে। ব্যাংকগুলো আমানতের বিভিন্ন মেয়াদে সাড়ে ৪ থেকে ৬ শতাংশ সুদ দিচ্ছে। এর মধ্যে রাজশাহী কৃষি উন্নয়ন ব্যাংক (রাকাব) সর্বোচ্চ ৯ শতাংশ সুদ দিচ্ছে আমানতকারীদের।

ব্যাংকটি তিন মাস থেকে এক বছরের কম সময়ের সুদ ৪ দশমিক ৫০ থেকে ৫ দশমিক ৫০ শতাংশ, এক বছর থেকে তার বেশি সময়ের সুদ ৫ দশমিক ৭৫ থেকে ৭ শতাংশ এবং তিন বছর বা তার বেশি সময়ের সুদ ৬ থেকে ৯ শতাংশ পর্যন্ত দিচ্ছে। এছাড়া সোনালী, অগ্রণী, রূপালী, জনতা, বেসিক, বিডিবিএল, পিকেবি ও বিকেবির সুদ ৫ দশমিক ৫০ থেকে ৬ শতাংশ পর্যন্ত।

বেসরকারি ব্যাংক
দেশের বেসরকারি বাণিজ্যিক ব্যাংকগুলোর মধ্যে সবচেয়ে বেশি সুদ দিচ্ছে চতুর্থ প্রজম্মের পদ্মা (সাবেক ফারমার্স) ব্যাংক। ব্যাংকটি তিন থেকে ছয় মাসের কম সময়ে সুদ ৭ শতাংশ, ছয় মাস থেকে এক বছরের কম সময়ের জন্য ৭ দশমিক ২৫ শতাংশ এবং এক বছর থেকে তার বেশি সময়ের জন্য আমানতের সুদ দিচ্ছে সাড়ে ৭ শতাংশ।
দীর্ঘমেয়াদি আমানতের সবচেয়ে বেশি সুদ দিচ্ছে ঢাকা ব্যাংক। ব্যাংকটি তিন বছর বা তার বেশি সময়ের জন্য আমানতে সুদ দিচ্ছে ৮ দশমিক ২৪ শতাংশ। তিন বছরের কম সময়ের এফডিআরে ব্যাংকটির সুদহার সাড়ে ৫ থেকে ৬ দশমিক ৫০ শতাংশ।

তিন মাস থেকে তিন বছর বা তার বেশি সময়ের জন্য সাউথবাংলা অ্যাগ্রিকালচার অ্যান্ড কমার্স ব্যাংক (এসএবিসি) ৫ দশমিক ৫০ শতাংশ থেকে সাড়ে ৮ শতাংশ পর্যন্ত সুদ দিচ্ছে। দুই বছরের বেশি সময়ের আমানতে পূবালী ব্যাংক দিচ্ছে সাড়ে ৬ থেকে ৮ শতাংশ সুদ। এক বছর পর্যন্ত এফডিআরে সাড়ে ৭ শতাংশ সুদ দিচ্ছে মেঘনা ব্যাংক।
ইসলামী ব্যাংক বাংলাদেশ লিমিটেড আমানতের মুনাফা দিচ্ছে সাড়ে ৫ থেকে সাড়ে ৭ শতাংশ পর্যন্ত। দীর্ঘমেয়াদি আমানতে সর্বোচ্চ ৮ শতাংশ সুদ দিচ্ছে দি সিটি ব্যাংক। এছাড়া বেশিরভাগ বেসরকারি ব্যাংকেরই এফডিআরে সুদহার ৫ থেকে ৬ শতাংশ।

বিদেশি ব্যাংক
বিদেশি ব্যাংকের মধ্যে তিন বছর থেকে তার বেশি সময়ের জন্য সবচেয়ে বেশি ৯ শতাংশ সুদ দিচ্ছে ন্যাশনাল ব্যাংক অব পাকিস্তান। কমার্শিয়ার ব্যাংক অব সিলনের সুদ সর্বোচ্চ ৭ শতাংশ। আর সবচেয়ের কম সুদ এইচএসবিসির। ব্যাংকটির আমানতের সুদহার এক শতাংশের নিচে। এক বছর মেয়াদি আমানতে হাবিব ব্যাংক দিচ্ছে সর্বোচ্চ ৮ শতাংশ সুদ। তবে এক বছরের ওপরে এফডিআরে ব্যাংকটির সুদহার ৬ শতাংশ। এছাড়া আল ফালাহ, স্ট্যান্ডার্ড চার্টার্ড, ওরি এবং স্টেট ব্যাংক অব ইন্ডিয়ায় সুদের হার ১ দশমিক ২০ থেকে ৬ শতাংশ পর্যন্ত।