মূল্য কারসাজিতে বিক্রেতারা

ঢাকা, শুক্রবার, ৫ জুন ২০২০ | ২২ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৭

মূল্য কারসাজিতে বিক্রেতারা

নিজস্ব প্রতিবেদক ১১:১৬ অপরাহ্ণ, মে ০৯, ২০২০

print
মূল্য কারসাজিতে বিক্রেতারা

ঈদুল ফিতরকে সামনে রেখে কারসাজিতে মেতে উঠেছে মসলার পাইকারি বিক্রেতারা। ২৭৮ টাকা কেজি দরের জিরা কোনো কারণ ছাড়াই পাইকাররা বিক্রি করছে ৩৮০ টাকায়। লবঙ্গের অবস্থা আরও ভয়াবহ। ৫৩০ টাকার লবঙ্গ বিক্রি করছে ৮৫০ টাকায়। গতকাল শনিবার রাজধানীর পুরান ঢাকার মৌলভীবাজারে বিশেষ অভিযানে এসব তথ্য পায় জাতীয় ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদফতর। এ অভিযোগে ছয়টি পাইকারি মসলা বিক্রির প্রতিষ্ঠানকে জরিমানা করেছে অধিদফতর।

অভিযান পরিচালনা করেন ঢাকা বিভাগীয় কার্যালয়ের উপ-পরিচালক মঞ্জুর মোহাম্মদ শাহরিয়ার, প্রধান কার্যালয়ের উপ-পরিচালক আফরোজা রহমান এবং বিকাশ চন্দ্র দাস। অভিযান প্রসঙ্গে মঞ্জুর মোহাম্মদ শাহরিয়ার বলেন, রমজান ও আসন্ন ঈদকে সামনে রেখে মসলাসহ আনুষঙ্গিক পণ্যের দাম বেড়েছে বলে বিভিন্ন মাধ্যমে খবর এসেছে। বিষয়টি তদারকি করতে আজকে মৌলভীবাজারে অভিযানে যাই। এ সময় আমরা দেখছি, বেশিরভাগ প্রতিষ্ঠান তাদের পণ্যের মূল্যতালিকা প্রদর্শন করছে না। তারা অনৈতিকভাবে পণ্যের অতিরিক্ত দাম নিচ্ছে। 

তিনি বলেন, অন্যতম মসলা জিরা সর্বোচ্চ ২৭৮ টাকা বিক্রি করার কথা। কিন্তু পাইকারি বাজারে বিক্রি করা হচ্ছে ৩৫০ টাকা থেকে ৩৮০ টাকা। লবঙ্গের অবস্থা আরও ভয়াবহ। ৫৩১ টাকা পাইকারি বাজারে বিক্রি করার কথা থাকলেও বিক্রি করা হচ্ছে ৭৫০ থেকে ৮৫০ টাকা।

অন্যান্য মসলার দামও কারণ ছাড়াই বাড়িয়েছে। পাইকাররা কোনো ক্রয় রশিদ বা দামের প্রমাণপত্র দেখাতে পারছেন না। অভিযানে অতিরিক্ত মূল্য রাখা, মূল্যতালিকা প্রদর্শন না করা এবং ক্রয় ভাউচার সংরক্ষণ না করার অপরাধে ছয়টি প্রতিষ্ঠানকে ৪১ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়েছে। অভিযান চলমান রয়েছে।

এ সময় মঞ্জুর মোহাম্মদ শাহরিয়ার শারীরিক দূরত্ব বজায় রেখে ভোক্তা এবং ব্যবসায়ীদের পণ্য ক্রয়-বিক্রি করার জন্য অনুরোধ করেন এবং নিত্যপ্রয়োজনীয় দ্রব্যমূল্য অহেতুক বৃদ্ধি না করতে ব্যবসায়ীদের সতর্ক করেন তিনি।