মোংলা ইপিজেডে বিনিয়োগ বেড়েছে

ঢাকা, শুক্রবার, ১৮ জানুয়ারি ২০১৯ | ৫ মাঘ ১৪২৫

মোংলা ইপিজেডে বিনিয়োগ বেড়েছে

আবুল হাসান, মোংলা (বাগেরহাট) ৯:৫৪ অপরাহ্ণ, জানুয়ারি ১১, ২০১৯

print
মোংলা ইপিজেডে বিনিয়োগ বেড়েছে

মোংলা ইপিজেডে গত ১০ বছরে ১৬ গুণ রপ্তানি বৃদ্ধি পেয়েছে। একই সঙ্গে বিনিয়োগ বেড়েছে ১১ গুণ। এ সময়কাল কর্মসংস্থান সৃষ্টি হয়েছে প্রায় সাড়ে ৪ হাজার মানুষের। এক কথায় বিগত দশ বছরে আমূল পরিবর্তন হয়েছে মোংলা ইপিজেডের।

বাংলাদেশ রপ্তানি প্রক্রিয়া অঞ্চল বেপজার মহাব্যবস্থাপক (জনসংযোগ) নাজমা বিনতে আলমগীর জানান, বিগত দশ বছরে এ ইপিজেডের আমূল পরিবর্তন হয়। ইপিজেডের কারণেই মোংলা বন্দর সচল হয়েছে। ইপিজেডের ১৯২টি শিল্প প্লটের মধ্যে ১৬৫টি বরাদ্দ দেওয়া হয়েছে।
তিনি জানান, ইপিজেডে ১২৮টি কারখানা বর্তমানে চালু আছে। ১৫টি কারখানা চালু হওয়ার প্রক্রিয়াধীন রয়েছে। ইপজেডে বর্তমানে সাড়ে ৪ হাজার নারী-পুরুষ কর্মরত আছেন। ২০০৮ সালে মোংলা ইপিজেডে বিনিয়োগ হয়েছিল ৪৫ কোটি টাকা, আর ২০১৮ সালে বিনিয়োগ হয়েছে ৫১০ কোটি টাকা। তিনি আরও জানান, ২০০৮ সালে ইপিজেড থেকে রপ্তানি হয়েছিল ২৯৫ কোটি টাকার পণ্য। ২০১৮ সালে ৪ হাজার ৭০৫ কোটি টাকার পণ্য রপ্তানি হয়েছে। রপ্তানি বৃদ্ধির হার বেড়ে এখন ১৬ গুণে দাঁড়িয়েছে।
নাজমা বিনতে আলমগীর জানান, আগে মোংলা এলাকার অর্থনীতি ছিল কৃষি (ধান) ও মাছ নির্ভর। এখন ওয়ার্কাররা টয়োটা গাড়ির হিটিং প্যাড, ভিআইপি লাগেজ ব্যাগ, নর্থ আমেরিকার টাওয়েল, ফ্যাশন উইক, পাটজাত পণ্য, সুপারি পণ্য, মার্বেল পাথর সামগ্রীসহ বিভিন্ন পণ্য উৎপাদনের কাজে নিয়োজিত আছেন। এসব পণ্য ভারত, চীন, জাপান, দক্ষিণ কোরিয়া, থাইল্যান্ড, ইতালি, সংযুক্ত আরব আমিরাত, নেদারল্যান্ড, ইন্দোনেশিয়াসহ বিভিন্ন দেশে রপ্তানি হচ্ছে।