স্ত্রীকে হত্যার দায়ে স্বামীর মৃত্যুদণ্ড

ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ২১ অক্টোবর ২০২১ | ৬ কার্তিক ১৪২৮

Khola Kagoj BD
Khule Dey Apnar chokh

স্ত্রীকে হত্যার দায়ে স্বামীর মৃত্যুদণ্ড

শরীয়তপুর প্রতিনিধি
🕐 ৭:৩৯ অপরাহ্ণ, অক্টোবর ১৩, ২০২১

স্ত্রীকে হত্যার দায়ে স্বামীর মৃত্যুদণ্ড

যৌতুকের জন্য স্ত্রীকে হত্যার দায়ে স্বামীকে ফাঁসির আদেশ দিয়েছেন নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনাল। পাশাপাশি স্ত্রীর পরিবারকে ক্ষতিপূরণের জন্য বিশ হাজার টাকা দেওয়ার কথা বলেছে আদালত।

বুধবার (১৩ অক্টোবর) বেলা ৩টায় এই আদেশ দেন শরীয়তপুর নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালের বিচারপতি আব্দুস ছালাম খান।

মৃত্যদণ্ডপ্রাপ্ত আসামি হলেন- জাজিরা উপজেলার নাওডোবা ইউনিয়নের হারুন টুনিকান্দি গ্রামের হাশেম শেখের ছেলে নুরুল আমিন শেখ (৩০)।

সরকার পক্ষের আইনজীবী মীর্জা হযরত আলী বলেন, ২০১৭ সালে জাজিরার হারুন টুনিকান্দি গ্রামে স্ত্রীকে হত্যা মমলায় স্বামী নুরুল আমিন শেখকে ফাঁসি রায় দেন আদালত এবং আসামি পক্ষকে ক্ষতিপূরণ বাবদ বিশ হাজার টাকা দেওয়ার কথা বলেন।

তিনি আরোও বলেন, এই মামলায় ৮ জন স্বাক্ষীর স্বাক্ষর গ্রহণ করা হয়। স্বাক্ষীরা তাদের নিজ বয়ানে, ডাক্তারী সার্টিফিকেটের মাধ্যমে এই মামলাটির সব কিছু প্রমাণ করায় বিজ্ঞ আদালত আসামি নুরুল আমিনকে মৃত্যুদণ্ড প্রদান করেন।

উল্লেখ, গত ২০১৭ সালে শরীয়তপুরের জাজিরায় স্ত্রী রেশমা আক্তার (২২) নামের এক গৃহবধূকে পিটিয়ে হত্যা করে তার স্বামী। পরে মেয়ের ভাই ইয়াদ হোসেন ৬ জনকে আসামি করে জাজিরা থানায় মামলা দায়ের করেন। এতে উল্লেখ করেন বিয়ের সময় বোনের সুখের কথা চিন্তা করে ব্যবসা করার জন্য ২ লক্ষ টাকা, ৫০ হাজার টাকা দামের গাভী ও দুই বড়ি স্বর্ণ দেয়। বিয়ের দুই মাস পাড় না হতে আবার টাকা চাওয়া শুরু করে রেশমা আক্তারের স্বামী নুরুল আমিন শেখ ও তার পরিবার। কিন্তু টাকা দিতে না পারার কারণে মাঝে মধ্যে ই মারধর করা হত রেশমাকে।

২-৭-১৭ তারিখ সন্ধ্যায় রেশমাকে এলাকার লোক দেখলেও পরদিন লোক মারফত খবর যায় যে রেশমা খুন হয়েছে। পরে জাজিরা থানা মামলা দায়ের করলে ময়না তদন্তের জন্য পুলিশে লাশ শরীয়তপুর সদর হাসপাতালের মর্গে পাঠান।

 
Electronic Paper