গাজীপুরে বেড়েছে খুন ধর্ষণ অপহরণ

ঢাকা, সোমবার, ২৮ সেপ্টেম্বর ২০২০ | ১৩ আশ্বিন ১৪২৭

গাজীপুরে বেড়েছে খুন ধর্ষণ অপহরণ

তানজেরুল ইসলাম, গাজীপুর ৭:০২ পূর্বাহ্ণ, আগস্ট ০৭, ২০২০

print
গাজীপুরে বেড়েছে খুন ধর্ষণ অপহরণ

চলতি বছরের মে থেকে জুলাই মাস পর্যন্ত করোনা মহামারিতে গাজীপুরে ১৩ জন খুন হয়েছেন। নিহতদের মধ্যে একজন নারী, ছয়জন পুরুষ, পাঁচ শিশু ও এক কিশোর। গত তিন মাসে গাজীপুর মেট্রোপলিটন এলাকায় হত্যাকা-ের শিকার হয়েছেন ১০ জন, কালিয়াকৈর উপজেলায় একজন, শ্রীপুর ও গাজীপুর সদর উপজেলায় দুজন।

দেশের বিভিন্ন গণমাধ্যমে প্রকাশিত সংবাদ বলছে, গত মে মাসে গাজীপুরে একজন পুরুষ ও চারটি নিষ্পাপ শিশু নির্মম হত্যাকা-ের শিকার হয়। জুন মাসে এক নারীসহ চারজন পুরুষ ও এক কিশোর খুন হয়। জুলাই মাসে এক পুরুষ ও এক শিশু খুন হয়।

অনুসন্ধান বলছে, গত ২৮ জুলাই সন্ধ্যায় অপহরণের পর ফাহিম নামে (৭) এক প্রতিবন্ধী শিশুর বস্তাবন্দি লাশ উদ্ধার করে পুলিশ। গাজীপুর মেট্রোপলিটন বাসন থানাধীন নলজানী মধ্যপাড়া এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।

৮ জুলাই সকালে গাজীপুর মেট্রোপলিটন টঙ্গী পূর্ব থানার হিমারদীঘি এলাকায় সাইফুল ইসলামের গলাকাটা মরদেহ উদ্ধার করে পুলিশ। ২৯ জুন নিখোঁজের তিনদিন পর শফিক মুন্সি (৫০) নামে এক প্রবাসীর ঝুলন্ত মরদেহ উদ্ধার করে পুলিশ। গাজীপুর মেট্রোপলিটন টঙ্গী হোসেন মার্কেট এলাকায় মরদেহটি উদ্ধার হয়।

এছাড়া ২৫ জুন বৃহস্পতিবার বিকালে থেকে ২৬ জুন শুক্রবার সকাল পর্যন্ত গাজীপুর মেট্রোপলিটনের পৃথক এলাকায় তিনটি হত্যাকা-ের ঘটনা ঘটে। নিহতদের মধ্যে পূবাইল নারায়ণকুল এলাকার আবুল কাশেম (২৭), গাছা থানাধীন এলাকার শাহীন (২৬) এবং কাশিমপুর থানা এলাকায় ফিরোজা বেগমর (৪০)।

একই মাসে কালিয়াকৈরে জুয়া খেলাকে কেন্দ্র করে অজ্ঞাত যুবক খুন হয়। গত ৬ জুন শ্রীপুরে হৃদয় (১২) নামে এক অটোরিকশা চালক খুন হয়। ২৫ মে গত ঈদুল ফিতরের দিন বাসা থেকে ডেকে নিয়ে ওমর ফারুক ওরফে রাব্বি (২৬) নামে এক যুবককে এলোপাতাড়ি কুপিয়ে হত্যা করা হয়। পরে এ হত্যাকা-ের সঙ্গে জড়িত দুজনকে আটক করে র‌্যাব। গাজীপুর মেট্রোপলিটন দক্ষিণ চতর স্বপ্ননীড় প্রজেক্ট এলাকায় এ হত্যাকা-ের ঘটনা ঘটে।

অনুসন্ধান আরও বলছে, গেল ২৬ মে নিখোঁজের পর হোজাইফা (৪) নামে এক শিশুর লাশ উদ্ধার করে পুলিশ। নগরীর পূবাইল বেপারীপাড়া ও সাপমাড়ার মাঝামাঝি স্থানে ডোবা থেকে ভাসমান অবস্থায় শিশুটির লাশ উদ্ধার হয়। ১৬ মে নগরীর টঙ্গী পূর্ব থানাধীন মধুমিতা রেলগেট এলাকায় ময়লার স্তূপ থেকে মাদ্রাসা ছাত্রী শিশু চাঁদনীর মরদেহ উদ্ধার করে পুলিশ।

চকলেট কিনে দেওয়ার কথা বলে চাঁদনীকে দুই কিশোর পালাক্রমে গণধর্ষণের পর শ্বাসরোধে হত্যা করে। ৯ মে অপহরণের পর মুক্তিপণের টাকা না পেয়ে শারমিন সুলতানা (৬) নামে এক শিশুকে হত্যা করে দুর্বৃত্তরা। গাজীপুর সদর উপজেলার বাঘের বাজার বানিয়ারচালা এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। এর আগে গেল ২ মে রাতে অপহরণের পাঁচ দিন পর আলিফ হোসেন (৭) নামে এক শিশুর বস্তাবন্দি অর্ধগলিত লাশ উদ্ধার করে র‌্যাব।

জেলায় আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতির অবনতি প্রসঙ্গে গাজীপুর জর্জ কোর্টের আইনজীবী ও সিনিয়র সাংবাদিক অ্যাডভোকেট আসাদুল্লাহ বাদল জানান, আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতির মারাত্মক অবনতি ছাড়া গত তিন মাসে এতগুলো মানুষ খুন হওয়ার কথা নয়। যদিও মাঝেমধ্যে বিভিন্ন থানায় আইনশৃঙ্খলার অবনতির কথা বলে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে মামলা দায়ের হচ্ছে। তবে এসব অনেক মামলার এজাহারে আইনশৃঙ্খলা অবনতির নেপথ্য জানানো হচ্ছে না। অপহরণের পর তাৎক্ষণিকভাবে পুলিশ আইনি তদারকিতে জোর দিলে ভিকটিমকে উদ্ধারসহ অপহরণকারীদের গ্রেফতার সম্ভব হত।