ফরিদপুরে জনসমাগম ঠেকাতে পুলিশি টহল

ঢাকা, শনিবার, ৩০ মে ২০২০ | ১৫ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৭

ফরিদপুরে জনসমাগম ঠেকাতে পুলিশি টহল

সঞ্জিব দাস, ফরিদপুর ১২:৫৮ অপরাহ্ণ, মার্চ ২৯, ২০২০

print
ফরিদপুরে জনসমাগম ঠেকাতে পুলিশি টহল

করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ ঠেকাতে ফরিদপুর পুলিশ সুপার আলিমুজ্জামানের নেতৃত্বে জেলা পুলিশের বিশেষ টিম জেলার বিভিন্ন পয়েন্টে ঘুরে জনসমাগম রুখতে সাধারণ মানুষকে ঘরে রাখা, ফেরা ও সচেতনা কার্যক্রম আরও বেশি জোরদার করেছে। এসব কার্যক্রমে পুলিশ পক্ষ থেকে সবাইকে বলা হচ্ছে আপনি ঘরে থাকুন আমরা আপনাকে সব ধরনের সহযোগিতা প্রদান করবো।

অতিরিক্ত পুলিশ সুপার রাশেদুল ইসলাম বলেন, জেলা পুলিশ করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ ঠেকাতে প্রথম থেকেই সরকারি পদক্ষেপ হিসেবে বিদেশ ফেরতদের হোম কোয়ারেন্টাইনের ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে। এরপর তাদের খোঁজ খবর নিতে কোন কোন ক্ষেত্রে পুলিশ ৭-৮বার পর্যন্ত তাদের বাড়ি যাওয়া হয়।

একই সঙ্গে জেলা জুড়ে সচেতনতা বাড়াতে লিফলেট বিলি, মাস্ক ও সাবান বিতরণ করা হয়েছে। জনগণকে বাড়িতে রাখার ব্যবস্থা গ্রহণের সঙ্গে অপ্রয়োজনীয় ঘোরাঘুরি রুখতে শহরে ১২-১৩ বার টহল দেওয়া হচ্ছে। 

তিনি বলেন, জেলার সব হাট-বাজার-ঘাট জনসমাগম ঠেকাতে বন্ধ রাখার ব্যবস্থা গ্রহ করা হয়েছে। করোনা ভাইরাস কার্যক্রমের দায়িত্ব পালন করতে করতে গিয়ে চুরি ডাকাতি বেড়ে নিরাপত্তার প্রশ্ন আসতে পারে সেদিক বিবেচনায় নিয়ে রাত অবধি মানুষের জানমালের নিরাপত্তার জন্য পুলিশের টহল বৃদ্ধি করা হয়েছে।

তিনি ফরিদপুরবাসীকে ঘরে থাকার আহবান জানিয়ে বলেন, আমরা আপনাদের সব ধরনের সহযোগিতা প্রদান করবো। এছাড়া যেকোন প্রয়োজনে পুলিশকে জানান পুলিশ আপনাদের পাশে গিয়ে দাঁড়াবে।

অপরদিকে, বাড়ি বাড়ি ঘুড়ে করোনা ভাইরাস প্রাদুভূাবে কর্মহীন হয়ে পড়া মানুষের মাঝে গত শনিবার থেকে ত্রাণ বিতরণ কার্যক্রম উদ্বোধন করেছেন ফরিদপুরের জেলা প্রশাসক অতুল সরকার।

জেলা প্রশাসক অতুল সরকার বলেন, আমরা ৯টি উপজেলার খাদ্য সহায়তা বিতরণ কর্মসূচিতে ৩১৬টি পরিবারের জন্য ১১৫ টন চাল ও নগদ ১৮ লাখ ১০হাজার টাকা বরাদ্ধ দেয়া হয়েছে। একই সাথে মজুদ রয়েছে ১৯২ টন খাদ্য ও ২ লাখ ৫৪ হাজার টাকা।

ফরিদপুরের সিভিল সার্জন ছিদ্দিকুর রহমান জানান, গত ২৪ ঘণ্টায় জেলায় নতুন করে ১৭ জনকে হোম কোয়ারেন্টাইনে নেওয়া হয়েছে। সব মিলিয়ে এ পর্যন্ত ১৬১৭ জনকে হোম কোয়ারেন্টাইনে নেওয়া হয়।