এক শিক্ষার্থীর তিন জন্মতারিখ

ঢাকা, রবিবার, ১২ জুলাই ২০২০ | ২৮ আষাঢ় ১৪২৭

এক শিক্ষার্থীর তিন জন্মতারিখ

সখীপুর (টাঙ্গাইল) প্রতিনিধি ৮:১১ অপরাহ্ণ, নভেম্বর ০৯, ২০১৯

print
এক শিক্ষার্থীর তিন জন্মতারিখ

টাঙ্গাইলের সখীপুরে হালিমা আক্তার নামে এক জেএসসি পরীক্ষার্থীর বাল্যবিয়ে প্রশাসনের হাত থেকে নিস্তার পেতে পাবলিক নোটারীর মাধ্যমে সম্পন্ন করেছে ছেলের পরিবার। তবে ওই ছাত্রীর তিনটি জন্ম তারিখ রয়েছে বলে জানা গেছে। উপজেলার কালিয়া ইউনিয়নের নয়ারচালা গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। বিষয়টি উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তাকে লিখিত ভাবে জানান ওই এলাকার সচেতন নাগরিকদের পক্ষে কদ্দুস মিয়া।

জানা যায়, হালিমা আক্তারের সমাপনীর সনদ ও জিএসসি পরীক্ষার রেজিষ্টেশন কার্ডে জন্ম তারিখ হলো ০৩.১২.২০০৫ খ্রি.। জন্ম সনদে তার জন্ম তারিখ ০৩.১২.২০০৪ খ্রি.। পাবলিক নোটারীর সঙ্গে সংযুক্ত করা এক জন্ম সনদে দেখা গেছে তার জন্ম তারিখ ০৩.১২.২০০০ খ্রি.। কালিয়া ইউনিয়নের সচিব বাবুল আহমেদ সাগর বলেন, অনলাইনে তথ্য অনুযায়ী হালিমা আক্তারের ০৩.১২.২০০৪ খ্রি. উল্লেখ করা জন্ম সনদটি সঠিক। অন্য গুলোর বিষয়ে কিছু বলতে পারব না।

ইউপি মেম্বার কিসমত মিয়া বলেন, প্রায় এক মাসে অগে পুলিশ এ বাল্যবিয়ে ভেঙে দিয়ে যায়। তারপর কি ভাবে এ বিয়ে সম্পন্ন হলো কিছুই বলতে পারবো না।

স্কুলের প্রধান শিক্ষক একেএম ফজলুল হক বলেন, জেএসসি পরীক্ষায় অংশ না নেওয়ায় খোঁজ নিয়ে জানতে পারলাম তার বিয়ে হয়েছে।

উপজেলা নিকাহ রেজিস্টার সমিতির সভাপতি ও উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান শফিউল ইসলাম কাজী বাদল বলেন, সখীপুরের নিকাহ রেজিস্টাররা বাল্য বিয়ে পড়ায়না। অভিনব কায়দায় পাবলিক নোটারীর মধ্যমে বর্তমানে বাল্য বিয়ে হচ্ছে।