বাজারে শীতকালীন সবজি, দাম চড়া

ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ২১ নভেম্বর ২০১৯ | ৭ অগ্রহায়ণ ১৪২৬

বাজারে শীতকালীন সবজি, দাম চড়া

কিশোরগঞ্জ প্রতিনিধি ৮:২৫ অপরাহ্ণ, অক্টোবর ১৯, ২০১৯

print
বাজারে শীতকালীন সবজি, দাম চড়া

কিশোরগঞ্জে শীতের শুরুতেই মৌসুমী সবজির আসতে থাকায় সবজির দাম কিছুটা কমলেও বাজারে দাম এখনো বেশ চড়া। এতোদিন কিশোরগঞ্জের বাজারগুলোতে উত্তরবঙ্গের শাক-সবজির একচেটিয়া প্রাধান্য দেখা গেলেও এখন স্থানীয় বিভিন্ন জাতের শাক-সবজিও বাজারে আসতে শুরু করেছে। কিন্তু অন্য বছর এই সময়টাতে সকল প্রকার শাক-সবজির দামই ক্রয়ক্ষমতার আওতায় থাকলেও এবছর সেই তুলনায় দাম অনেক চড়া।

জেলা শহরের বড়বাজার, পুরানথানা বাজার ও কাচারি বাজারসহ বিভিন্ন বাজার ঘুরে দেখা গেছে, একমাস আগে সরবরাহের ঘাটতির সময়টাতে যেই ফুলকপিটি বিক্রি হয়েছে ৪০ টাকায়, এখন পর্যাপ্ত সরবরাহ থাকলেও একই আকারের ফুলকপিটি বিক্রি হচ্ছে ৩৫ টাকায়।

অথচ অন্য বছর এসময় এরকম একটি ফুলকপি বিক্রি হয়েছে ১৫ থেকে ২০ টাকায়। করলা বিক্রি হচ্ছে মানভেদে ৬০ থেকে ৮০ টাকা কেজি, ঢেড়শ ৬০ টাকা কেজি, বেগুন মানভেদে ৪০ থেকে ৫০ টাকা কেজি, পটল ৫০ টাকা কেজি, ঝিঙা ৫০ টাকা কেজি, কাঁচা টমেটো ৫০ টাকা কেজি, পাকা টমেটো ১২০ টাকা কেজি, লাল আলু ৩০ টাকা আর ডায়মন্ড আলু ২০ টাকা কেজি। নতুন ভালো মানের শিম বিক্রি হচ্ছে ১৫০ টাকা কেজি। মাঝারি আকারের ডাটা ১৫ টাকা হালি। গত বছর মিষ্টি কুমড়ার যেই ফালিটি বিক্রি হয়েছে ১৫ টাকায়, এবার সেটি ৪০ টাকা। প্রতিটি লাউয়ের দামও গতবছরের তুলনায় অন্তত ২০ টাকা বেশি।

ভোক্তাদের ধারণা, সরকারি চাকুরিজীবীদের বেতন দ্বিগুণ হবার কারণেই বাজারে এর ভয়াবহ প্রভাব পড়েছে। এতে প্রাইভেট বা বেসরকারি চাকুরিজীবীসহ সাধারণ মানুষের নাভিশ্বাস ওঠার উপক্রম। অথচ বেতন বৃদ্ধির সময় সরকার আশ্বাস দিয়েছিল, বেতন বৃদ্ধির প্রভাব নিত্য ব্যবহার্য পণ্যের বাজারে পড়বে না।