রাজেন্দ্রপুর রেঞ্জে ১৩৫ দাগে বনখেকোরা

ঢাকা, শনিবার, ২৪ আগস্ট ২০১৯ | ৯ ভাদ্র ১৪২৬

রাজেন্দ্রপুর রেঞ্জে ১৩৫ দাগে বনখেকোরা

তানজেরুল ইসলাম, গাজীপুর ১১:০৭ পূর্বাহ্ণ, জুলাই ২৩, ২০১৯

print
রাজেন্দ্রপুর রেঞ্জে ১৩৫ দাগে বনখেকোরা

এক দশক আগেও সবুজ বনাঞ্চলে ঘেরা ছিল গাজীপুর। তবে লাগাতার দখল উৎসবে হুমকির মুখে পড়েছে জেলাটির সংরক্ষিত বনাঞ্চল। অথচ গাজীপুরে বনাঞ্চল দেখভালের জন্য বন বিভাগের ছয়টি রেঞ্জ অফিস রয়েছে। এসব রেঞ্জ অফিসের অধীন রয়েছে ২৭টি বিট অফিস। রেঞ্জ এবং বিট অফিসে রয়েছে প্রয়োজনীয় জনবল, অস্ত্র এবং পরিবহন ব্যবস্থা। অথচ এর পরও অবাধে বন দখলের ঘটনা ঘটছে গাজীপুরে।

অনুসন্ধান বলছে, ঢাকা বন বিভাগের গাজীপুর রাজেন্দ্রপুর রেঞ্জের বিভিন্ন বিটের অধীন বনাঞ্চলে বিশাল আয়তনের বনভূমির কর্তৃত্ব হারিয়েছে বন বিভাগ। গাজীপুরে ছয়টি রেঞ্জের মধ্য শুধু রাজেন্দ্রপুর রেঞ্জেই ১৩৫টি সিএস দাগে বন দখলের ঘটনা ঘটেছে। অথচ বেহাত বনের কর্তৃত্ব ফিরে পেতে দৃশ্যত ভূমিকায় নেই সংশ্লিষ্ট বন কর্তারা।

অনুসন্ধান আরও বলছে, রাজেন্দ্রপুর রেঞ্জের সালনা বিটের নাগা মৌজার সিএস ৩৩, ৮৭, ১০৩ এবং ১৫৩ দাগে বনভূমির পরিমাণ ৬.৮৫ একর। তবে লাগাতার দখলে ওই মৌজার অন্তত অর্ধেক বনভূমি বেহাত হয়েছে বলে স্থানীয় অধিবাসীদের অভিমত। রাজেন্দ্রপুর রেঞ্জের দক্ষিণ সালনা মৌজার ১০, ৭১, ৮১, ৯৪, ১৩৭, ১৩৭, ১৫৩, ১৭২, ১৮১, ২৪৯ ও ২৫৬ সিএস দাগে বনভূমির পরিমাণ ৮৬.৫১ একর। অথচ চলমান দখল উৎসবে দক্ষিণ সালনা মৌজায় বিশাল আয়তনের বনভূমি দখল হয়ে গেছে। একই রকম বন দখলের চিত্র রাজেন্দ্রপুর পূর্ব বিটের নয়াগাঁও মৌজায়। ওই মৌজার ১০, ৩০, ৩৬১ ও ৩৭৪ দাগে বন দখল হয়েছে।

রাজেন্দ্রপুর ফাউগাইন মৌজার ১০৪, ৩৩০, ৩৮২, ৪৪৩, ৪৭৬, ৪৮৪, ৪৮৫, ৫১৫, ৮২১, ৮৪৮ দাগে বন দখল করে ঘরবাড়িসহ বিভিন্ন ধরনের স্থাপনা নির্মিত হয়েছে। রাজেন্দ্রপুর পূর্ব বিটের নিশ্চিন্তপুর মৌজার ৫১ ও ১২৪ নং সিএস দাগে বন দখল হয়েছে। আটলোড়া মৌজার ১৪১, ১৫৪, ২১৬, ২১৮, ২১৯, ২২২, ২৪৪, ২৫০, ২৬০, ২৬৯, ৩৪০, ৪৫৪ ও ৫২১নং সিএস দাগে বন বেহাত হয়েছে। এ ছাড়া রাজেন্দ্রপুর রেঞ্জের মনিপুর বিটে ৯১টি সিএস দাগে বনভূমির পরিমাণ ৭৪৪.৪২ একর। অথচ চলমান দখল উৎসবে মনিপুর বিটের ৯১টি সিএস দাগেই বন দখলের ঘটনা ঘটেছে।

ঢাকা বিভাগীয় বন কর্মকর্তা (ডিএফও) মোহাম্মদ ইউছুপ জানান, ২০১৮-১৯ অর্থ বছরে গাজীপুরের বিভিন্ন এলাকায় উচ্ছেদ অভিযান চালিয়ে ৭০০ একরের বেশি বনভূমি উদ্ধার করা হয়েছে। ৫০০ একর বনভূমিতে বাগান সৃজন করা হয়েছে। কোথাও বন দখলের ঘটনা ঘটলে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

ঢাকা কেন্দ্রীয় অঞ্চলের বন সংরক্ষক (সিএফ) আরএসএম মনিরুল ইসলাম জানান, ‘গাজীপুরে বন দখলের ঘটনা ঘটলে ঢাকা বিভাগীয় বন কর্মকর্তাকে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিতে বলা হবে।’