ঋণ না নিয়েও দায় কৃষকের মাথায়

ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ১৮ জুলাই ২০১৯ | ৩ শ্রাবণ ১৪২৬

ঋণ না নিয়েও দায় কৃষকের মাথায়

আবু নাসের হুসাইন, সালথা (ফরিদপুর) ৯:৪৬ অপরাহ্ণ, জুন ১৬, ২০১৯

print
ঋণ না নিয়েও দায় কৃষকের মাথায়

ফরিদপুরের সালথা উপজেলায় বাংলাদেশ কৃষি ব্যাংকের ঋণ না নিয়েও ঋণের বোঝা এক কৃষকের মাথায় চাপিয়ে দেওয়া হয়েছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। ঘটনাটি ঘটেছে উপজেলার সালথা সদর বাজার কৃষি ব্যাংক শাখায়।

জানা গেছে, উপজেলার আটঘর ইউনিয়নের জয়কালী গ্রামের কৃষক মৃত আয়জদ্দিন হাওলাদের ছেলে সেকেন হাওলাদার ২০০৭ সালে পাঁচ হাজার টাকা ঋণ নেন কৃষি ব্যাংক থেকে। ঋণ নেওয়ার পর তিনি কয়েকবার সুদের টাকাও পরিশোধ করেছেন। তার রসিদ রয়েছে ওই কৃষকের কাছে। কিন্তু কৃষি ব্যাংকের এক ভুয়া কর্মকর্তা গত ৯ জুন নোটিশ নিয়ে হাজির হন কৃষকের বাড়িতে।

ঋণগ্রহীতা কৃষক অভিযোগ করে বলেন, আমার বাড়িতে গিয়ে একটি নোটিশ দেখায় টুকু তালুকদার নামে একজন। কৃষি ব্যাংক সালথা বাজার শাখার কর্মকর্তা পরিচয়ে আমার কাছে ব্যাংকের রেজিস্টার বই ও কয়েকটি কাগজে ৮-১০টি স্বাক্ষর নেন। বলেন, ‘আপনার ব্যাংকে সাড়ে ২৫ হাজার টাকা ঋণ রয়েছে। আপনি তাড়াতাড়ি পরিশোধ করেন, না হলে আপনার নামে সার্টিফিকেট মামলা রুজু করা হবে।’

আমি কিছু বুঝতে না পেরে রোববার ব্যাংক ব্যবস্থাপকের কাছে আসি। শাখা ব্যবস্থাপকও আমাকে টাকা পরিশোধ না করলে বিভিন্ন ধরনের ভয়ভীতি দেখান।

তিনি আমাকে বলেন, ২০১২ সালে আপনি আরও সাড়ে নয় হাজার টাকা ঋণ নিয়েছেন। সব মিলিয়ে আপনার সাড়ে ২৫ হাজার টাকা পরিশোধ করতে হবে।’ কৃষক সেকেন হাওলাদার বলেন, আমার নামে আর কোনো ঋণ নেই।

এ ব্যাপারে কৃষি ব্যাংক সালথা সদর বাজার শাখার ব্যবস্থাপক মো. ফয়জুল ইসলাম বলেন, একজন কৃষকের নামে দুইবার ঋণ পাস হয় না। কিন্তু কি করে হয়েছে তা আমি তদন্ত করে দেখব।

টুকু তালুকদার কোন পদাধিকার বলে ব্যাংকে কাজ করেন জানতে চাইলে তিনি পাশ কাটিয়ে যান। বলেন, আমি ব্যাংকের ছোটখাটো কাজের সহায়তা করে থাকি।