ঢাকা-টাঙ্গাইল মহাসড়কে গাড়ির দীর্ঘ সারি, ৪৫ কিলোমিটার যানজট

ঢাকা, সোমবার, ১৬ সেপ্টেম্বর ২০১৯ | ১ আশ্বিন ১৪২৬

ঢাকা-টাঙ্গাইল মহাসড়কে গাড়ির দীর্ঘ সারি, ৪৫ কিলোমিটার যানজট

টাঙ্গাইল প্রতিনিধি ১১:৫৩ পূর্বাহ্ণ, জুন ০৪, ২০১৯

print
ঢাকা-টাঙ্গাইল মহাসড়কে গাড়ির দীর্ঘ সারি, ৪৫ কিলোমিটার যানজট

ঢাকা-টাঙ্গাইল-বঙ্গবন্ধু সেত পূর্ব মহাসড়কে প্রায় ৪৫ কিলোমিটার এলাকাজুড়ে যানজটের সৃষ্টি হয়েছে। গাড়ির দীর্ঘ সারির কারণেই এ যানজটের সৃষ্টি হয়। এতে ভোগান্তিতে পড়েন মহাসড়ক দিয়ে চলাচলকারী যাত্রী ও চালকেরা। গার্মেন্ট কারাখানা ছুটি হওয়ায় অতিরিক্ত গাড়ির চাপ ও বৃষ্টিতে সড়কে খানাখন্দের সৃষ্টি হওয়ায় যানজটের কবলে পড়েছে এ মহাসড়ক।

এদিকে মঙ্গলবার ভোর রাত থেকে সকাল সাড়ে ১০টা পর্যন্ত মহাসড়কের বঙ্গবন্ধু সেতুপুর্ব থেকে মির্জাপুর উপজেলার পাকুল্লা পর্যন্ত গাড়ির দীর্ঘ সারি দেখা গেছে। এছাড়া সড়কে বিভিন্ন এলাকায় মানুষ পরিবহনের অপেক্ষায় দাড়িয়ে রয়েছে। মহাসড়কের বঙ্গবন্ধু সেতুর এলেঙ্গা বাসস্ট্যান্ড, রাবনা বাইপাস, বাঐখোলা, করটিয়া হাটবাইপাস, নাটিয়াপাড়া ও পাকুল্লায় যানজটের সৃষ্টি হয়েছে।

জানা যায়, সোমবার সকাল ৬টা থেকে মঙ্গলবার সকাল ৬টা পর্যন্ত বঙ্গবন্ধু সেতু দিয়ে ৩৫ হাজার ২৭১টি গাড়ি পার হয়েছে।

এ প্রসঙ্গে বঙ্গবন্ধু সেতু পূর্ব থানার ওসি মোশারফ হোসেন জানান, গাড়ির অতিরিক্ত চাপ থাকায় থেমে থেমে বঙ্গবন্ধু সেতুর পূর্ব পার থেকে প্রায় ৪৫ কিলোমিটার যানজটের সৃষ্টি হয়েছে। সিরাজগঞ্জ থেকে গাড়ি টানতে না পাড়ায় এ যানজটের সৃষ্টি হয়েছে। যানজট নিরসনে পুলিশ নিরলস কাজ করছে। আশা করছি অল্প সময়ের মধ্যেই যানচলাচল স্বাভাবিক হবে।

একাধিক চালকরা জানান, কাল থেকেই এ মহাসড়কে যানবাহনের ধীরগতি ছিল। তবে সকাল ৭টা থেকে এ সড়কের পাকুল্লা থেকে বঙ্গবন্ধু সেতু পর্যন্ত প্রায় ৩০ কিলোমিটার এলাকাজুড়ে যানজটের সৃষ্টি হয়েছে। সড়কে এখনও চার লেনের কাজ চলমান থাকাসহ গতকালের বৃষ্টিতে সড়কের বিভিন্ন স্থানে খানাখন্দের সৃষ্টি হয়েছে। এ কারণে গাড়ির গতি কমিয়ে গাড়ি চালাতে হয়।

এদিকে বাড়ি ফেরা কয়েকজন যাত্রী জানান, সোমবার পোশাক শ্রমিকদের ছুটি হওয়ার পর বিকেল থেকে এ সড়কে যানবাহন বৃদ্ধি পেয়েছে কয়েকগুণ। এ কারণে যানজটের সৃষ্টি হচ্ছে বলেও জানান তারা।

হানিফ পরিবহনের চালক নাজমুল মিয়া জানান, গতকাল থেকেই মহাসড়কে গাড়ির প্রচুর চাপ কয়েছে। এর ফলে সকাল থেকে মির্জাপুরের পাকুল্লা থেকে টাঙ্গাইলের বাঐখোলা আসতে প্রায় তিন ঘণ্টা সময় লেগেছে। যা অন্য সময় ১০ থেকে ১৫ মিনিট সময় লাগতো আমাদের।

নাবিল পরিবহনের চালক রানা জানান, ভোর থেকেই যানবাহনের ধীরগতি ছিল। সকাল ৭টা থেকে এ রুটের পাকুল্লা থেকে বঙ্গবন্ধু সেতু পর্যন্ত প্রায় ৩০ কিলোমিটার এলাকাজুড়ে যানজটের সৃষ্টি হয়েছে। সড়কে এখনও চার লেনের কাজ চলমান থাকায় বিভিন্ন স্থানে খানাখন্দের সৃষ্টি হয়েছে। আর তাই এ যানজটের সৃষ্টি হয়েছে। এছাড়াও সোমবার পোশাক শ্রমিকদের ছুটি হওয়ার পর বিকাল থেকে এ রুটের যানবাহন বৃদ্ধি পেয়েছে কয়েকগুণ।