মশলায় ভেজাল বুঝার উপায়

ঢাকা, সোমবার, ৬ ডিসেম্বর ২০২১ | ২২ অগ্রহায়ণ ১৪২৮

Khola Kagoj BD
Khule Dey Apnar chokh

মশলায় ভেজাল বুঝার উপায়

পাকা রাঁধুনি ডেস্ক
🕐 ৪:২৭ অপরাহ্ণ, অক্টোবর ১৮, ২০২১

মশলায় ভেজাল বুঝার উপায়

সরিষা দিয়ে পাবদা মাছ রান্না করলেন। সেই সর্ষে আদৌ খাঁটি কি? রান্নায় যেসব গুঁড়া মশলা চোখ বুজে ব্যবহার করছেন, সেগুলো ভেজাল নয় তো? মশলাপাতি বাজার থেকে কিনে আনার পর পরখ করে দেখে নেওয়া জরুরি। হয়তো এই ভেজাল মশলাই দিনের পর দিন খেয়ে কোনো না কোনো অসুখের শিকার হচ্ছেন! এখানে রইল এরকমই তিনটি রান্নার মশলার কথা। এগুলোতেই সাধারণত বেশি ভেজাল মেশানো হয়। জেনে নিন সেগুলো ভেজাল না খাঁটি। রইল তা বোঝার কয়েকটি সহজ উপায়।

গোলমরিচ
গোলমরিচে অনেক সময়ে পেঁপের বীজ মেশানো হয়। এই গোলমরিচ খেলে কোনো উপকারই পাবেন না। মশলাটি খাঁটি কি না বুঝতে এক গ্লাস পানিতে সামান্য গোলমরিচ দিন। গোলমরিচ খাঁটি হলে তা পানির নীচেই ডুবে থাকবে। পেঁপের বীজ মেশানো থাকলে, তা উপরে ভেসে উঠবে।

সরিষা
ভেজালের হাত থেকে রেহাই পায় না সরিষাও। সরিষার সাথে অনেক সময়েই মিশিয়ে দেওয়া হয় আর্জেমন বীজ। সরিষাতে এই ভেজাল মেশানো আছে কি না, বুঝতে একটি কাচের প্লেটের সামান্য সরিষা নিন। হাত দিয়ে ভালো করে বেছে দেখুন। সরিষার পিঠ সাধারণত বেশি মসৃণ হয় আর্জেমন বীজের থেকে। আর্জেমন বীজ একটু মোটা দানার আর খসখসে হয়। সরিষার বীজ আসল হলে, তা গুঁড়া করলে এর ভিতরে হলুদ অংশ দেখা যাবে। কিন্তু আর্জেমন বীজ হলে, তা গুঁড়া করলে ভিতরে সাদা অংশ দেখা যাবে। এই তফাত একটু খেয়াল করতে হবে।

জিরা, ধনিয়া গুঁড়া
এই সব মশলয় ভেজাল দিতে মেশানো হয় কাঠের গুঁড়া। তাই গুঁড়া মশলায় ভেজাল আছে কি না বুঝতে এক গ্লাস পানিতে ১ চা চামচ ধনিয়া বা জিরা গুঁড়া দিতে হবে। মশলা খাঁটি হলে, পানি পরিষ্কার থাকবে। না হলে পানির উপর কাঠের গুঁড়া ভেসে উঠবে।

 
Electronic Paper