নোয়াখালীর ডিসি-এসপির অপসারণ চাইলেন রানা দাশগুপ্ত

ঢাকা, সোমবার, ৬ ডিসেম্বর ২০২১ | ২২ অগ্রহায়ণ ১৪২৮

Khola Kagoj BD
Khule Dey Apnar chokh

নোয়াখালীর ডিসি-এসপির অপসারণ চাইলেন রানা দাশগুপ্ত

নিজস্ব প্রতিবেদক, নোয়াখালি
🕐 ৯:২৩ অপরাহ্ণ, অক্টোবর ১৭, ২০২১

নোয়াখালীর ডিসি-এসপির অপসারণ চাইলেন রানা দাশগুপ্ত

নোয়াখালীর চৌমুহনী বাজারে হিন্দু সম্প্রদায়ের বিভিন্ন দোকানপাট ও মন্দিরে ভাঙচুরের ঘটনায় ক্ষতিগ্রস্ত মন্দির পরিদর্শন করেন হিন্দু-বৌদ্ধ-খ্রিস্টান ঐক্য পরিষদের সাধারণ সম্পাদক রানা দাশগুপ্ত।

‘বিশেষ ক্ষমতা আইনসহ এ জাতীয় আইনের আওতায় সাম্প্রদায়িক অপশক্তিকে চিহ্নিত করে তাদের অনতিবিলম্বে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দাবি করছি’চৌমুহনীতে হামলা-ভাঙচুরে ক্ষতিগ্রস্ত কয়েকটি মন্দির রোববার দুপুরে পরিদর্শন শেষে এ দাবি জানান তিনি।

এসময় বেগমগঞ্জের চৌমুহনীতে মন্দির, দোকানপাট ও বাড়িঘরে হামলা-ভাঙচুরের ঘটনায় ব্যর্থতার দায় স্বীকার করে নোয়াখালীর ডিসি (জেলা প্রশাসক) ও এসপির (পুলিশ সুপার) অনতিবিলম্বে অপসারণ দাবি করেছেন হিন্দু বৌদ্ধ খ্রিস্টান ঐক্য পরিষদের সাধারণ সম্পাদক রানা দাশগুপ্ত।

রানা দাশগুপ্ত সাংবাদিকদের বলেন, ক্ষতিগ্রস্তদের ক্ষতিপূরণ, আহতদের চিকিৎসার ব্যবস্থা এবং মঠ-মন্দিরের যা ক্ষতি হয়েছে তা পুনরায় নির্মাণ করে দিতে হবে।

তিনি আরো বলেন, বিভিন্ন জায়গায় মন্দিরে হামলার মাধ্যমে তারা মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর প্রতি চ্যালেঞ্জ ছুড়ে দিয়েছে। তাদের উদ্দেশ্য হলো দেশে অস্থিতিশীল পরিস্থিতি তৈরি করে মুক্তিযুদ্ধের দেশে যে উন্নয়ন হয়েছে সে উন্নয়নকে বাধাগ্রস্থ করা। বাংলাদেশের ভাবমূর্তি বিদেশে বিনষ্ট করা এবং এই জাতীয় হামলার মধ্য দিয়ে সংখ্যালঘুদের দেশত্যাগে বাধ্য করা।

এদিকে নোয়াখালীর বেগমগঞ্জ ও চৌমুহনী এলাকায় হিন্দু সম্প্রদায়ের একাধিক মণ্ডপ পুলিশসহ বিভিন্ন পক্ষ বাদী হয়ে ছয়টি মামলা করেছে।
মন্দির পরিদর্শনকালে রানা দাশগুপ্তের সঙ্গে জেলা হিন্দু বৌদ্ধ খ্রিস্টান ঐক্য পরিষদের আহ্বায়ক বিনয় কিশোর রায়, সদস্যসচিব আইনজীবী পাপ্পু সাহা, চৌমুহনী পূজা উদ্যাপন পরিষদের নেতা-কর্মীরা উপস্থিত ছিলেন।

 
Electronic Paper