একে একে ৯ বিয়ে!

ঢাকা, মঙ্গলবার, ২০ অক্টোবর ২০২০ | ৫ কার্তিক ১৪২৭

একে একে ৯ বিয়ে!

চট্টগ্রাম ব্যুরো ৯:২১ পূর্বাহ্ণ, সেপ্টেম্বর ২০, ২০২০

print
একে একে ৯ বিয়ে!

বরগুনার মো. সুলায়মান (২৯)। ১৭ বছর বয়সে জীবিকা অন্বেষণে বরগুনা থেকে আসে চট্টগ্রামে। ৮ হাজার টাকা বেতনে কাজ নেয় নগরীর একটি গার্মেন্টে। পোশাক শ্রমিক হলেও কখনো পুলিশ অফিসার, কখনো আর্মি অফিসার, কখনো আবার নেভি অফিসার হিসেবে নিজেকে পরিচয় দেয়।

বিভিন্ন অফিসারের ছবিতে নিজের মুখের অবয়ব মোবাইল অ্যাপসের মাধ্যমে কাট-পেস্ট করে প্রেমিকাদের কাছে পাঠাত সুলায়মান। এতেই কুপোকাত হতো প্রেমিকা ও তাদের পরিবার। এভাবে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম আর মোবাইল ফোনে তরুণীদের সঙ্গে কথা বলে প্রতারণার জালে ফেলত সুলায়মান। টার্গেট করত গার্মেন্টের নিম্ন মধ্যবিত্ত শ্রেণির তরুণীদের।

আবার বিয়ে করার পর স্ত্রীর ভাই-বোনদের চাকরি দেওয়ার নামে সুলায়মান হাতিয়ে নিয়েছে বিপুল অর্থ। স্ত্রীদের মাধ্যমে এনজিও থেকে লোন নিয়ে সুলায়মান পালিয়ে গেছে অন্যত্র। বেছে নিত আরেকজনকে। অষ্টম স্ত্রী রাহেলার কাছ থেকে তার ভাই ও বোনকে চাকরি দেওয়ার নামে হাতিয়ে নিয়েছে প্রায় আড়াই লাখ টাকা।

তার নামে এনজিও থেকে ঋণ তুলে হাতিয়ে নিয়েছে এক লাখ টাকা। নবম স্ত্রীর (১৫ বছর বয়সী) কাছ থেকে সুলায়মান যৌতুক নিয়েছে দুই লাখ টাকা। এভাবে ২০ থেকে ২৯ বছরের মধ্যে নয় বছরে নয়টি বিয়ে করে প্রতারণার মাধ্যমে অর্থ হাতিয়ে নিয়েছে সুলায়মান।

সেই সুলায়মান অবশেষে চট্টগ্রাম মেট্রোপলিটন পুলিশের গোয়েন্দা (বন্দর) বিভাগ ও পাহাড়তলী থানা পুলিশের যৌথ অভিযানে গ্রেফতার হয়েছে। গত শুক্রবার রাত সাড়ে ১১টায় পাহাড়তলী থানা এলাকার একটি বাসা থেকে তাকে গ্রেফতার করা হয়।

মহানগর গোয়েন্দা বিভাগের (ডিবি) অতিরিক্ত উপ-পুলিশ কমিশনার আবু বকর সিদ্দিক বলেন, অভিযানে সুলায়মানের নবম স্ত্রীকে (১৫ বছর বয়সী) উদ্ধার করা হয়েছে। তার মা বাদী হয়ে পাহাড়তলী থানায় ইতোমধ্যে একটি মামলা দায়ের করেছেন। সুলায়মানকে গ্রেফতারের পর তার অন্য স্ত্রীদের সঙ্গে যোগাযোগ করা হয়। তারা সুলায়মানের বিরুদ্ধে আইনি ব্যবস্থা গ্রহণ করবেন বলে আমাদের জানিয়েছেন।