অবৈধ সম্পদ অর্জন: প্রদীপকে গ্রেপ্তার দেখালেন আদালত

ঢাকা, বুধবার, ২১ অক্টোবর ২০২০ | ৫ কার্তিক ১৪২৭

অবৈধ সম্পদ অর্জন: প্রদীপকে গ্রেপ্তার দেখালেন আদালত

নিজস্ব প্রতিবেদক ৩:৪০ অপরাহ্ণ, সেপ্টেম্বর ১৪, ২০২০

print
 অবৈধ সম্পদ অর্জন: প্রদীপকে গ্রেপ্তার দেখালেন আদালত

প্রায় চার কোটি টাকার অবৈধ সম্পদ অর্জনের অভিযোগে কক্সবাজারের টেকনাফ থানার বরখাস্ত হওয়া ওসি প্রদীপ কুমার দাশকে গ্রেপ্তার দেখিয়েছেন আদালত। সোমবার (১৪ সেপ্টেম্বর) দুপুরে চট্টগ্রাম মহানগর দায়রা জজ শেখ আশফাকুর রহমান শুনানি শেষে এই আদেশ দেন। ওই মামলায় প্রদীপের স্ত্রী চুমকি কারণও আসামি রয়েছেন।

 

 

প্রদীপ কারাগারে যাওয়ার পর থেকে চুমকি পলাতক। ২৩ আগস্ট দুদক চট্টগ্রামের সহকারী পরিচালক রিয়াজ উদ্দিন বাদী হয়ে প্রদীপ ও তাঁর স্ত্রীর বিরুদ্ধে মামলা করেন।

এজাহারে বলা হয়, প্রদীপের বাবা চট্টগ্রাম উন্নয়ন কর্তৃপক্ষের (চউক) একজন নিরাপত্তাপ্রহরী ছিলেন। ১৯৯৫ সালে উপপরিদর্শক (এসআই) পদে যোগদান করেন প্রদীপ। ২০০২ সাল থেকে তাঁর সম্পদগুলো দৃশ্যমান হতে থাকে। নানা কারণে হতে থাকেন আলোচিত।

চুমকির নামে ৪ কোটি ৪৪ লাখ ১৮ হাজার ৮৬৯ টাকার সম্পদ থাকার প্রমাণ পেয়েছে দুদক। এর মধ্যে তিনি পারিবারিক ব্যয়সহ অন্যান্য ক্ষেত্রে খরচ করেছেন ২১ লাখ ৭০ হাজার টাকা। এছাড়া নগরের পাথরঘাটা এলাকায় চুমকি কারণ তার বাবার কাছ থেকে একটি ছয়তলা বাড়ি দানপত্রমূলে পেয়েছেন বলে সম্পদ বিবরণীতে জমা দেন। তবে তা ঘুষ ও দুর্নীতির মাধ্যমে অর্জন করা হয়েছে বলে বুঝা যায়।

ওসি প্রদীপ কুমার দাশ ঘুষ ও দুর্নীতির মাধ্যমে অর্জিত অর্থ দিয়ে সম্পদ ক্রয় করে স্ত্রীর নামে রেখেছেন বলে দুদক অনুসন্ধানে তথ্য পেয়েছে।