চকরিয়ায় শেখ রাসেল মিনি স্টেডিয়ামের জায়গা দখল

ঢাকা, শুক্রবার, ২৯ মে ২০২০ | ১৫ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৭

চকরিয়ায় শেখ রাসেল মিনি স্টেডিয়ামের জায়গা দখল

চকরিয়া (কক্সবাজার) প্রতিনিধি ৩:৫০ অপরাহ্ণ, মে ২৩, ২০২০

print
চকরিয়ায় শেখ রাসেল মিনি স্টেডিয়ামের জায়গা দখল

কক্সবাজারের চকরিয়া উপজেলা পরিষদ সংলগ্ন শেখ রাসেল মিনি স্টেডিয়ামের জায়গা দখলে নিয়ে নির্মিত হচ্ছে অবৈধ স্থাপনা। স্থানীয় একটি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের নাম ভাঙিয়ে কতিপয় চক্র সরকারি স্টেডিয়ামের জায়গা দখলের ঘটনায় একাধিক ক্রীড়া সংস্থা ও সংগঠনের মাঝে চরম ক্ষোভের সৃষ্টি হয়েছে। স্থানীয় সচেতন মহল স্টেডিয়ামের মাঠটি দখলমুক্ত করতে প্রশাসনের হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন।

উপজেলার একাধিক ক্রীড়া সংগঠনের সংশ্লিষ্ঠরা জানান, চকরিয়া উপজেলা পরিষদ প্রতিষ্ঠার পর থেকে চকরিয়া উপজেলা পরিষদের পাশে মগবাজার কমিউনিটি সেন্টার মাঠে (চকরিয়া শেখ রাসেল মিনি স্টেডিয়ামে) সরকারি সবধরণের অনুষ্ঠান এবং উপজেলা প্রশাসনের আয়োজনে সবধরণের খেলাধুলার আয়োজন হচ্ছে এই স্টেডিয়ামে। উপজেলা প্রশাসনের নিজস্ব কোন মাঠ থাকায় দীর্ঘদিন বছর ধরে এই মাঠটি সরকারি অনুষ্ঠানে ব্যবহৃত হয়ে আসছে।

স্থানীয় ক্রীড়া সংগঠকরা দাবি করেছেন, বর্তমান সরকারের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা দেশের প্রতিটি উপজেলায় একটি করে শেখ রাসেল মিনি স্টেডিয়াম নির্মাণ করছেন। এরই আলোকে পর্যাপ্ত অর্থবরাদ্দ দিয়ে বিগত সময়ে সরকার মগবাজার কমিউনিটি মাঠকে শেখ রাসেল মিনি স্টেডিয়াম হিসেবে অবকাঠামোগত উন্নয়নে সাজিয়ে তুলে। এরই অংশ হিসেবে দুই বছর আগে সরকারি অর্থবরাদ্দের বিপরীতে স্টেডিয়ামের পশ্চিম অংশে খেলোয়াড় কর্মকর্তাদের বিশ্রামের জন্য একটি অফিস কার্যালয় ও স্টেডিয়ামের চর্তুদিকে দর্শকদের বসার জন্য গ্যালারী নির্মাণ করেছে।

ক্রীড়া সংগঠক ও এলাকাবাসী অভিযোগ তুলেছেন, চকরিয়া উপজেলা প্রশাসনের কোন ধরণের অনুমতি ছাড়াই সম্প্রতি সময়ে পাশের একটি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের নাম ভাঙিয়ে কতিপয় চক্র স্টেডিয়ামের জায়গা দখলে নিয়েছে। বর্তমানে সেখানে চক্রটি অবৈধ স্থাপ নির্মাণ কাজ অব্যাহত রেখেছে। এ অবস্থায় শেখ রাসেল মিনি স্টেডিয়ামের মাঠটি সংকচিত হয়ে যাচ্ছে। এতে উপজেলা প্রশাসনের সবধরণের অনুষ্ঠান আয়োজনে বাধা সৃষ্টির পাশাপাশি সরকারি এই স্টেডিয়ামটি বেদখল হয়ে যাওয়ার আশঙ্কা দেখা দিয়েছে।

এ ব্যাপারে সচেতন মহল সরকারি শেখ রাসেল স্টেডিয়ামের মাঠটি দখলমুক্ত করতে প্রশাসনের হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন।